প্রচ্ছদ

ছাত্রলীগের জয়জয়কারেও ব্যতিক্রম রিকি

১১ মার্চ ২০১৯, ২১:৫৯

crimesylhet.com

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : দীর্ঘ ২৮ বছর পর ছাত্রলীগের ছাড়া সব প্রার্থীদের বর্জনে অনুষ্ঠিত হয়েছে ডাকসু নির্বাচন।সোমবার সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ১৬টি হলে এই নির্বাচনের ভোট হয়। বাকি দুটি হলে মাঝখানে বিঘ্ন ঘটায় ভোট হয় সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত।

এরপর থেকে রাত পৌনে ১০টা পর্যন্ত ১১টি হল সংসদ নির্বাচনের ফলাফল পাওয়া গেছে। এতে ক্ষমতাসীন ছাত্রলীগ প্যানেলের প্রার্থীদের জয়জয়কার দেখা গেছে।

প্রায় সব হলেই ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ প্যানেল জয় পেয়েছে। তবে, মেয়েদের ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের স্বতন্ত্র প্যানেলের প্রার্থী রিকি হায়দার আশা ভিপি পদে বিজয়ী হয়ে চমক দেখিয়েছেন। অবশ্য এখানেও জিএস পদে ছাত্রলীগের সারা বিনতে জামাল বিজয়ী হয়েছেন।

হলগুলোর নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা হল সংসদ রিটার্নিং কর্মকর্তারা সোমবার সন্ধ্যায় এই ফল ঘোষণা করেন।

হাজী মুহম্মদ মুহসীন হল

এই হলে ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ প্যানেল বিজয়ী হয়েছে। ভিপি পদে শহিদুল হক শিশির ও জিএস পদে মেহেদী হাসান মিজান নির্বাচিত হয়েছেন। আর এজিএস নির্বাচিত হয়েছেন মো. সাদিল আব্বাস।

নির্বাচিত অন্যরা হলেন, সাহিত্য সম্পাদক মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক ইমরান হাসান, রিডিং রুম সম্পাদক মো. বিল্লাল হোসেন, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক মো. শাহরিয়ার সনেট, বহিরাঙ্গণ ক্রীড়া সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আবুল হোসেন।

সদস্য পদে নির্বাচিতরা হলেন, মো. আব্দুর রহমান, শাহ ইবনে সোয়াদ, মো. জাহাঙ্গীর আলম ও মো. মুজাহিদুল ইসলাম।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল

এই হল সংসদেও ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ প্যানেল বিজয়ী হয়েছে। ভিপি পদে ছাত্রলীগের আকমল হোসেন ও জিএস পদে মেহেদি হাসান শান্ত নির্বাচিত হয়েছেন। আর এজিএস পদে জয় পেয়েছেন জুলফিকার হাসান।

অন্যান্য পদে বিজয়ীরা হলেন— সাহিত্য সম্পাদক আব্দুল কাদের, পাঠচক্র সম্পাদক আজহারুল ইসলাম সুমন, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক মুনতাসির মমতাজ, বহিরাঙ্গণ ক্রীড়া সম্পাদক মাহমুদুল হাসান, সমাজসেবা সম্পাদক মাহবুবুর রহমান ও সংস্কৃতি সম্পাদক পদে ইয়াসির আরাফাত।

সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন, আসীর মুরাদ, ফারুক শেখ, মনিরুজ্জামান লিয়ন ও আতাউল্লাহ আরমান।

জিয়াউর রহমান হল

এই হলে ১৩টি পদেই ছাত্রলীগ থেকে বিজয়ী হয়েছেন। ভিপি নির্বাচিত হয়েছেন শরিফুল ইসলাম। জিএস পদে নির্বাচিত হয়েছেন হাসিবুল হোসেন শান্ত। আর এজিএস নির্বাচিত হয়েছেন আব্দুল্লাহ মমিন আবির।

বিজয়ী অন্যান্যদের মধ্যে সাহিত্য সম্পাদক জাহিদ হোসেন, পাঠকক্ষ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মান্নান, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক সজীব মিয়া, বহিরাঙ্গণ সম্পাদক মিরাজ ইসলাম, সমাজসেবা সম্পাদক মো. কাওসার ও সংস্কৃতি সম্পাদক পদে ওহিদুজ্জামান জয় পেয়েছেন।

সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন, আলী, আমির হোসেন, সাহরিয়ার ইসলাম ও আশিকুর রহমান।

ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হল

এই হলে ভিপি পদে চমক দেখিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী রিকি হায়দার আশা নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ছাত্রলীগের প্রার্থী কোহিনুর আক্তার রাখিকে পরাজিত করেন।

এই হলে সাধারণ সম্পাদক পদসহ অন্য ১০ পদে ছাত্রলীগ জয় হলেও সাধারণ শিক্ষার্থীদের স্বতন্ত্র প্যানেল থেকে সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে তাসলিন হালিম মিম এবং সাহিত্য সম্পাদক পদে খাদিজা বিজয়ী হয়েছেন।

ছাত্রলীগ প্যানেল থেকে বিজয়ীরা অন্যরা হলেন, এজিএস মোসা. সাবরিনা খাতুন, রিডিং রুমবিষয়ক সম্পাদক সানজিদ ইয়াসমিন, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক রিয়া আক্তার শান্তা, বহিরাঙ্গণ ক্রীড়া সম্পাদক পাপিয়া আক্তার ও সমাজসেবা সম্পাদক পদে ইসরাত জাহান।

সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন, ইসমত আরেফিন আলো, জান্নাতুল তাজরিন, রুবাইয়া আক্তার ও সৈয়দা মুনিয়া ইসলাম।

শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল

এই হল সংসদে ছাত্রলীগ থেকে ভিপি পদে বিজয়ী হয়েছেন সাইফুল্লাহ আব্বাছী। জিএস পদে মো. রিফাত উদ্দিন। আর এজিএস পদে সুরাপ মিয়া সোহাগ জয় পেয়েছেন।

কবি জসীম উদ্‌দীন হল

এই হল সংসদে ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ প্যানেল জয় পেয়েছে। ভিপি হয়েছেন ফরহাদ আলী। জিএস হয়েছেন ইমাম হাসান। আর এজিএস পদে বিজয়ী হয়েছেন সাইফুল ইসলাম।

সাহিত্য সম্পাদক পদে মো. আব্দুল্লাহ আল নোমান, পাঠকক্ষ বিষয়ক সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক লুৎফর রহমান, বহিরাঙ্গণ সম্পাদক মো. জাহিদ হাসান, সমাজসেবা সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক পদে মো. ইমাম উল হাসান নির্বাচিত হয়েছেন।

সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন, নাইম মোল্লা, মো. আহসানুল হক শিমুল, আব্দুল্লাহ আল মামুন ও মো. মহসিন আলম তালুকদার।

বিজয় একাত্তর হল

এই হলেও ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ প্যানেল বিজয়ী হয়েছে। ভিপি পদে সজিবুর রহমান সজীব, জিএস পদে নাজমুল হাসান নিশান ও এজিএস পদে মুহাম্মদ আবু ইউনুস জয় পেয়েছেন।

সাংস্কৃতি সম্পাদক পদে মো. ওয়াহিদ আনোয়ার রনো, সাহিত্য সম্পাদক মো. ফাহিম হাসান, পাঠকক্ষ বিষয়ক সম্পাদক শিবলী নুমান, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক মো. সুজন শেখ, বহিরাঙ্গণ সম্পাদক মীর মোহা. বনী ইয়ামিন ও সমাজসেবা সম্পাদক পদে নুরুল ইসলাম রোমান জয় পেয়েছেন।

বিজয় একাত্তর হলে সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন, মো. মাহফুজুল হোসেন হিমু, মো. রাব্বি শেখ, রেজাউল রাইয়ান ও শফিকুল ইসলাম ফকির।

মাস্টার দ্য সূর্যসেন হল

সূর্যসেন থেকে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে বিজয়ী হলেন, ভিপি মো. মারিয়াম জামান খান সোহান, জিএস মো. সিয়াম রহমান, এজিএস এম মোরশেদ সালাম, সাহিত্য সম্পাদক আল সাদী ভূঁইয়া, সংস্কৃতি সম্পাদক জুবায়ের আহমদ, পাঠকক্ষ বিষয়ক সম্পাদক রেজওয়ানুল ইসলাম, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক সাব্বির হাসান সৌরভ, বহিরাঙ্গণ সম্পাদক পদে মো. জুলহাস সুজন ও সমাজসেবা সম্পাদক পদে জহিরুল ইসলাম।

এই হল থেকে সদস্য পদে বিজয়ী ছাত্রলীগের নেতারা হলেন, আব্দুল্লাহ খান শৈশব, মো. তুষার হোসেন, মিরাজ ইরফান চৌধুরী ও মো. আরিফুল ইসলাম।

ফজলুল হক হল

ফজলুল হক হলেও ছাত্রলীগ প্যানেল থেকে সবাই জয়ী হয়েছেন। তারা হলেন, ভিপি মাহমুদুল হাসান তমাল, জিএস মাহফুজুর রহমান ও এজিএস শাহিনূর রহমান চৌধুরী।

জগন্নাথ হল

জগন্নাথ হলে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে বিজয়ীরা হলেন, ভিপি উৎপল বিশ্বাস, জিএস কাজল দাস, এজিএস অতনু বর্মণ, সাহিত্য সম্পাদক জয়দ্বীপ দত্ত, সংস্কৃতি সম্পাদক কাঞ্জিলাল রায় জীবন, পাঠকক্ষ বিষয়ক সম্পাদক রিন্টু বড়ুয়া, অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক পলাশ চন্দ্র রায়, বহিরাঙ্গণ সম্পাদক অর্ণব হোড় ও সমাজসেবা সম্পাদক প্রদীপ দাস।

এই হল থেকে সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন, বিবেকানন্দ দাস, রঞ্জন কুমার রায় মিঠু, চন্দ্র শীল ঋভূ ও সরকার শুভ্র।

শামসুন্নাহার হল

মেয়েদের এই হল থেকে বিজয়ীরা হলেন, ভিপি পদে শেখ তাসনিম আফরোজ, জিএস আফসানা হপা, এজিএস ফাতিমা আক্তার, সাহিত্য সম্পাদক তাহসিন, সংস্কৃতি সম্পাদক সামিয়াজ জাহান প্রমি, পাঠকক্ষ বিষয়ক সম্পাদক অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া সম্পাদক খাদিজা বেগম, বহিরাঙ্গণ সম্পাদক মাহমুদা আক্তার ও সমাজসেবা সম্পাদক শিরিন আক্তার।

এই হল থেকে সদস্য পদে তামান্না তাসনিম উপমা বিজয়ী হয়েছেন।

  •  
  •  
  •  

আর্কাইভ

shares