কানাইঘাটে পরিবারের সবাইকে খাবারে কীটনাশক মিশিয়ে হত্যার চেষ্টা

প্রকাশিত: ৬:২৫ অপরাহ্ণ, মে ৪, ২০১৯

কানাইঘাটে পরিবারের সবাইকে খাবারে কীটনাশক মিশিয়ে হত্যার চেষ্টা

কানাইঘাট প্রতিনিধি :: কানাইঘাটের জুলাই এলাকায় বাড়ী সিলেট শহরের বালুটিকর দাসপাড়া এলাকায় বসবাসরত একটি পরিবারের খাবারে চেতনানাশক কীটনাশক পদার্থ প্রয়োগ করার পর শিশু সহ ৬জন গুরুতর অসুস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

অসুস্থ সবাইকে সিলেট শহরের ওয়েসিস হাসপাতালের আইসিইউতে ৫দিন ভর্তি থাকার পর তারা কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠেছেন। প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে এ ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

জানা যায়, কানাইঘাট সাতবাঁক ইউপির জুলাই গ্রামের মৃত মৌলভী জালাল উদ্দিনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৫৫) ও তার দুই পুত্রবধূ তাহমিনা বেগম (৩০), রিমা বেগম (২৬), মেয়ে শিউলী আক্তার (১৬), বিউটি আক্তার (১৪), সুইটি আক্তার (১২) কে নিয়ে বালুটিকর দাসপাড়ায় নিজস্ব বাসায় বসবাস করে আসছিলেন।

গত রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাসার সকলের অজ্ঞাতে রান্না ঘরের খাবারে কে বা কারা কীটনাশক পদার্থ ছিটিয়ে মিশিয়ে দেয়। খাবার খেয়ে পরিবারের সবাই গুরুতর অসুস্থ হয়ে সবাই অজ্ঞান হয়ে পড়েন। সাথে সাথে মুমুর্ষ অবস্থায় পরিবারের ৬জনকে ওয়েসিস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাদের প্রত্যেককে আইসিইউতে ভর্তি করেন।

গত বৃহস্পতিবার কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর তাদেরকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেন চিকিৎসকরা। এ ঘটনায় মনোয়ারা বেগমের ভাই কানাইঘাট পৌর শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ভাটিবারাপৈত গ্রামের মৃত হাজী শফিকুল হকের পুত্র মাহমুদ আলী গত সোমবার সিলেট এসএমপি শাহপরাণ (রহ:) থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেছেন। থানার জিডি নং- ১২৮৭, তাং- ২৯/০৪/২০১৯ইং।

মাহমুদ আলী জানিয়েছেন, শত্রুতা মূলক কারনে তার বোন সহ পরিবারের ৬ সদস্যকে খাবারে কীটনাশক বিষ মিশিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল।

এসএমপির উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা কয়েক দফায় মনোয়ারা বেগমের বাসায় গিয়ে বিষয়টি উদ্ঘাটনের জন্য তদন্ত কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। বিষ প্রয়োগকৃত খাবারও পরীক্ষা করছে পুলিশ।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

………………………..