কোম্পানীগঞ্জে অবৈধ পন্থায় পাথর উত্তোলন চলছে বেপরোয়া চাঁদাবাজি

প্রকাশিত: 10:55 PM, January 9, 2018

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে ধলাই নদী,শারপিন টিলা,মাঝের গাও, উতমা এলাকায় এবং বিজিবি ও পুলিশের নামে প্রতিনিয়ত চলছে লাখ লাখ টাকার চাঁদাবাজির মহাউৎসব। আর এই কাজটি করে যাচ্ছে কুখ্যাত সন্ত্রাসী বিল্লাল বাহিনীর এজেন্ট মোস্তফা কামাল, পিতা:-মতিউর রহমান। ধলাই নদীতে পাথর তারা বিজিবির এজেন্ট দাবী করে অপর দিকে মোল্লা ভাই নামের সূফী সাহেবের দাবী পুলিশের এজেন্ট।

বিভিন্ন সময়ে পত্রিকায় এসব বিষয় নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশের পরও প্রশাসন নিশ্চুপ,তাদের এই নিরবতায় সম্মতির প্রকাশ পায়।অনুসন্ধাণে জানা গেছে প্রতিদিন পুলিশের নামে ৫ হাজার পরিবেশ অধিদপ্তরেরর ২ হাজার আর বিজিবির নামে ৩ হাজার সর্বমোট ১০ হাজার টাকা কালেকশন হয়।শত শত অবৈধ বোমা মেশিন থেকে লাখ লাখ টাকার আয়ের আশায় কোম্পানীগঞ্জ থানায় পুলিশের ওসিরা বদলির তদবির করে থাকে বলেও গুন্জন প্রচালিত রয়েছে।

এছাড়াও পুলিশের দুইজন কনস্টেবলের ডেইলি চাঁদা আদায়ের ব্যাপক প্রমান ও তথ্যও রয়েছে,কোম্পানীগঞ্জ থানা এলাকায় যত অবৈধ বোমা মেশিন পরিচালনা করা হয় তার সকল চাদাঁর অর্থ পুলিশ কনস্টেবল ইয়াহিয়া, হাফিজ,ও তাদের সহযোগি থানার নৌকার মাঝি শফিক সহ তিনজন সাফল্যের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছে বলে অভিযোগের অন্ত নেই।

প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা গেছে কোম্পানীগঞ্জের পাথর কোয়ারী এলাকায় শত শত বোমা মেশিনে সরকারী নির্দেশনার তোয়াক্কা না করে প্রতিনিয়ত উত্তোলন করা হচ্ছে পাথর,এসব কাজের ঝুকি রয়েছে মাঝে মাঝে দরিদ্র মজুর মৃত্যুর কোলেও ঢলে পরার হাজার ও প্রমান রয়েছে। এসব মৃত্যুর বিষয়ে প্রশাসন বাদী হয়ে অসংখ্য মামলাও করেছে তারপর ও কোন সঠিক আইনের জালে অপরাধীরা ধরা না পরা কোন অজানা ইশারা!

আর এসব মেশিন থেকে সন্ত্রাসী বিল্লাল ও মোল্লা ভাই এবং কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ লাখ লাখ টাকা চাঁদাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে। মাঝে মাঝে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোক দেখানো অভিযান চালানো হলেও সাথে সাথে চলে বোমা মেশিন ও পাথর উত্তোলন।জানা গেছে অভিযানের আগে সকল কে ফোন দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়।

এই সকল বিষয় মুল তথ্য উদঘটনের জন্য সকালের সংবাদের বিশেষ অনুসন্ধাণী দল কোম্পানীগঞ্জে অবস্থান করতেছে, সকল তথ্য প্রমান ভিডিও চিত্র ও সাক্ষী প্রমান সংগ্রহ ও ধারাবাহিক রিপোর্ট করে যাবে সকালের সংবাদ,ও অবৈধ পাথর উত্তোলন চাঁদাবাজি বন্ধে সংশ্লিষ্ট্রব্যক্তিদের ভিডিও ফুটেজ সরকার ও প্রশাসন কে প্রদান করে সহযোগিতা অব্যহত রাখবে সকালের সংবাদ।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..