সিলেটে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা থেকে ৪১ কোটি ২০ লাখ ৩৫ হাজার ৫৮৪ টাকা কর আদায়

প্রকাশিত: 10:29 PM, November 7, 2017

সিলেটে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা থেকে ৪১ কোটি ২০ লাখ ৩৫ হাজার ৫৮৪ টাকা কর আদায় হয়েছে। এরমধ্যে শুধু শেষ দিনেই মঙ্গলবার মেলায় কর আদায় হয়েছে ১২ কোটি ১৮ লাখ ২১ হাজার ৪৫ টাকা। এদিন সেবা গ্রহণ করেছেন ৩ হাজার ৬৮০ জন, নতুন ইটিআইএনধারী হয়েছেন ১১২ জন এবং রিটার্ণ দাখিল করেছেন ২ হাজার ৩৪৫ জন। সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠিত মেলায় সেবা গ্রহণ করেছেন ৩১ হাজার ২৩৪ জন, নতুন ৬০৯ করদাতাকে ইটিআইএন দেওয়া হয়েছে, রিটার্ণ দাখিল করেছেন ৮ হাজার ৫৯৯ জন। সিলেট কর কমিশনার কার্যালয় সূত্রে এমন তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এরআগে দুপুরে সপ্তাহব্যাপী মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে চার ক্যাটাগরিতে সর্বোচ্চ করদাতা ৩৫ জনকে এবং চারটি কর বাহাদুর পরিবারকে সম্মাননা ও সনদ প্রদান করে সিলেট কর অঞ্চল।  এরমধ্যে সিলেট সিটি করপোরেশন ও চার জেলায় সর্বোচ্চ করদাতা ১৫ জন, দীর্ঘ মেয়াদী ১০, সর্বোচ্চ নারী করদাতা ৫ এবং তরুণ পুরুষ করদাতা ৫ জন ছাড়াও চার জেলার চার কর বাহাদুর পরিবার।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার নাজমানারা খানুম বলেন, মানুষ কর দিচ্ছেন বিধায় সরকার পদ্মাসেতু করতে সক্ষম হচ্ছে। ভিশন ২০২১ ও রূপকল্প বাস্তবায়নের দিকে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সরকার। আয়কর বিভাগ সফল হওয়ায় দেশের উন্নতি হচ্ছে। তিনি সিলেট কর অঞ্চলের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, এই কর অঞ্চল ধারাবাহিকভাবে সেরা হওয়ার কৃতিত্ব ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। কর প্রদানে এ অঞ্চলের মানুষের মাঝে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। যারাই কর প্রদানের যোগ্য হচ্ছেন, তারাই স্বতঃস্ফূর্তভাবে কর দিচ্ছেন। বিশেষ করে তরুণপ্রজন্মের স্বেচ্ছায় কর প্রদানে সচেতনতায় তাদের বেলায় কোনো আইন প্রয়োগের প্রয়োজন হবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সিলেটের কর কমিশনারের উদ্যোগের প্রশংসা করে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, করদাতারা অসুস্থ হলে তাদের সহযোগীতায় চিকিৎসা সহায়তা, করদাতাদের স্মার্ট কার্ড দেওয়া ও গাড়ির স্টিকার প্রদানসহ নিত্যনতুন পরিকল্পনার প্রণয়নের মাধ্যমে কর প্রদানে মানুষের আগ্রহ সৃষ্টি করছেন তিনি। যে কারণে সিলেট কর অঞ্চল উত্তরোত্তর সাফল্য পাচ্ছে, সেরা হচ্ছে। তবে ফরম পূরণে জটিলতা নিরসনে সহজীকরণের তাগিদ দিয়ে তিনি বলেন, যাতে করদাতারা তার ফরম পূরণের জন্য ঝামেলা পোহাতে না হয়, কিংবা বিশেষজ্ঞদের দ্বারস্থ না হতে হয়।

সিলেট কর অঞ্চলের কর কমিশনার সৈয়দ মোহাম্মদ আবু দাউদ’র সভাপতিত্বে ও  অতিরিক্ত কর কমিশনার মো. তোহিদুল ইসলাম’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল আহসান, সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়া, সিলেট চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রিজ’র সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদ, সিলেট মেট্টোপলিটন চেম্বারের সভাপতি হাছিন আহমদ। অনুভূতি ব্যক্ত করে বক্তব্য দেন কর বাহাদুর পরিবারের পক্ষে ফয়েজ হাসান ফেরদৌস, সেরা করদাতাদের মধ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম, নারী ক্যাটাগরিতে সেরা করদাতা মারুফা আনোয়ারের পক্ষে তাঁর স্বামী ড. কবির আহমদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে যেসব বীর সেনানী শহীদ হয়েছেন এবং যারা জীবিত আছেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। কর অঞ্চল সিলেটের যাবতীয় কার্যক্রম ও কর বিষয়ক নির্দেশনা বিষয়ক হ্যান্ডবুকের মোড়ক উন্মোচন করেন অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ।

এবার কর বাহাদুর পরিবার সম্মাননা পান সিলেটে ফয়েজ ফেরদৌস ও তার পরিবার, মৌলভীবাজারে মো. মতলিব খান ও তার পরিবার, হবিগঞ্জে সুখলাল ধর ও সুনামগঞ্জে মো. আজিজুর রহমান ও তার পরিবার।

এবার সিটি করপোরেশন এলাকায় সেরা করদাতার পুরস্কার পাচ্ছেন মহাজনপট্টির ব্যবসায়ী ফরিদ বক্স, তাঁতিপাড়ার নাসিম হোসাইন ও মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির চেয়ারম্যান ড. তৌফিক রহমান চৌধুরী। এছাড়া সিটি করপোরেশন এলাকায় দীর্ঘমেয়াদী করদাতা সম্মাননা ও সনদ পান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সাইফুল ইসলাম ও আব্দুল ওয়াদুদ। সর্বোচ্চ মহিলা ক্যাটাগরিতে আনোয়ারা মারুফ, সর্বোচ্চ তরুণ করদাতা আলী আহমদ চৌধুরী। সিলেট জেলায় সেরা করদাতা সম্মাননা পান আব্দুর রহমান (সাহাব উদ্দিন), ডি.এম ফয়ছল ও হাজি মনির আহমদ। সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা ক্যাটাগরিতে মমতাজ আরা খানম আলী, তরুণ ক্যটাগরিতে আব্দুর রহমান। মৌলভীবাজার জেলায় সর্বোচ্চ করদাতা ক্যাটাগরিতে ফজলুর রহমান, আবু সুলতান ও ইসবাহুল বার চৌধুরী। দীর্ঘ মেয়াদী ক্যাটাগরিতে এএম সালাম ও বদরুল আলম, সর্বোচ্চ মহিলা ক্যাটাগরিতে শামীমা আরা তারেক। তরুণ ক্যাটাগরিতে মো. জহিরুল হক। হবিগঞ্জ জেলায় সর্বোচ্চ করদাতা ক্যাটাগরিতে মো. শফিকুল ইসলাম, মিজানুর রহমান শামীম, মো. গোলাম ফারুক। সর্বোচ্চ মহিলা করদাতা ক্যাটাগরিতে ডা. নাজমা আরা বেগম, সর্বোচ্চ তরুণ করদাতা ক্যাটাগরিতে রাজীব কুমার দাস। সুনামগঞ্জ জেলায় সর্বোচ্চ করতদাতা ক্যাটাগরিতে মো. মুহিবুর রহমান, মো. এমাদ উদ্দিন, কাজি মো. নাসিম উদ্দিন, দীর্ঘ মেয়াদী করদাতা হিসেবে বেগম হোসনে আরা চৌধুরী ও মো. রইছ আলী, সর্বোচ্চ মহিলা ক্যাটাগরিতে দিলশাদ বেগম চৌধুরী এবং সর্বোচ্চ তরুণ পুরুষ করদাতা হিসেবে মো. জিয়াউল হক সম্মাননা ও ক্রেস্ট গ্রহণ করেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

November 2017
S S M T W T F
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  

সর্বশেষ খবর

………………………..