“সিলেটে অগ্নিদগ্ধ হয়ে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে যতো রহস্য”

প্রকাশিত: 5:03 PM, November 14, 2017

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট নগরীর বড়বাজার ৯৩ নং বাসায় এক গৃহবধূর অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু নিয়ে রহস্য দেখা দিয়েছে। নিহত গৃহবধূ হাসিনা বেগম (৩৫) সিলেট মহনগর যুবলীগের নেতা মোনায়েম আহমদ মখনের (৪০) স্ত্রী।

গত রোববার রাত ২টার দিকে হাসিনা বেগম অগ্নিদগ্ধ হলে মোনায়েম ও তাঁর দুই ভাই মিলে সিলেট ওসমানী মেডিকেল নিয়ে যায়। সেখানে থেকে চিকিৎসকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে স্থানান্তরের কথা জানালে রাতেই ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন তাঁরা। মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধিন অবস্থায় হাসিনা বেগম মারা যান। নিহত হাসিনা বেগম ঢাকার নবাবপুরের বাসিন্দা। মোনায়েম ও হাসিনার ঘরে একটি ৮ বছরের একটি ছেলে ও ৪ বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঢাকায় চিকিৎসাধিন অবস্থায় হাসিনা বেগমের মৃত্যুর খবর পেয়ে নগরীর বড়বাজার এলাকায় গিয়ে তদন্ত করেন তাঁরা। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অগুনে ঝলসে যাওয়া কিছু মালামাল উদ্ধার করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বড়বাজার ৯৩ নং বাসার মৃত আমীর আলীর তিন ছেলে ও ৬ মেয়ে। এদের মধ্যে মোনায়েম বিবাহীত এবং দুই ভাই অবিবাহিত। ৬ মেয়ের মধ্যে নাসিমা বেগমের বিয়ে হয়েছে নারায়নগঞ্জে। বাকিদের বিয়ে হয়েছে সিলেটের বিভিন্ন এলাকায়।

সোমবার মোনায়েমের বাড়িতে গেলে নাসিমা বেগম বলেন, আমি কোরবানির ঈদের সময় বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলাম। রোববার রাতে কি ঘটেছিল জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি ঘুমিয়ে ছিলাম কিছুই জানি না। রাত তিনটার দিকে ছোট ভাইয়েরা জানিয়েছে মোনায়েমের স্ত্রীকে নিয়ে মেডিকেলে যাচ্ছেন। পরে সেখান থেকে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার সময় ছেলে মেয়েদেরও সাথে নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মোনায়েম যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। এলাকায় আধিপত্যও ছিল মোনায়েমের। বড়বাজার এলাকার এক বাসিন্দা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মোনায়েম মাদকসাক্ত ছিলো।

সিলেটের বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন জানান, মখনের বাড়ি থেকে কিছু আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না কি হয়েছিল। আত্মহত্যা নাকি নির্যাতন চালিয়ে আগুন দেওয়া হয়েছে। বাড়িতেও এ ব্যাপারে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। বিস্তারিত তদন্তের পর পাওয়া যাবে। এ ঘটনায় সোমবার রাত পর্যন্ত কেউই অভিযোগ করেননি বলে জানান তিনি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

November 2017
S S M T W T F
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  

সর্বশেষ খবর

………………………..