তাহিরপুরে বৌলাই নদীতে অপরিকল্পীত ড্রেজিংয়ে পরিবেশ হুমকির মূখে

প্রকাশিত: 8:05 PM, December 9, 2019

তাহিরপুরে বৌলাই নদীতে অপরিকল্পীত ড্রেজিংয়ে পরিবেশ হুমকির মূখে

Sharing is caring!

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বৌলাই নদী থেকে অপরিকল্পীত ভাবে বালু উত্তোলন করায় পরিবেশ হুমকির মূখে পড়েছে। অন্যদিকে নীচু জায়গা বরাট মাটি ও বালু বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অটিবিএল কোম্পানীর দায়িত্বপ্রাপ্ত্য চিফ ইঞ্জিনিয়ার মাহতাব উদ্দিন ও স্থানীয় শক্তিশালী বালু খেখুচক্র।

স্থানীয় এলাকাবাসী অভিযোগ করে জানান,সরকারী ভাবে ড্রেজার নদী খননের মাটি ও বালি বিনা মূল্যে মসজিদ,মন্দির,সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্টান,নীচু জায়গা,গর্ত ভরাট করার কথা থাকলেও টাকা ছাড়া কোন জায়গায় ভরাট করছে না অটিবিএল কোম্পানীর মাহতাব উদ্দিন। তিনি স্থানীয় শক্তিশালী বালুখেখু চক্রের সাথে আতাত করে নদীতে খননের উত্তোলিত বালু ও মাটি কৌশলে বালুখেকু চক্রের মাধ্যমে দীর্ঘ দিন ধরেই উপজেলার দক্ষিনকুল,হোসেনপুর,সীমানা,মাহতাবপুর,পিরুজপুর,সীমানা,চিসকা গ্রামের নীচু ও খালি জায়গায় প্রতি শতাংশে ২০হাজার টাকা দিয়ে ভড়াট করেছে। না দিলে মাটি বরাট কাজ হয় না। এখন বালু বরাটের কাজ করছে রসূলপুর ও চিসকা গ্রামে। সেখানে একেই অবস্থা। জায়গা ভরাট করার কথা বলে বালু মজুদ করছে কৌশলে আর কামিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। আর পেশী শক্তি ও প্রশাসন ম্যানেজ করছেও তারাই। বাধা দিলেই নানান ভাবে হয়রানী করা হয় বলে এলাকায় অভিযোগ রয়েছে। ফলে প্রশাসনের নিরব ভূমিকার নিয়ে এলাকা জুড়ে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

অবৈধ ভাবে বালু বিক্রি করে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়টি প্রকাশ করবে তার মাটি বরাট বন্ধ ও নানান ভাবে হয়রানীর শিকার হবার আশংকায় কেউ মুখ খুলতে নারাজ। এর পূর্বেও তাহিরপুর থানার সামনে থেকে জামালগড় পর্যন্ত নদী খননে একেই পথ অবলম্বন করে অটিবিএল কোম্পানীর প্রতিনিধি রাজু। রাজু এখান থেকে চলে যাওয়ার পরও থেমেনেই অটিবিএল কোম্পানীর দায়িত্বপ্রাপ্ত্য মাহতাব উদ্দিন টাকা হাতিয়ে নেওয়ার কার্যক্রম।

শফিক,বাচ্ছু,শামসু মিয়াসহ অনেকেই জানান,আমরা চাই সরকারি বরাদ্দের টাকা যাতে যথাযথভাবে জনকল্যাণে ব্যয় হয়। নদী খননের উদ্যোগ নেওয়ায় আমরা খুশি হয়েছিলাম। কিন্তু বাস্তবে দেখছি নদীতে কাজ শুরু করেছে টাকার বিনিময়ে নিজের মত করে। এতে খনন কাজের সততা নিয়ে এলাকাবাসীর মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

আব্দুন নূর মিয়াসহ শত-শত লোকজন বলেন,যখনই স্থানীয় দালালের মাধ্যমে টাকার বিনিময়ে কোন ব্যক্তি মালিকানাধীন জায়গা মাটি ভরাট করে দেয় অটিবিএল কোম্পানীর প্রতিনিধি মাহতাব উদ্দিন টাকার বিনিময়ে বালু ও মাটি দিয়ে গর্ত ও নিচু জমি বরাট করছে বালু খেকু চক্রের সহযোগীতায়। গরীব,অসহায়,হতদরিদ্র আমরা তাদের বিরোদ্ধে কিছু বলার মত সাহস পাই না।

নদী সরকারী ড্রেজার কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত্য অটিবিএল কোম্পানীর দায়িত্বপ্রাপ্ত্য চিফ ইঞ্জিনিয়ার মাহতাব উদ্দিন,আমি কোন অনিয়মের সাথে জরিত নই।
এবিষয়ে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যার্নাজি বলেন,এই বিষয়ে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

December 2019
S S M T W T F
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  

সর্বশেষ খবর

………………………..