ওসমানী মেডিকেল রোডে অবৈধ পার্কিং ও সিএনজি স্ট্যান্ড : দুর্ভোগ চরমে

প্রকাশিত: 1:27 AM, August 31, 2021

ওসমানী মেডিকেল রোডে অবৈধ পার্কিং ও সিএনজি স্ট্যান্ড : দুর্ভোগ চরমে

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটওসমানী মেডিকেল রোডে অসহনীয় যানজট। ফলে রোগীদের হাসপাতালে আনা-নেওয়াতে পোহাতে হয় চরম দুর্ভোগ। সন্ধ্যা হতেই সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও কাজলশাহ সড়কে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। আর এটা নিত্যদিনের সমস্যা। এ সমস্যার র মূলে রয়েছে বিভিন্ন বেসরকারী হাসপাতাল ক্লিনিক ও ডায়োগনিস্টিক সেন্টারগুলোর অবৈধ পার্কিং ও স্থানীয় চাঁদাবাজদের স্ট্যান্ড ব্যবসা।
কাজল শাহ-মধুশহীদ এলাকার এসব যানযট সৃষ্টি পিছনে যেমন সড়কে গড়ে ওঠা একাধিক সিএনজি অটোরিক্সা স্টান্ডকে দায়ী করেন ভোক্তভোগীরা। তেমনি এ বেসরকারী ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোকে দায়ী করেন তারা।
ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইমার্জেন্সী গেইটের সামনে রয়েছে াবৈধ সিএনজি স্ট্যান্ড। এখানে স্ট্যান্ড বসিয়ে সভাপতি আব্দুল কাদির ও সম্পাদক রফিক অটোরিক্সা প্রতি চাঁদা আদায় করে থাকেন। আদায়কৃত টাকা থেকে একটা অংশ এসএমপির ট্রাফিক পুলিশকেও দিয়ে ন তারা। যার ফলে পুলিশ স্ট্যান্ডবাজির বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয় না। অনুরূপ ওসমানী হাসপাতাল রোডের পপুলার মেডিকেল সেন্টারের সামনেও রয়েছে তাদের বসানো পৃথক একটি সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ড। এখানে একজন ম্যানেজার রেখে কাদির ও রফিক সিএনজি প্রতি টাকা আদায় করে থাকে। এই দুই স্থানে সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ড থাকার কারণে রোগীবাহী গাড়ি চলাচলে ও গাড়ি থামাতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হয়। এমনটি স্ট্যান্ডবাজরা রোগীবাহী গাড়ি থামাতে ও রোগী ওঠানামা করতে বাঁধা সৃষ্টি করে।
অন্যদিকে ওসমানী হাসপাতাল রোডে গড়ে ওঠা বেসরকারী হাসপাতাল ক্লিনিক ও ঢায়োগনিস্টিক সেন্টারগুলো এবং বিশেষ করে পপুলার মেডিকেল সেন্টার, আল-রাইয়ান হসপিটাল, ল্যাব এইড, মেডি এইড, ই.এন.টি হাসপাতাল, মেডি এইড ডায়াগনস্টিক, জালালাবাদ ক্লিনিক, পানসী বাজার, আই ফাউন্ডেশনকে যানজটের জন্য দায়ী করছেন এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীরা। বেসরকারী ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো তাদের নিজ স্বার্থে রাস্তায় যানযট সৃষ্টি করছে।
এসব প্রতিষ্ঠানে আসা গাড়ি গুলোর অবৈধ পার্কিংয়ের কারনে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোর ডাক্তার ও স্টাফদের বহুতল বাণিজ্যিক ভবন থাকলেও তাদের নিজস্ব কোনো পার্কিং ব্যবস্থা নেই। ডাক্তার বহনকারী গাড়ি অথবা রোগীবাহী গাড়ি ইচ্ছামতো মেইন রোডে পার্কিং করে।
যার ফলে ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ডাক্তার দেখানো ও রোগীর সাথে বহনকারী যানবাহনগুলো যানজটের সৃষ্টি করে থাকে।
এব্যাপরে ওসমানী হাসপাতালের ইমার্জেসী গেইটের সামনের স্ট্যান্ড সভাপতি আব্দুল কাদির বলেন- আমাদের এখানে যে স্ট্যান্ড আছে এটা সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন কামরানের আমল থেকে মেয়রের অনুমোদনে চলঠেছ তবে পপুলারের সামনের স্ট্যান্ডের কোন অনুমোদন নেই।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..