সুনামগঞ্জ-২ আসনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে চান পার্সী চৌধুরী

প্রকাশিত: ৭:৪৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৮

সুনামগঞ্জ-২ আসনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে চান পার্সী চৌধুরী

আবু তাহের চৌধুরী :: সুনামগঞ্জ ২ (দিরাই-শাল্লা) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করেছেন আওয়ামী লীগ নেতা ওসমান খাদেম (পার্সী চৌধুরী)। তিনি দীর্ঘদিন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে লালন করে তিনি শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে কাজ করে আসছেন। তাই তাকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া বিজয়ী নৌকা উপহার দিতে পারবেন।

সুনামগঞ্জের যোগযোগ বিচ্ছিন্ন দুর্গম জনপদ শাল্লা উপজেলা এখানেই অবস্থিত। এতো বছর পরও দুর্গম শাল্লার সঙ্গে জেলা সদর কিংবা উপজেলা দিরাইয়ে কোনও সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হয়নি। যার কারণে উপজেলাবাসীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। আসন্ন নির্বাচনে পার্সী চৌধুরীকে প্রত্যন্ত জনপদকে একটি উন্নত জনপদ হিসেবে গড়ে তোলা প্রতিশ্রুতি দিয়ে এবারও নৌকা মার্কার প্রার্থী হতে চান তিনি। দিরাই ও শাল্লা উপজেলা নিয়ে গঠিত সুনামগঞ্জ-২ আসনের বেশির ভাগ মানুষ কৃষি ও মৎস্যজীবী। বছরের দীর্ঘ সময় জুড়ে হাওরে পানি থাকায় মানুষ ৬ /৭ মাস বেকার থাকেন। পার্সী চৌধুরী আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন।’

তিনি আরও বলেন, দল যদি আমাকে মনোনয়ন আমি এ আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও হাওর পাড়ের মানুষের বিকল্প কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করবো। ’

পার্সী চৌধুরী সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামের কৃতি সন্তান বর্তমানে ঢাকা উত্তরার বাসিন্ধা পারিবারিক ঐতিহ্যকে ধারণ ও লালন করে মুজিববাদী রাজনৈতিক আদর্শকে সাথে নিয়ে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেএী শেখ হাসিনার সাথে একাত্ব হয়ে সততার সাথে দেশ ও জনতার জন্য কাজ করতে চান তিনি ।

তাহার পারিবারিক পরিচিতিঃ ওসমান খাদেম (পার্সি চৌধুরী) তৎকালীন বৃহত্তর সিলেটের ঐতিহ্যবাহী ,তথা সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামের এক স¤া£ন্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন, তার মাতা শাকেরা আক্তার, সাহেববাড়ী, চাউরা ,আখাউড়া, ব্রাহ্মণনবাড়ীয়ার এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারের কন্যা। পিতা-ওসমান পাশা (এম.এইচ. চৌধুরী) ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সক্রিয় সদস্য, পেশায় একজন সনামধন্য ব্যবসায়ী। পার্সী চৌধুরী’র দাদা মাহফুজুল হক চৌধুরী (এখলাস মিয়া) ছিলেন একজন বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, তিনি আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয় হতে ইংরেজিতে স্নাকত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি ছিলেন দেশপ্রেমী , মাহাত্ম গান্ধীর ব্রিটশ বিরোধী আন্দোলনের একজন সৈনিক । এম. এইচ চৌধুরী তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান এর সময় থেকে মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সাহসী সৈনিক হিসেবে আওয়ামী লীগ এর সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। রাজনৈতিক ও কর্ম জীবনঃ আওয়ামী পরিবার জন্ম নেবার সুবাদে, পারিবারিক পরিমন্ডলেই স্কুল জীবন থেকেই পার্সী চৌধুরীর বঙ্গবন্ধুর রাজনীতিতে হাতে খড়ি হয়। সেই কিশোর বয়স থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতি এবং এর ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে স্কুল জীবনে ছাত্রলীগের রাজনীেিত জড়িয়ে পড়েন। তৎকালীন বৃহত্তর ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের সাথে থেকেয়, তিনি ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার অন্যতম ছাত্রনেতা হিসেবে শ্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন এবং আন্দোলন বেগবান করতে গুরত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন, ছাত্র রাজনীতিতে সফলতার পর তিনি যুবীগের কমিটিতে কাজ শুর করেন। কলেজ জীবন শেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের, পোর্টল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব ওরিগন থেকে পোল্ট্রি শিল্পের উপর বিশেষ শিক্ষা অর্জন করেন এবং ৮০ এর দশকে পারিবারিক ব্যবসা তথা বাংলাদেশে বৃহৎ পোল্ট্রি খামার হাসনা হেনা পোল্ট্রি লিঃ’ এ যোগদান করেন। জনাব পার্সী চৌধুরী একজন বিসিষ্ট শিল্পপতী ও উদ্যোক্তা, তিনি বাংলাদেশের পোষাক শিল্প জগতের একজন অন্যতম ব্যবসায়ি, পাঁচটি ইউনিটের গার্মেন্টস পরিচালনার মাধ্যমে তিনি বেকারত্ব দূরীকরনের সংগ্রামে কাজ করে চলেছেন। সামাজিক অবস্থান ও কার্যকলাপ ঃ পার্সী চৌধুরী – ঢাকায় বসবাসরত দিরাইবাসীদের প্রানের সংগঠন দিরাই এসোসিয়েশন ঢাকা ও দিরাই উন্নয়ন ফোরাম এর উপদেষ্টা হিসাবে দায়িত্বরত আছেন। এই সংগঠনদ্বয়ের মাধ্যমে এলাকার গবীর দুঃখীদের ঢাকায় অবস্থানকালীন যে কোন বিপদে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন। তিনি সিলেটের বৃহত্তর সংগঠন জালালাবাদ এসোসিয়েশন এর লাইফ মেম্বরও বটে। ’ভাটি বাংলা গনসংযোগ’ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। বিভিন্ন রকম সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অংগনে অগ্রণী ভূমিকা পালন রাখে এই সংগঠন। বাংলাদেশের পোষাক শিল্পের সবচেয়ে বড় সংগঠন বিজেএমইউএ, এর একজন সিনিয়র সদস্য। উক্ত সংগঠনের মাধ্যমে তিনি বিভিন্ন সামাজিক কার্যকলাপ বৃক্ষপোরন. দারিদ্র গার্মেন্টস কর্মীদের চিকিৎসা, বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ বিতরণ ইত্যাদি কাজে অংশ গ্রহণ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতি জোট, ব্রাহ্মণনবাড়ীয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। সাধারণ সম্পাদক, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, ব্রাহ্মণনবাড়ীয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি আর্মি গলফ ক্লাব এর একজন সদস্য।

পার্সী চৌধুরী সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শল্লা) আসনে আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন যদি দেওয়া হয় তাহলে আগামীতে নৌকা পতীক নিয়ে নির্বাচনে দলের বিজয় নিশ্চিত করে এই এলাকায় উন্নয়নের দ্বারাবাহিকতা বজায় রাখবেন।

Sharing is caring!

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..