সিলেটে কৌশলী ছিনতাইকারীরা হত্যাকান্ডসহ বাড়ছে অপরাধ

প্রকাশিত: ৩:০৬ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০১৮

সিলেটে কৌশলী ছিনতাইকারীরা হত্যাকান্ডসহ বাড়ছে অপরাধ

Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার :: ছিনতাইয়ের ঘটনা যেন দিন দিন বেড়েই চলছে। প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে কোনো না কোনো ভাবে ছিনতাইয়ের মতো অপরাধ। সিলেটে বিভিন্ন সময়ে ছিনতাই ঘটনার পাশাপাশি ঘটেছে নৃশংস হত্যাকান্ডও। বিভিন্ন এলাকায় বেপরোয়া ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে অনেকেই নিঃস্ব হচ্ছেন। ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে কেউ কেউ প্রাণও দিচ্ছেন। নগরীর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নিয়মিত পুলিশী টহল না থাকায় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগতরা সিলেট নগরীতে এসে বিপাকে পড়েন। দীর্ঘ দিন থেকে সিলেটে আলোচিত সকল ঘটনার সাথে রয়েছে একাধিক ছিনতাইয়ের ঘটনা। গত বছর ছিনতাইয়ের শিকার হয়ে প্রাণ হারান প্রবাসী আসাদুজ্জামান রিপন। অবশ্য পরে একটি ভিডিও ফুটেজ দেখে জড়িত তিন ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

শুধু রিপনই নন, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দিনে বা রাতে সিলেটে আসা যাত্রীরা ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছেন। সর্বস্ব হারানো যাত্রীরা মামলায় জড়ানোর ভয়ে পুলিশের কাছেও অভিযোগ করতে চান না। এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে ছিনতাইয়ে জড়িতদের তালিকা তৈরী করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা উচিত।

ছিনতাইকারীরা বিভিন্ন সময়ে ছিনতাইয়ের ধরন ভিন্ন ধরনের করে থাকে। যাত্রী বেশে ছিনতাই যেন এখন দিন দিন বেড়েই চলছে। দিন-দুপুরে যাত্রীবেশে অভিনব পন্থায় করছে ছিনতাই। কয়েকদিন আগেই ছিনতাইয়ের শিকার হয়ে মধ্যরাতে দক্ষিণ সুরমার কদমতলী এলাকায় প্রাণ হারান শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মাহিদ আল সালাম। ছিনতাইকারীরা তাকে ছুরিকাঘাত করেছিল। এ ঘটনায় দুই ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে একজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন।

নগরীর বন্দরবাজার করিমউল্লাহ মার্কেটের সামনে থেকে মেজরটিলায় যাওয়ার জন্য সিএনজি অটোরিকশায় ওঠেন মেজরটিলা ইসলামাবাদের বাসিন্দা জাহিদ আরমান। অটোরিকশায় আগে থেকেই বসা ছিলেন চার যাত্রী। আরমান ওঠার পরই অটোরিকশা ছেড়ে দেন চালক। টিলাগড় পার হওয়ার পর পেছনের সিটে পাশে বসা একযাত্রী ছোরা ধরেন আরমানের কোমরে। আরেক যাত্রী পকেট থেকে হাতিয়ে নেয় মানিব্যাগ ও মোবাইল ফোন সেট। এরপর আরমানকে রাস্তায় নামিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায় চালক ও যাত্রীবেশী ছিনতাইকারীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শুধু বন্দরবাজার-মেজরটিলা সড়কই নয়, টিলাগড়-আম্বরখানা, মদিনা মার্কেট-কোর্ট পয়েন্ট, কোর্ট পয়েন্ট-টার্মিনালসহ বিভিন্ন সড়কে যাত্রীবেশী ছিনতাইকারীরা ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠেছে। অটোরিকশায় প্রতিদিনই ছিনতাইয়ের শিকার হচ্ছেন সাধারণ যাত্রীরা।

গোয়েন্দা সূত্র জানায়, ছিনতাইকারীরা নিত্যনতুন উপায়ে ছিনতাই কাজ চালাচ্ছে। এক্ষেত্রে সংঘবদ্ধ একটি ছিনতাইকারী চক্র সিলেটজুড়ে তৎপর রয়েছে। তারা বাস, সিএনজি অটোরিকশা, লেগুনায় যাত্রীবেশে ওঠে কৌশলে ছিনতাই করে সটকে পড়ে। বিশেষ করে সিএনজি অটোরিকশাকেই ছিনতাই কাজে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হচ্ছে। কতিপয় সিএনজি অটোরিকশাচালক ছিনতাইকারীদের সহযোগি হিসেবে কাজ করেন। যেসব যাত্রী একা, তাদেরকেই টার্গেট করে ছিনতাইকারীরা। চলার পথে নির্জন স্থানে অস্ত্র ধরে হাতিয়ে নেয়া হয় যাত্রীর সবকিছু। এছাড়া অনেক সময় যাত্রীর কাছ থেকে ভাংতি টাকা নেয়ার অজুহাতে তার মানিব্যাগ বের করায় ছিনতাইকারীরা। যাত্রী যখন পকেটে মানিব্যাগ রাখতে যান, তখন কৌশলে সেটি হাতিয়ে নেয় ছিনতাইকারীরা। চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে এরকম অন্তত এক ডজন ঘটনা ঘটেছে। এ সব অপরাধে জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে ব্যর্থ হচ্ছে পুলিশ।

এদিকে, ছিনতাইকারীদের নিত্যনতুন এমন কৌশল নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে সিলেট মহানগর পুলিশ। ছদ্মবেশী ছিনতাইকারীদের হাত থেকে রক্ষা পেতে মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের সুপারিশ দিয়ে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। বিশেষ করে অটোরিকশায় অপরিচিত যাত্রী থাকলে না ওঠা, জনসমাগম কম এমন স্থান এড়িয়ে চলা, অটোরিকশায় ওঠার সময় সেটির রেজিস্ট্রেশন নাম্বার লিখে রাখা বা এসএমএসের মাধ্যমে স্বজনদের কাছে পাঠিয়ে রাখাসহ বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন হিসেবে ১৩টি বিষয়কে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (গণমাধ্যম) আবদুল ওয়াহাব জানান, ছিনতাইরোধে পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে। ছিনতাইয়ে জড়িতদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। ছিনতাইকারীদের রুখতে সকলকে আরো সচেতন হওয়ার কথাও বলেন তিনি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares