জৈন্তাপুরে পাচার হওয়া বই উদ্ধার : তদন্ত কমিটি গঠন

প্রকাশিত: ৮:০০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩, ২০১৮

Sharing is caring!

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি :: জৈন্তাপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে কৌশলে পাঁচার হওয়া নতুন বছরের ৩শ সেট বইয়ের মধ্যে ৪০সেট বই উদ্ধার করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অফিস। এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (০২ জানুয়ারী) উপজেলা চারিকাটা ইউনিয়নের আমতলা আইডিয়াল স্কুল হতে জৈন্তাপুর প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকে কৌশলে পাঁচার করা সরকারি ৩শ সেট বই আটক স্থানীয় সচেতন মহল। পরে জৈন্তাপুর প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা খরব দেয়।

সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষনিক ভাবে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: আব্দুল জলিল তালুকদার ও সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ মিফতাউজ্জামানের নেতৃত্বে স্কুল থেকে ৪০ সেট বই উদ্ধার করেন। এছাড়া কিছু সেট বই ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বিতরণ করা হলেও বাকী বইগুলো অন্যত্র পাঁচার করা হয় বলে এলাকাবাসী জানান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ মিফতাউজ্জামান বলেন, আমরা ৪০সেট বই আমতলা আইডিয়াল স্কুল থেকে উদ্ধার করেছি। বাকী বই ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। ওই বিদ্যালয়ের পরিচালক আবু সাঈদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে বই কোথায় হতে পেয়েছে তা আমাদের নিকট বলেনি। তবে তিনি বই তার শিক্ষা অফিস থেকে পাঁচার হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন। তবে কি পরিমান বই পাঁচার হয়েছে তিনি জানাতে পারেননি।

অন্য প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের অফিসের চাবি যার নিকট রক্ষিত আছে সেই এই ঘটনার সাথে জড়িত রয়েছে বলে প্রাথমিক ধারনা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌরীন করিম বলেন, ঘটনার সংবাদ পাওয়ার পর আমি শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট জবাব চেয়েছি। এছাড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ সোলায়মান হোসেনকে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন লিখিতভাবে দাখিলের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares