নগরীতে ৫৫ বস্তা ভারতীয় সুপারীসহ ট্রাফিক পুলিশের হাতে আটক ১ : পালিয়ে যায় সালেহ

প্রকাশিত: ১:০৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৭, ২০১৮

নগরীতে ৫৫ বস্তা ভারতীয় সুপারীসহ ট্রাফিক পুলিশের হাতে আটক ১ : পালিয়ে যায় সালেহ

স্টাফ রিপোর্টার :: সিলেট নগরীর টিলাগড় এলাকা থেকে ৫৫ বস্তা ভারতীয় সুপারী আটক করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে এসএমপির ট্রাফিক বিভাগের এটিএসআই নজরুল ইসলাম এর নেতৃত্বে সুপারি ভর্তি একটি টাটা পিকাপ সহ একজনকে আটক করেলেও মূল হোতা চোরাকারবারী সালেহ পালিয়ে যায়।

জানা যায়, জৈন্তপুর উপজেলার হরিপুর বাজারের হেলাল উদ্দিনের ৫৫ বস্তা ভারতীয় সুপারী নিয়ে কাজির বাজারের উদ্ধেশ্যে যাওয়ার সময় টিলাগড় পয়েন্টে আশা মাত্র এটিএসআই নজরুল ইসলাম গাড়ীসহ ফয়সল আহমদ নামের একজনকে আটক করেন। আটকৃত ব্যাক্তি কানাইঘাট উপজেলার চতুলবাজার এলাকার সড়–ফদ গ্রামের ফরিদ উদ্দিনের পূত্র ফয়ছল আহমদ। এবিষয়ে শাহপরান (রাঃ) থানায় ভারতীয় আনয়ন কওে ১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫-বি ধারায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

আটকৃত ব্যাক্তি ফয়সল আহমদ পুলিশের কাছে বলেন , ওই গাড়িতে ছিল চোরা চালানকারীর মূলহোতা সালেহ ও সুপারীর মালিক হরিপুরের হেলাল গাড়ি আটকের সাথে সাথে তারা পালিয়ে যায়।

এদিকে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, চাঁদাবাজ সালেহ প্রতি রাতে চোরাচালানী সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে চাঁদা উত্তোলন করে । তার ব্যক্তিগত মোবাইলফোনে যথেষ্ট পরিমান তথ্য প্রমানাদি বেরিয়ে আসবে । তাছাড়া যদি তার সম্পদের হিসেব-নিকেশ নেওয়া হয় বা তার ব্যবসা বাণিজ্য কি , তাহলে হিরো সাজার সকল রহস্য বেরিয়ে আসবে । কারন তার ইনকাম অভ সোর্স একমাত্র হলো চাঁদা উত্তোলন আর পুলিশের দালালি,এখন সে গাড়ি-বাড়ি’র মালিক । অদ্য থেকে আনুমানিক দু’বছর পূর্বে তার কিছুই ছিলনা অথচ সে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে এখন আলাদিনের চেরাগ নিয়ে ঘুরছে । এখন সে জিরো থেকে হিরো ?

দীর্ঘদিন থেকে সিলেট নগরীতে সরকারের রাজস্ব ফাকি দিয়ে বিভিন্ন ভারতীয় মালামাল প্রবেশ করছে। কিন্তু কোন ধরনের রাজস্ব ছাড়া থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে চাঁদাবাজ সালেহ প্রতি রাতে চোরাচালানী সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে চাঁদা উত্তোলন করে সরকারের রাজস্ব ফাঁিক দিচ্ছে।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..