বিশ্বনাথে হামলার অভিযোগে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০১৯

বিশ্বনাথে হামলার অভিযোগে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের উপর হামলার অভিযোগে ইউপি সদস্য সহ ৫জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বুধবার (২৭মার্চ) উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের পূর্বপাড়া (নোয়াগাঁও) গ্রামের ইদ্রিস আলীর মেয়ে নিলুফা ইয়াসমিন (২১) বাদি হয়ে বিশ্বনাথ থানায় এই মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৩। অভিযুক্তরা হলেন- পূর্বপাড়া (নোয়াগাঁও) মৃত আস্তফা মিয়ার পুত্র ও স্থানীয় ইউপি সদস্য ইরন মিয়া (৩৫), তার ভাই সোহাগ আহমদ চন্দন (৩৬), তোতা মিয়া (৩৭), একই গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের পুত্র আব্দুল মছব্বির (৫০) ও তার পুত্র ফটিক মিয়া (২৫)।
মামলার এহাজারে বাদী নিলুফা ইয়াসমিন উল্লেখ করেন- তিনি ২০১৮ সালে অভিযুক্ত ইরন মিয়া মেম্বারের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। এনিয়ে অভিযুক্তদের সঙ্গে বাদীর পরিবারের বিরোধ চলে আসছে। উক্ত মামলার হাজিরা দিতে গত ১২ মার্চ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালে হাজির হন বাদী (নিলুফা)। তিনি আদালতের এজলাস থেকে বের হলে তাকে মামলা করার সাধ মিটিয়ে দিবে বলে হুমকি দেন অভিযুক্ত ইরন মিয়া ও তার ভাই সোহাগ আহমদ চন্দন। এরপর গত ১৫ মার্চ সকাল সাড়ে ১১টায় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাদির ঘরে প্রবেশ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে নিলুফা ইয়াসমিন ও তার মা রিনা বেগমকে খুঁজতে থাকেন অভিযুক্তরা। তাদের এমন আক্রমণাত্মক ভাব দেখে রান্না ঘরের পিছনের দরজা দিয়ে নিলুফা ইয়াসমিন ও তার মা রিনা বেগম দৌড় দিয়ে বাড়ির পার্শ্ববর্তী মসজিদের গেইটের সামনে পৌছা মাত্র তাদের উপর অতর্কিতভাবে হামলা করেন অভিযুক্তরা। এসময় তাদের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়ির ফখরুল আহমদ ও ফাহিম আহমদ এগিয়ে এলে তাদের উপরও আক্রমন করেন অভিযুক্তরা। অভিযুক্তদের হামলায় নিলুফা ইয়াসমিন, তার মা রিনা বেগম এবং পার্শ্ববর্তী বাড়ির শফিক মিয়ার পুত্র ফখরুল আহমদ ও ফাহিম আহমদ গুরুত্বর আহত হয়েছেন। ঘটনার পর আহতরা সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা গ্রহন করেন।
মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকর্মকর্তা মোহাম্মদ দুলাল আকন্দ বলেন- তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Sharing is caring!

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..