শিক্ষক পেটানো সেই গুনধর ছেলেকে পুলিশে সোপর্দ করলেন দাপুটে বিএনপি নেতা!

প্রকাশিত: 2:19 PM, November 23, 2017

হাবিব সারোয়ার আজাদ :: জেএসসি পরীক্ষার হলে নকলে বাঁধা দেয়ায় শিক্ষকে পেটানোর ঘটনায় প্রশাসনিক চাঁপে বাধ্য হয়ে অবশেষে নিজের গুণধর ছেলেকে থানা পুলিশে সোপর্দ করলেন বাবা।

বুধবার (২২ নভেম্বর) রাত পৌণে ১২টায় পুলিশে দিলেন সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার দাপুটে বিএনপি নেতা।

শিক্ষক পেটোনোর বখাটে শিক্ষার্থী রিয়াজ মাহমুদ শাহ। সে জামালগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও নয়াহালট গ্রামের শাহাজাহান শাহ্র ছেলে। এ ব্যাপারে রাতে আহত শিক্ষকের অভিযোগের ভিক্তিত্বে থানায় একটি মামলা ডায়রীভুক্ত করা হয়েছে।

জানা গেছে, জামালগঞ্জ উপজেলা বিএনপি নেতার ছেলে রিয়াজ মাহমুদ শাহ্ জামালগঞ্জ সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের জেএসসি পরীক্ষা দিতে গিয়ে গত ১৬ নভেম্বর পরীক্ষার হলে অন্য পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে উত্তর জানা ও উত্তর বলে দেয়ার এক পর্যায়ে হলে দায়িত্বপালনরত শিক্ষক সীতেশ চন্দ্র সরকার বাঁধা প্রদান করেন।’ এরই জের ধরে শিক্ষক সীতেশ চন্দ্র সরকারকে নিজ বাসার সামনে পেয়ে মঙ্গলবার বিকেলে ক্রিকেট খেলার ব্যাটা দিয়ে পিটিয়ে আহত করে রিয়াজ মাহমুদ শাহ্।

পরবর্তীতে আহত শিক্ষককে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে তার অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় বুধবার রাতে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। ’

অভিযুক্ত রিয়াজ মাহমুদ শাহ’র পিতা উপজেলা বিএনপি নেতা শাহজাহান শাহ্র তার ছেলে কতৃক শিক্ষককে পেটানোর বিষয়ে নিজের দাপুট বজায় রেখে বুধবার মন্তব্য করার এক পর্যায়ে বলেন, বিষয়টি ‘ভুল বুঝাবুঝি’। এমনকি শিক্ষককে পেটানোর অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, আমার ছেলে শিক্ষকের সাথে সামান্য বেয়াদবী করেছে।’

এদিকে এ ঘটনায় জামালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বুধবার বেলা ১১ টায় ক্লাস বর্জন করে অভিযুক্তকে গ্রেফতার ও তার শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করে।’

জামালগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমান বুধবার রাত সোয়া ১২টায় জানান, অভিযুক্ত রিয়াজ মাহমুদ শাহকে তার পিতা শাহজাহান শাহ নিজেই রাতে থানায় নিয়ে এসে পুলিশের হাতে সোপর্দ করেছেন, বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।’

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

November 2017
S S M T W T F
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  

সর্বশেষ খবর

………………………..