সুনামগঞ্জ মধ্যনগরে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরনে অতিরিক্ত ফি আদায়

প্রকাশিত: ১০:৪১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০১৮

সুনামগঞ্জ মধ্যনগরে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরনে অতিরিক্ত ফি আদায়

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক :: সুনামগঞ্জের মধ্যনগরে অধিকাংশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফরম পূরন বাবদ অতিরিক্ত ফি নেওয়ার অভিযোগ ওঠেছে।
অভিভাবকদের অভিযোগ, শিক্ষাবোর্ডের নির্ধারিত ফি ছাড়াও অন্যান্য খাত দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে বাড়তি ফি। কোন কোন বিদ্যালয় কোন প্রকার  রশিদ ছাড়াই বাড়তি ফি আদায় করছে বলে অভিভাবকরা অভিযোগ করছেন।
সরকারের নির্দেশনা অনুয়ায়ী শিক্ষার্থীদের ফরম পূরন বাবদ মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখার জন্য ১,৪৬৫ টাকা,বিজ্ঞান শাখার জন্য ১,৫৬৫টাকা।কিন্তু সরকারের নির্দেশনা তুয়াক্কা করে মধ্যনগর থানার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করছে অতিরিক্ত ফি।
কোচিং ফি, মডেল টেস্ট, বকেয়া বেতন, মিলাদের চাঁদাসহ নানা খাত দেখিয়ে নেয়া হচ্ছে অতিরিক্ত ফি। ফলে বিপাকে পড়েছেন  সহস্রাধিক শিক্ষার্থী। বাড়তি ফির ঘানিটানতে হচ্ছে অভিভাবকদের।
অনুসন্ধানে জানা যায়, মধ্যনগর থানার মধ্যনগর বিপি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে ফরম পূরনে মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে নেওয়া হচ্ছে ১,৯৫০ টাকা,বিজ্ঞান শাখা থেকে নেওয়া হচ্ছে ২০,৫০টাকা,মধ্যনগর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে মানবিক শাখা থেকে ফরম পূরনে নেওয়া হচ্ছে ১৯৫০ টাকা এবং কোচিং ফি ১২০০ টাকা,গলহা উচ্চ বিদ্যালয়ে নেওয়া হচ্ছে ফরম পূরন বাবদ ২,২০০ টাকা,চামরদানী উচ্চ বিদ্যালয়ে মানবিক শাখা থেকে ফরম পূরন বাবদ ২০০০ টাকা এবং কোচিং ফি ১,০০০ টাকা,আবিদনগর উচ্চ বিদ্যালয়ে নেওয়া মানবিক শাখা থেকে ২,০০০টাকা,বংশীকুন্ডা মমিন উচ্চ বিদ্যালয়ে মানবিক শাখা থেকে নেওয়া হচ্ছে ২,২০০ টাকা, বিজ্ঞান শাখা থেকে নেওয়া হচ্ছে ২,৩০০ টাকা, মহেষখলা উচ্চ বিদ্যালয়ে  ফরম পূরনে মানবিক শাখা ২৫০০ টাকা,বিজ্ঞান শাখা থেকে ২,৮০০ টাকা এবং ভোলাগঞ্জ সার্ব্বজনীন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মানবিক শাখার ফরম পূরন বাবদ নেওয়া হচ্ছে ২,২০০ টাকা,কোচিং বাবদ ১০০০ টাকা।কিন্তু অনেক প্রতিষ্ঠানে রশিদ না দিয়েই আদায় করা হচ্ছে টাকা।
 জানতে চাইলে গলহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিধান চন্দ্র তালুকদার জানান,আমাদের বিদ্যালয়ে শুধু মানবিক শাখাই চালু আছে।এতে আমার ফরম পূরন বাবদ ২,২০০ টাকা করে নিচ্ছি।তিনি আরোও জানান সরকারী ফিস ১,৮০০টাকার মত হতে পারে। আমাদের এখান থেকে পরীক্ষার কেন্দ্র দূরে হওয়াতে শিক্ষকদের যাতায়াত বাবদ কিছু টাকা বেশী নিচ্ছি।
এ বিষয়ে মহেষখলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান জানান,আমরা মানবিক শাখা থেকে ফরম পূরন বাবদ নিচ্ছি ২,৫০০টাকা এবং বিজ্ঞান শাখা ২,৮০০ টাকা।
আবিদনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পণিভূষন সরকারের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে জানান,আমাদের বিদ্যালয়ে ফরম পূরনে আমরা ২,০০০টাকা করে নিচ্ছি।তারপর তিনি ফোন সুইচ করে দেন।যার ফলে তার সাথে আর যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।
এই বিষয়ে সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের স্কুল পরিদর্শক মোঃ মঈনুল ইসলাম জানান, বোর্ড নির্ধারিত ফিতে ফরম পূরণ না করে যারা অতিরিক্ত টাকা আদায় করবে তাদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নেব।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares