প্রচ্ছদ

১৪ বছরের কনের সাথে বিয়ের আয়োজন! অতঃপর…

০২ মার্চ ২০১৯, ০০:৩৮

crimesylhet.com

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : ১৪ বছরের রাজিয়া সুলতানা। বয়স এখন তার বান্ধবীদের সাথে স্কুলে যাওয়ার। আর এই বয়সেই কিনা বসতে হয়েছে বিয়ের পিঁড়িতে। তবে এ সময় এসে রাজিয়াকে উদ্ধার করেন সিরাজগঞ্জ সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

এমই ঘটনা ঘটেছে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের তেতুলিয়া পশ্চিম পাড়া এলাকায়।

নবম শ্রেণীর ছাত্রীর বাল্যবিবাহ বন্ধ করলেন সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান।

বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জ সদরের কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের তেতুলিয়া পশ্চিম পাড়া এলাকায় পুলিশ ফোর্স নিয়ে কনের বাড়ীতে উপস্থিত হন। তখন কনের বাড়ীতে কনে তেতুলিয়া পশ্চিম পাড়া এলাকার আব্দুর রাজ্জাক মেয়ে রাজিয়া সুলতানা (১৪) এর সাথে বর সদর উপজেলার জারিলা গ্রামের আব্দুল খালেক এর পুত্র মোঃ কাওছার (২৪) এর বিয়ের আয়োজন চলছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে কাজী কৌশলে পালিয়ে যায়। কনে সদরের তেতুলিয়া চুনিয়াহাটা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী। কনে অপ্রাপ্তবয়স্ক।

এরপর ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বর মোঃ কাওছারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও কনের বাবা আব্দুর রাজ্জাককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

পরে কনের বাবার কাছ থেকে মেয়ের ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিবাহ দিবেন না বলে মুচলেকা নেয়া হয়।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অনিন্দ্য গুহ, সদর থানা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক রশিদুল হাসান, পৌর ভূমি অফিসের ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম, সদর থানা পুলিশের সদস্যবৃন্দ।

  •  
  •  
  •  

আর্কাইভ

shares