সুনামগঞ্জে ট্রিপল মার্ডারের পলাতক আসামী উজ্জলের হামলায় সাংবাদিক সহ আহত ১০

প্রকাশিত: 1:34 AM, January 23, 2018

নিজস্ব প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের দিরাই পৌরসভার মেয়রপুত্রের হামলায় সাংবাদিক সহ কমপক্ষ্যে ১০ জন আহত হয়েছেন। মেয়র পুত্র ট্রপল মার্ডারের আসামী উজ্জল বাহিনীর রবিবার রাতের হামলার ঘটনায় পুলিশী নিরব ভুমিকায় গোটা পৌল শহরে থাকা সাধারন লোকজননের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।’

দিরাই পৌর শহরের একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, জেলার দিরাই পৌর শহরে রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে করিমপুর ইউনিয়নের সাকিতপুর গ্রামের লন্ডন প্রবাসী জাবেদ সরদার মোটর সাইকেলযোগে বাড়ী ফেরার পথে স্থানীয় সেন মার্কেটের সামনে মেয়র পুত্র ট্রিপল মার্ডারের পলাতক আসামী উজ্জলের প্রাইভেট বাহিনী খ্যাত একটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্রের ছিনতাই ও আক্রমণের শিকার হন।’

হামলায় প্রবাসী জাভেদ মিয়া তার ভাগ্নে জামিল আহমেদ, ব্যবসায়ী হেলাল ও মাহবুব মিয়া আহত হন। ওই সময় উপস্থিত জনতা ছিনতাইকারীদেরকে ধাওয়া করলে তারা বাজারের দিকে পালিয়ে যায়।’

এ ঘটনার প্রায় ঘন্টাখানেক পর মেয়রপুত্র ছাত্রলীগ নামধারী উজ্জল মিয়ার নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ হয়ে ফের ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা দিরাই বাজারস্থ মেয়রের বরফ কল থেকে অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ধাওয়াকারী ব্যবসায়ীদের উপর পাল্টা হামলার প্রস্তুতি নেয়।
খবর পেয়ে পেশাগত দায়িত্বপালন করতে গেলে স্থানীয় সাংবাদিক ইমরান হোসাইনের উপর হামলা চালায় ছিনতাইকারীরা। ছিনতাইকারীদের রডের আঘাতে তিনি গুরুতর আহত হলে রাতেই দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাকে ভর্তি করা হয়। ছিনতাইকারীদের হাত থেকে সাংবাদিককে বাচাঁতে এসে তাদের রডের আঘাতে আহত হন পথচারী শহিদুল মিয়া, দিরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল হক মিয়া। অভিযোগ উঠেছে দফায় দফায় মেয়রপত্র ও তার লালিত প্রাইভেট বাহিনী হামলা ছিনতাইয়ের মত ঘটনা ঘটালেও ঘটনাস্থলের ৫০গজ দূরে দাড়িয়ে নিরব দর্শর্কের ভ’মিকা পালন করে দিরাই থানা পুলিশ।’

উপজেলা যুবলীগ নেতা মারফত মিয়া সোমবার রাতে বলেন, , এটি কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়, এদের নিয়ন্ত্রনেই দিরাইয়ে সকল অপরাধ কর্মকান্ড পরিচালিত হয়। ট্রিপল মার্ডার, কৃষক নির্যাতন, মাদক ও অবৈধ অস্ত্র ব্যবসাসহ অনেক অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে থাকলেও তারা পুলিশের সামনে এরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এদের হামলায় কিছুদিন আগে আহত হওয়া কুষক ফয়েজ উদ্দিন জানান, সরকারী চাল বিতরণের অনিয়মের প্রতিবাদ করায় প্রকাশ্য বাজারে আমাকে ধরে নিয়ে গিয়ে পা ভেঙ্গে দেয় মেয়র পুত্র উজ্জলের নেতৃত্বাধীন সন্ত্রাসী বাহিনী। কিন্ত থানায় মামলা করলেও পুলিশ নিরব ভুমিকাই পালন করে যাচ্ছেন। যে কারনে তারা একের পর এক অপরাধ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে নির্ব্রিগ্নে।

এদিকে বাজারের ব্যবসায়ীসহ স্থানীয়রা জানান, এই বাহিনী বিভিন্ন সময়ে বাজারে নানা অপকর্ম ও তান্ডব চালায়,প্রতিবাদ করলে নিজেদের আড়াল করতে গ্রামভিত্তিক সংঘর্ষের ঘটনায় জড়ানোর অপতৎপরতা চালায় মেয়রপুত্র উজ্জল।
জানান দিরাই প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ। গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় প্রেসক্লাব কার্যালয়ে এক জরুরী সভায় এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

দিরাই প্রেসক্লাব সভাপতি হাবিবুর রহমান তালুকদার জানান, এ ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার প্রেসক্লাবের উদ্যোগে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করা হবে। তিনি আরো বলেন, এসব ঘটনার পুর্বেও দিরাই বাজারে প্রকাশ্যে তান্ডব চালিয়ে মেয়রপুত্র উজ্জল ও তার বাহিনীর হামলায় রক্তাক্ত আহত করে কৃষক ফয়েজ মিয়াকে, ফের রবিবার দিবাগত রাতের ঘটনায় পৌরসভার মেয়র মোশাররফ মিয়ার পুত্র ছাত্রলীগ নামধারী ট্রিপল মার্ডার মামলার আলোচিত ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী উজ্জল বাহিনীর তান্ডবে পৌর বাসী ভীতসন্ত্রস্থ হয়ে পড়েছেন।’

অভিযোগ প্রসঙ্গে দিরাই পৌর মেয়র মোশাররফ ও তার পুত্র উজ্জলের মুঠোফোনে সোমবার সন্ধা থেকে কয়েক দফা কল করা হলেও পিতা-পুত্রের ফোন বন্ধ থাকায় তাদেওরবক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে দিরাই থানার ওসি মোস্তফা কামাল সোমবার রাতে বলেন,জানান, ঘটনাটি জানতে পেরিছে কিন্তু এখনও অভিযোগ পাইনি বলে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারিনি।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..