নির্বাচনে ৪ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা : সিলেটের ১২টি উপজেলায় আজ ভোট

প্রকাশিত: ১২:১১ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০১৯

নির্বাচনে ৪ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা : সিলেটের ১২টি উপজেলায় আজ ভোট

এম. আজমল আলী :: পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় পর্বের ভোটগ্রহন আজ সোমবার। এ ধাপে সিলেটের ১২টি উপজেলায়ও ভোট একইদিন। এ নির্বাচন উপলক্ষে সিলেটের নির্বাচনী এলাকায় ৪ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

আজ সোমবার (১৮ মার্চ) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ১২টি উপজেলার ৮১৫টি ভোটকেন্দ্রের ৪ হাজার ৪১৪টি কক্ষে একযোগে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এই ১২ উপজেলায় এবার ভোটার সংখ্যা ১৭ লাখ ৯৩ হাজার ৭১০। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ লাখ ৮০ হাজার ৯০ জন ও নারী ভোটার ৮লাখ ৮৫ হাজার ৬২০ জন।

অনুষ্ঠিতব্য এ নির্বাচনে ৩হাজার ৭শত পুলিশ সদস্য, ৯হাজার ৭শত ৯২ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়াও নির্বাচনী এলাকায় বাড়তি নজরদারিতে সাদা পোশাকের পুলিশ, স্টাইকিং ফোর্স ও মোবাইল টিম দায়িত্ব পালন করবে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়। পুলিশ ছাড়াও মাঠে থাকছে বিজিবি, র‌্যাব, আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক সংস্থা। নির্বাচনী এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখাসহ যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিটি বিভাগ তৎপর রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মো. মাহবুবুল আলম বলেন, “উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সিলেট জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সতর্কতা নেয়া হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে কেন্দ্র, ইউনিয়ন ও থানা পর্যায়ে ৪ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মাঠে ২হাজার ২শত জন পুলিশ সদস্য, ৮ হাজার আনসার সদস্যসহ থাকবে স্টাইকিং ফোর্স ও মোবাইল টিম। এছাড়াও সার্বিক নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন বিজিবি ও র‌্যাব সদস্যরা।”

এদিকে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাপারে সিলেট মহানগর পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা জানান, “এ নির্বাচনে সিলেট মহানগর পুলিশের আওতাধীন দুইটি উপজেলায় ২১টি স্টাইকিং ফোর্স ও ৪৪টি মোবাইল টিম রয়েছে। ১৬৯ কেন্দ্রে সিলেট মহানগর পুলিশের ১হাজার ৫শত পুলিশ সদস্য মাঠে থাকবেন।” এর পাশাপাশি আনসার সদস্যরাও ভোটের মাঠে দায়িত্ব পালন করবেন বলেও জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, “নির্বাচনের দিন সাধারণ কেন্দ্রে ১৫ জন ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ১৬ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। এছাড়াও রয়েছে তিনটি রিজার্ভ পুলিশ।”

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সন্দীপ কুমার সিংহ নির্বাচনের ব্যাপারে জানান, ইতিমধ্যে নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সিলেটের ১২ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৫৯ জন, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে ৭৬ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে সাতটিতে ক্ষমতাসীন দলের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন ১৬ জন। পাঁচটিতে রয়েছেন নৌকার একক প্রার্থী ছাড়াও জাতীয় পার্টির চারজন, বিএনপি ঘরানার স্বতন্ত্র প্রার্থী ছয়জন এবং ইসলামী ঐক্যজোটসহ (ওআইজে) ও অন্য স্বতন্ত্র ১৯ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

জেলার ১২ উপজেলায় চার পৌরসভা ও ৯৭টি ইউনিয়ন মিলে মোট ভোটার রয়েছেন ১৭ লাখ ৮০ হাজার ৭১০ জন। এরমধ্যে পুরুষ ১০ লাখ আট হাজার ৯০ জন এবং মহিলা আট লাখ ৮৫ হাজার ৭১০ জন।

এসব উপজেলায় ৮১৫টি কেন্দ্রের ৪ হাজার ৪১৪ টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোটগ্রহণের দায়িত্বে থাকবেন ১৪ হাজার ৫৭ জন কর্মকর্তা। এরমধ্যে প্রিজাইডিং অফিসার ৮১৬, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার চার হাজার ৪১৪ এবং আট হাজার ৮২৮ জন পুলিং অফিসার।

Sharing is caring!

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..