গোলাপগঞ্জে চুরিকাঘাতে স্কুল ছাত্র নিহত : মহিলাসহ আটক ৫

প্রকাশিত: ৫:৩০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৮

গোলাপগঞ্জে চুরিকাঘাতে স্কুল ছাত্র নিহত : মহিলাসহ আটক ৫

Sharing is caring!

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি :: সিলেটের গোলাপগঞ্জে প্রতিপক্ষের চুরিকাঘাতে এক এসএসসি ফল প্রত্যাশী নিহত হয়েছেন। নিহত এ ছাত্রের নাম আমীর হোসেন (১৮)। সে উপজেলার শরীগঞ্জের বসন্তপুরের আব্দুল হকের পুত্র। ঘটনার পর নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বুধবার সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মহিলাসহ ৫জনকে আটক করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শরীগঞ্জ ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের বাক প্রতিবন্ধী আব্দুল হকের এসএসসি ফল প্রত্যাশী পুত্র আমীর আলীর সাথে ৬/৭মাস পূর্বে ক্যারাম খেলা নিয়ে বিরোধ বাধে। এর পর এলাকাবাসী বিষয়টি স্থানীয় ভাবে কয়েক বার আপোষ মিমাংসার উদ্যোগ নেন। এক পক্ষ এতে রাজে হয়নি। এর পর থানায় মামলা করে অপর পক্ষ। ফলে বিরোধ আরও চরম আকার ধারণ করে। এর জের ধরেই মঙ্গলবার রাতে কৌশলে প্রতিপক্ষরা স্থনীয় বসন্তপুর বাজারে নিয়ে উপর্যপুরি চুরিকাঘাত করে। এতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে আমীর আলী (১৭)। তাৎক্ষণিক এলাকার লোকজন ও তার আত্মীয়-স্বজনরা তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথিমধ্যেই তার মৃত্যু ঘটে। খবর পেয়ে কুশিয়ারা পুলিশ ফাড়িঁর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে একই গ্রামের মৃত. সাজ্জাদ আলীর পুত্র জয়নাল আবেদীন (৪০), ইসরাব আলীর পুত্র রিপন আহমদ রনি (৩৫) ও মইন আহমদ (২০), আপ্তাব আলীর পুত্র ফজলে রাব্বি মুন্না (২০) এবং মৃত. আব্দুল মনাফ বাবুলের স্ত্রী হাসনা বেগম (৫০)। আটকের পর থানায় তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ব্যপাওে কুশিয়ারা পুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ মুরাদ উল্লাহ বাহার জানান, ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এসআই সজ্ঞয় জানান, স্কুল ছাত্র আমীর আলীকে চুরিকাঘাত কওে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার পর নারী-পুরুষ সহ ৫জনকে আটক করা হয়েছে।

এলাকায় শোকঃ এবারের এসএসসি পরিক্ষার ফল প্রত্যাশী আমীর আলী ঘাতকেদের হাতে নিহত হওয়ার পর গোটা এলাকা শোকে স্তব্ধ হয়েছে পড়েছে। ঘটনার পর থেকে বসন্তপুর সহ গোটা শরীফগঞ্জে চলছে তোলপাড়। ন্যক্কারজনক এ ঘুনের ঘটনা কেউ সহজে মেনে নিতে পারছেননা। এদিকে স্কুল পড়–য়া পুত্র আমীর আলীকে হারিয়ে তার মা পারভীন বেগম বার বার মূর্চা যাচ্ছেন। ছেলের জন্য শুধু কাদছেন তিনি। পুত্রের শোকে তিনি এখন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। পাড়া-প্রতিবেশীরা তাকে কোনমতে শান্তনা দিতে পারছেননা। তাকে বুধবার স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়েছে চিকিৎসার জন্য। অপরদিকে গোলাপগঞ্জে থানা হাজতে আটক ৫জনকে চলছে জিজ্ঞাসাবাদ। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাশ সিলেট ওসমানী হাসপাতালের মর্গে রয়েছে ময়নাতদন্তে জন্য। ময়নাতদন্দেও পর লাশ এলাকায় নিয়ে দাফন করা হবে। এ ঘটনার পর বর্তমানে মামলার প্রস্ততি চলছে বলে জানা গেছে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম ফজলুল হক শিবলী বলেন, মামলা হলে আমরা ব্যবস্থা নেব।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares