তামাবিল মহাসড়কের গর্ত এখন মরণ ফাঁদ

প্রকাশিত: ৫:০৮ অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০১৯

তামাবিল মহাসড়কের গর্ত এখন মরণ ফাঁদ

সিলেট তামাবিল মহাসড়কের জাফলং, মামার বাজার, বল্লাঘাট, তামাবিল স্থলবন্দর, রাধানগর, সারী গোয়াইনঘাট সড়কে অসংখ্য ছোট-বড় খানাখন্দ আর পুরো পিচ কার্পেটিং উঠে যাওয়ার কারনে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থী/শিক্ষক অন্যান্য চাকুরীজীবি ও ব্যবসায়ীসহ এলাকাবাসীকে ব্যাপক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সেই সাথে প্রতিনিয়ত দেশের দূর-দূরান্ত থেকে আগত পর্যটকদের পড়তে হয় নানা দুর্ভোগে। সংস্কারের অভাবে রাস্তাটির বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত হওয়ার কারনে সামান্য বৃষ্টি হলেই প্রচন্ড জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এরই মধ্যে বেশ কিছু জায়গায় ছোট ছোট পুকুরে পরিণত হয়েছে এ সকল রাস্থা গুলিতে। যার ফলে এর বেশ কিছু অংশই এখন চলাচলের অনউপযোগী হয়ে পড়ার কারনে বিপাকে এখানকার জনসাধারণ ও সকল পরিবহন শ্রমিক। ইট দিয়ে সাময়িক চলাচলের জন্য এসকল রাস্থায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান তমা কন্সট্রাকশন এন্ড জামিল ইকবাল ( জে বি ) জয়েন ব্রেঞ্জার’র মাধ্যমে রাস্তাটির কিছু কিছু জায়গায় মেরামত করা হলেও বৃষ্টির পানিতে ভিজে আর পাথরবাহী গাড়ীর অভারলোডে ইটগুলি ভেঙ্গে পানির সাথে মিশে যাওয়ার কারেন দূর্ভোগের অন্ত নেই।
সরেজমিনে দেখা গেছে, তামাবিল বিজিবি সীমান্ত সম্মেলন কেন্দ্র থেকে শুরু করে মোহাম্মদপুর, মামার বাজার, বল্লাঘাট বাজার পর্যন্ত রাস্থায় অগনিত বড়বড় গর্ত হয়ে পুকুরে রূপ নিয়েছে। বৃষ্টি হলেই গর্তসহ পুরো সড়কটি তলিয়ে যায় পানির নিচে। সেই সাথে বৃষ্টির পানি জমে থাকায় অনেকেই গর্তের গভীরতা বুঝে উঠতে পারেন না। যার ফলে নিত্যদিন এসব গর্তে পড়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন সড়কে চলাচলরত শত শত যাত্রী সাধারণ এবং যানবাহন চলাচলও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে ব্যাপক। সড়কের বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দের কারণে যানবাহন চলছে ঝিমিয়ে যার কারনে প্রতিদিন ছোট/বড় দূর্ঘটনায় প্রান হারাচ্ছেন অনেকে। এছাড়াও সিলেট তামাবিল মহাসড়কের তামাবিল নামক স্থানে রাস্থার দু-পাশে পাথরবাহী ভারতীয় গাড়ী গুলির পাথর আনলোড এবং দেশীয় গাড়ী গুলির পাথর লোডে জন সাধারনের ভুগান্তি নিত্য দিনের সঙ্গি হিসেবে লেগে আছে।
এসব রাস্থা দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটকের যাতায়াত আর রিকশা, ট্রাক, প্রাইভেটকার, সিএনজি অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, ভ্যানসহ বিভিন্ন কোম্পানীর মালবাহী গাড়িসহ অনেক যানবাহন চলাচল করলেও এভাবেই জীবনের ঝুকি নিয়ে চলতে হয়। রাস্তাটির বেহাল অবস্থার কারণে এখানকার ব্যবসা-বাণিজ্যেও বিরাজ করছে অচলাবস্থা।
প্রতিনিয়ত সাধারন মানুষের পাশা-পাশি বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী, সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের পদচারণায় মূখরিত থাকলেও রাস্থা মেরামতের নেই কোন তদারকি।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..