ওসমানী মেডিকেল থেকে ‘হার্ট লান মেশিন ফেরত যাচ্ছে না : পরিচালক ইউনুছুর রহমান

প্রকাশিত: ৪:৩০ অপরাহ্ণ, জুন ১৫, ২০১৯

ওসমানী মেডিকেল থেকে ‘হার্ট লান মেশিন ফেরত যাচ্ছে না : পরিচালক ইউনুছুর রহমান

ওসমানী হাসপাতাল থেকে ‘হার্ট লান মেশিন ফেরত যাচ্ছে না । যে মেশিন ওপেন হার্ট সার্জারির সময় লাগে। এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমান ।

ওসমানী হাসপাতালে কার্ডিয়াক ভাস্কুলার সার্জন এবং টিম (১০/১২জন) না থাকায় কোটি টাকার ওপরে কেনা মেশিনটি নষ্ট হওয়ার আগে যাতে কাজে লাগানো যায় তাই তা মন্ত্রী ও সচিবের পরামর্শে ফেরত পাঠানোর কথা থাকলেও এখন ফেরৎ যাবে না ।

দেশের সকল সরকারি হাসপাতালের মধ্যে সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চিকিৎসা সেবায় এখন অনেকটা এগিয়ে। সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সকল হাসপাতালের কাছে চিকিৎসা উন্নয়নের রোল মডেল।

শনিবার দুপুরে সিলেট উন্নয়ন ও ঐতিহ্যের স্মারক সংরক্ষণ পরিষদের প্রতিনিধি দল এর সাথে মতবিনিময় কালে এমনটিই বললেন, হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমান।
হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমান বলেন , সিলেটের চিকিৎসা উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পররাষ্টমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন অত্যন্ত আন্তরিক । চলতি বছরের এপ্রিল মাসে আমরা ঢাকায় লিখিত ভাবে জানিয়েছি ‘হার্ট লান মেশিন এর জন্য লোকবল সহ যা যা লাগে সেই সব তথ্য আশাকরি সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষ আমাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে সব কিছু দিবেন।

প্রতিনিধি দলে ছিলেন, সংগঠনের আহ্বায়ক জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক আল আজাদ, সদস্য সচিব সাংস্কৃতিক সংগঠক শামসুল আলম সেলিম, সদস্য লেখক-সংগঠক রুহুল কুদ্দুছ বাবুল, কবি-সাংবাদিক মুহিত চৌধুরী ও সাংবাদিক নাজমুল কবির পাভেল।

এছাড়াও ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ, আবাসিক সার্জন ডা. অরুণ কুমার বৈষ্ণব, ডা. আসাদুজ্জামান জুয়েল, বাংলাদেশ প্রতিদিনের ব্যুরো প্রধান শাহ দিদার আলম নবেল ও বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, একবছর আগে কার্ডিয়াক সার্জন ডা.মাহবুবকে ওসমানী হাসপাতালে পদায়ন করা হয় ওপেন হার্ট সার্জারি বিভাগ চালু করার জন্য। তখন ওই মেশিনটি কেনা হয়। কিন্তু ডা. মাহবুব যোগদান করে টিম রেডি করার এক পর্যায়ে (২ মাসের মাথায়) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। দেশে কার্ডিয়াক সার্জনের স্বল্পতা থাকায় পরবর্তীতে এই বিভাগ আর চালু করা সম্ভব হয়নি এবং বিভাগোর জন্য কেনা মেশিনটিও পড়ে থাকে।

সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মধ্যে একমাত্র চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওপেন হার্ট সার্জারি করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রত্যোক বিভাগীয় সদরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কার্ডিয়াক সার্জারি বিভাগ চালু করার জন্য। সেই লক্ষ্যে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কার্ডিয়াক বিভাগ চালুর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

………………………..