গোয়াইনঘাটে অগ্নিকান্ডের মামলা না নেওয়ায় পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ

প্রকাশিত: ৯:২৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০১৮

গোয়াইনঘাটে অগ্নিকান্ডের মামলা না নেওয়ায় পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ

Sharing is caring!

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি :: সিলেটের গোয়াইনঘাটে বসতবাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় মামলা নিচ্ছেনা থানা পুলিশ। উল্টো আসামীপক্ষের হয়ে বাদীপক্ষের লোকজনদের বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখাচ্ছে পুলিশ। গত (২৭নভেম্বর) মঙ্গলবার সিলেট জেলা পুলিশ সুপারের কাছে এমন অভিযোগ করেছেন মামলার বাদী সামছু মিয়া।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সামছু মিয়া থানায় উপস্থিত হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন সেই অভিযোগের তদন্তের জন্য থানার এসআই নাসির উদ্দিনকে দেওয়া হয়। তিনি সরেজমিন তদন্ত করে এবং দেখতে পান বসতঘর সর্ম্পন্ন পুড়ে যায়। কিন্তু তিনি থানায় গিয়ে সামছু মিয়ার রুজু করেননি। কারণ স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিবর্গের দ্ধারা বর্শিভূত হইয়া সামছু মিয়ার অভিযোগের কোন ব্যবস্তা গ্রহন করেন নাই। তিনি মামলা না নিয়ে উল্টো তাদের মামলার ভয় দেখাচ্ছে। বসতবাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনার ক্ষতিপূরণ ও বিচার চেয়ে গত ২৩ নভেম্বর তিনি গোয়াইনঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলীর পুত্র সামছু মিয়া। তিনি বলেন, গত ২২ নভেম্বর রাত ১১টায় সামছু মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন ঘুমিয়ে পড়েন। তখন বিবাদীরা সমছু মিয়ার বসতঘরে আগুন লাগিয়ে দেয়। আগুনের তীব্রতায় সমছূ মিয়ার নাতি কান্না শুরু করলে পরিবারের সকলের ঘুম ভাঙ্গে। তখন পরিবারের লোকজন আগুন দেখে বেরিয়ে আসলে আগুন ধরানো নাজিম, বোরহান, জাকির, শওকত, পান্না বেগম সহ আরো ৪/৫ জন লোক পালিয়ে যায়। তখন তাদের শোর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আগুন নিভাতে সক্ষম হন। এতক্ষণে নগদ ৭০ হাজার টাকা সহ প্রায় ২ লক্ষাধিক মালামাল পুড়ে যায়।

মামলার আসামীরা হলেন, মোহাম্মদপুর গ্রামের হাকু মিয়ার পুত্র নাজিম, জামাল মিয়ার পুত্র বোরহান, পাথরটিলা গ্রামের মৃত রূপাই মিয়ার পুত্র জাকির, জাফলং বস্তির মবই মিয়ার পুত্র শওকত, মোহাম্মদপুর গ্রামের সেলিম মিয়ার স্ত্রী পান্না বেগম। মামলায় ৪/৫ জনকে আরো অজ্ঞাত আসামী করা হয়।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares