প্রচ্ছদ

খাদ্যমন্ত্রীর মেয়ের বিরুদ্ধে ডা. রাজনকে হত্যার অভিযোগ

১৭ মার্চ ২০১৯, ২০:২৬

crimesylhet.com

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক :: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. রাজন কর্মকারকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তার স্বজনেরা।

ডা. রাজনের মামা সুজন কর্মকার সাংবাদিকদের বলেন, মৃত্যুর আগের রাতে তার স্ত্রী ডা. কৃষ্ণা কাবেরী রাজনের মাকে মোবাইলে হুমকি দিয়েছিলেন।

রাজনের মা ও মামাসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা ময়নাতদন্ত করে মৃত্যুর কারণ পরিষ্কার করার দাবি জানিয়েছেন।

ডা. রাজনের মামা সুজন কর্মকার স্কয়ার হাসপাতালে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত চাই। লাশের ময়নাতদন্তের মাধ্যমে তার মৃত্যুর কারণ জানতে চাই। এর জন্য আইনিভাবে যা যা করা প্রয়োজন আমরা তাই করবো।’

তার স্বজনেরা জানান, বছর খানেক আগে ডা. রাজনের মাথায় আঘাত করেছিলেন ডা. কৃষ্ণা কাবেরী। এ সময় তিনি মাসখানেক রাজধানীর পপুলার হাসপাতাল, সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বিএসএমএমইউর আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

নিহত চিকিৎসক রাজন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের বড় মেয়ে ডা. কৃষ্ণা কাবেরীর জামাই। কৃষ্ণা কাবেরী বিএসএমএমইউতে সার্জারি বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পেয়েছেন ১৬ মার্চ।

মেধাবী এ চিকিৎসকের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে স্কয়ার হাসপাতালে ছুটে যান ঢাকা ডেন্টাল কলেজের অধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির মহাসচিব অধ্যাপক হুমায়ূন কবির বুলবুল।

তিনি বলেন, ‘রাজন অত্যন্ত মেধাবী চিকিৎসক। এই বয়সে তিনি যে পরিমাণ পড়াশোনা করেন, দেশে-বিদেশে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেকে দক্ষ করেছেন, তা বিরল।’

শেরে বাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানে আলম বলেন, ‘হ্যাঁ, আমরা তার মৃত্যুর সংবাদ পেয়েছি। এ বিষয়ে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।’

তার সহকর্মীরা- রাজনের ময়নাতদন্ত দাবি করে মৃত্যুর কারণ পরিষ্কার করা দাবি জানিয়েছেন। তারা বিকেল ৪টার সময় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের সামনে নিহতের মৃত্যুর সঠিক কারণ নিশ্চিতের দাবিতে মিছিল করেন।

এদিকে রাজনের স্বজনরা রাজধানীর তেজগাঁও থানায় মামলা করতে গেলে নেয়া হয়নি বলে অভিযোগ তোলেন তার সহকর্মীরা।

রোববার ভোরে ফার্মগেটের ইন্দিরা রোডের বাসা থেকে স্কয়ার হাসপাতালে নেয়া হয় রাজনকে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাজনের শ্যালিকা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান। কিছু সময় পর রাজনের স্ত্রী কৃষ্ণা কাবেরীও স্কয়ার হাসপাতালে আসেন।

ডা. রাজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের অষ্টম ব্যাচের (বিডিএস) ছাত্র। প্রায় তিন বছর আগে পারিবারিক সম্মতিতে কৃষ্ণার সঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্কে আবদ্ধ হন তিনি।

  •  
  •  
  •  

আর্কাইভ

shares