প্রচ্ছদ

নার্সকে এক মাসে ৩৭ বার কল দেন পরিচালক আমিরুল

১৭ মে ২০১৯, ১৭:৪৭

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক :

Sharing is caring!

রাজধানীর উত্তরার কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের আমিরুল হাসান এখন নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ওই নার্সে উপর মিথ্যা ষড়যন্ত্র ও মানহানীকর কথা-বার্তা বলতে শুরু করেছেন।

পরিচালক আমিরুল হাসানের বিরুদ্ধে এক সিনিয়র নার্স কর্তৃক আনীত যৌন হয়রানির অভিযোগের তদরু শেষ হয়েছে। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্মসচিবের নেতৃত্বে এ অভিযোগের তদন্ত করা হয়।

এ প্রসঙ্গে পরিচালক আমিরুল হাসান বলেন, ‘এটা হচ্ছে ষড়যন্ত্র, অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। মেয়েটি কেন আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে তার কারণ আমি জানি, আমার কাছে সব প্রমাণ আছে। আমার বিরুদ্ধে ভুয়া অভিযোগ করার জন্য একটি গ্রুপ তাকে ২০ লাখ টাকা ও একটি গাড়ি দিয়েছে। সে এখন ওই গাড়িতেই ঘুরে বেড়ায়। ওই গ্রুপটি হাসপাতাল ও আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে তাকে ব্যবহার করছে।’

নার্স জানান, তিনি গাড়ি ও টাকার কথা বলছেন এটাও আমার একটা মানহানী করছেন পরিচালক তিনি নিজেকে সমাজে ভালো মানুষ পরিচয় দিতে আমাকে সমাজের কাছে নষ্ট করতে চেয়েছেন। নার্স আরও বলেন, এটা যদি যড়যন্ত্র হয় তাহলে আমিরুল হাসান গত ফেব্রæয়ারীতে একমাসে ৩৭বার কেন আমাকে কল দিয়েছেন। এখন তিনি আমার ইজ্জত নিয়ে চিনি মিনি খেলছেন।

উল্লেখ্য, কুয়েত মৈত্রী সরকারি হাসপাতালের পরিচালকের বিরুদ্ধে সম্প্রতি এক সিনিয়র নার্স যৌন হয়রানির অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে হাসপাতাল পরিচালককে ওএসডি করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।
তবে অভিযুক্ত আমিরুল হাসান গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে নিজের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে বলেন, ‘একটি কুচক্রী মহল তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানোর কাজে ওই নার্সকে ব্যবহার করছেন। নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ এনে তাকে পরিচালকের পদ থেকে সরিয়ে অন্য কাউকে সেখানে নিয়োগ দিতে চাইছে। তিনি ওই নার্সকে কখনও এ ধরনের কোনো প্রস্তাব দেননি।’

  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর

আর্কাইভ

shares