ইয়াবাসহ পুলিশের এএসআই আটকের ঘটনায় মামলা, যৌথ অভিযানে আরও আটক ৪

প্রকাশিত: ৮:৩৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৬, ২০১৮

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : ইয়াবা ব্যবসায়ী কোটিপতি দারোগা নাছিরের অঢেল সম্পত্তি, গ্রেফতার ও মামালা হওয়ার ঘটনায় কুমিল্লা জুড়ে আলোচনার ঝড় বইছে।

গত মঙ্গলবার রাতে কুমিল্লার চান্দিনায় ৪ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেটসহ রাঙ্গামাটি জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) এএসআই নাছির উদ্দিন (৩২) কে এক সহযোগীসহ গ্রেফতার করে থানা পুলিশের টহল দল।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে ৫জনকে আসামী করে চান্দিনা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় ১টি মামলা দায়ের করেন। এরপর থানা ও ডিবি পুলিশের যৌথ অভিযানে একই চক্রের রিপন (৩৮) ও নূর নবী (৩০) কে আটক করা হয়। বুধবার রাতে জেলার চৌদ্দগ্রাম, সদর দক্ষিণ ও কোতয়ালী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশ ঘেষে ৫ তলা ফাউন্ডেশনের বাড়িতে বসবাস করেন ইয়াবা পাচারকারী পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) নাছির উদ্দিন এর পরিবার। চান্দিনা উপজেলার কেরনখাল ইউনিয়নের দোতলা গ্রামে মহাসড়ক থেকে মাত্র ১০ গজ দূরত্বে তার পেত্রিক নিবাস। সীমানা প্রচারী ঘেরা বাড়ির প্রধান ফটকে রয়েছে এসএস এর দৃষ্টিনন্দন তোরণ। ভিতরে প্রবেশ করতেই দেখা গেছে বাড়ির উঠানে রয়েছে ৪টি গাড়ি। ১০ কক্ষ বিশিষ্ট্ দুই ইউনিটের বিশাল ভবনটির এক ইউনিটের কাজ শেষে হলেও অপর ইউনিটে এখনও নির্মাণ কাজ চলছে।

সরেজমিনে ওই বাড়িতে গেলে এএসআই নাছির উদ্দিনের বাবা নূরু মিয়া জানান, তিন ছেলে এবং তিন মেয়ের জনক নূরু মিয়া। তৎকালীন সময়ে নিজের অটো ও টেম্পু চালিয়ে কোনরকম সংসার চালাতেন। বড় ছেলে নাছির উদ্দিন ২০০৬ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে সদস্য পদে যোগদান করার পর সহকারী উপপরিদর্শক পদে দ্রুতই পদোন্নতি পেয়ে জড়ায় ইয়াবা পাচারের সাথে। এরপরই ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটে। তবে ছেলের এ অপকর্মের বিষয়টি জানেনা নুরু মিয়া। তার অপর দুই ছেলের মধ্যে রিয়াজ দুবাই প্রবাসী এবং ছোট ছেলে মামুন এবার এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, নাছির উদ্দিন কনস্টেবল থেকে এএসআই পদে পদোন্নতি পাওয়ার পর আলাদ্বিনের ছেরাগের মতো রাতারাতি অর্থনৈতিক পরিবর্তন ঘটতে থাকে তার। অল্প সময়ের মধ্যেই হয় উঠেন কোটিপতি। বর্তমানে ৩টি মাইক্রোবাস, ১টি লেগুনার সাথে ঢাকা-নবাবপুর সড়কে দু’টি বাসও নাকি চলছে তার। কুমিল্লা সদর উপজেলায় বিয়ে করার সুবাদে সেখানে একটি বাড়িও কিনেছেন বলে জানান তারা।

চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) মোহাম্মদ আলী মাহমুদ জানান, মঙ্গলবার রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনা উপজেলাধীন কাঠেরপুল এলাকায় অভিযানে ৪ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট সহ নাছির উদ্দিন ও কাউসারকে আটকের পর জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে ডিবি পুলিশ ও আমাদের থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে আরও দুই জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের কাছ থেকে ৭০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারের ঘটনায় কোতয়ালী থানায় মাদক আইনে আরও একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত চলছে। এজাহার বর্ণিত অপর আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চান্দিনার কেরনখাল ইউনিয়নের দোতলা গ্রামের নূরু মিয়ার ছেলে ও রাঙ্গামাটি ডিবি পুলিশের দারোগা (এএসআই) নাছির উদ্দিন (৩৮) ও তার সহযোগী সদর দক্ষিণ উপজেলার প্রতাপপুর গ্রামের মোসলেহ উদ্দিনের ছেলে কাউসার (২৮) কে ৪ হাজার পিস ইয়াবাসহ গত মঙ্গলবার রাতে আটক করে চান্দিনা থানা পুলিশ। এরপর তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার রাতে অভিযান চালিয়ে সদর দক্ষিণ উপজেলার রাজেশপুর গ্রামের মঞ্জুর আলীর ছেলে মাদক ব্যবসায়ী সহিদুল ইসলাম রিপন (৩৮) ও কোতয়ালী থানাধীন হাউজিং স্ট্যাটের বাসিন্দা ইসহাক মিয়ার ছেলে মাদক ব্যবসায়ী নূর নবী (৩০) কে আটক করা হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares