বড়লেখায় দুজনের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: 6:21 PM, December 25, 2017

বড়লেখা প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের বড়লেখায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক ডেকোরেটর শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। ওই শ্রমিকের নাম সাদেক মিয়া (২৬)।
সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) দুপুরে পৌর শহরের গাজিটেকা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
অপরদিকে উপজেলার পাথারিয়া চা বাগানের লালমাটি টিলা এলাকা থেকে সোমবার সকালে দিপস গোয়ালা (২৫) নামে আরেক চা শ্রমিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার পৌর শহরের গাজিটেকা মহল্লার নুর মিয়ার বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠানের আলোকসজ্জার কাজ চলছিল। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই বাড়িতে কাজ করছিলেন ডেকোরেটর শ্রমিক সাদেক মিয়া। কাজের একপর্যায়ে বিদ্যুতের সংযোগ দিতে গিয়ে অসাবধানতাবশত তিনি বিদ্যুস্পৃষ্ট হন। পরে তাকে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত্যু ঘোষণা করেন। সাদেক মিয়া হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার মাঝিশাইল গ্রামের উনু মিয়ার ছেলে। সাদেক মিয়া বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউপির মোহাম্মদ নগর গ্রামে বসবাস করতেন।
এদিকে উপজেলার পাথারিয়া চা বাগানের শ্রমিক দিপস গোয়ালার (২৫) ঝুলন্ত লাশ বাড়ির পশ্চিম পাশে পাওয়া যায়। দিপস বাগানের উজ্জ্বল গোয়ালার ছেলে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ বাগানের লালমাটি টিলা এলাকার একটি শিরিষ গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে। পরিবারের লোকজনের দাবি দিপস গোয়ালা মানসিক বিকারগ্রস্ত ছিলেন।
বড়লেখা থানার উপ-পরিদর্শক (অপারেশন) অমিতাভ দাস তালুকদার সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টায় দুজনের মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত ডেকোরেটর শ্রমিকের লাশ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হবে। চা শ্রমিক দিপস মানসিক বিকারগ্রস্ত ছিল। তার পরিবারে দাবি করছে। মৃত্যুর কারণ সংক্রান্তে সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ নেওয়ার জন্য তার স্বজনরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছেন।’

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

December 2017
S S M T W T F
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

সর্বশেষ খবর

………………………..