বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় মেয়র প্রার্থী মুহিবুর রহমান

প্রকাশিত: ৩:৫৩ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২২

বিশ্বনাথে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় মেয়র প্রার্থী মুহিবুর রহমান
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : সিলেটের বিশ্বনাথে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন আগামী ২রা নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ‘বিশ্বনাথ পৌরসভা’র প্রথম নির্বাচনের স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ও উপজেলা পরিষদের দুই বারের চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান। রোববার বিকেল আড়াইটার দিকে মুহিবুর রহমানের ‘জগ’ মার্কার প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে মতবিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় ‘জগ’ প্রতীকের স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মুহিবুর রহমান বলেন, পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডেই ‘জগ’ মার্কার গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। পৌর এলাকার মোট ভোটারের প্রায় ৮০% ভোটার আমার নির্বাচনী প্রতীক ‘জগ’র সমর্থক, বাকী ২০% নিয়ে অন্যান্য প্রার্থীদের। তাই ‘জগ’ মার্কার বিজয় নিশ্চিত দেখে আমার বিজয় ছিনিয়ে নেওয়ার পায়তারা চলছেন।
আমি জাতির বিবেক সাংবাদিকদের মাধ্যমে নির্বাচনের পূর্বেই সরকারসহ প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করতেই আজকের ওই মতবিনিময়। যদিও প্রশাসনের উপর আমার শতভাগ আস্তা রয়েছে, তারপরও একটি ‘কিন্তু’ থেকে যায়। এজন্য সবাইকে সচেতন করা।
তিনি আরো বলেন, সরকার ইভিএম’র মাধ্যমে নির্বাচনকে সর্বমহলে গ্রহনযোগ্য করে তুলতেই বিশ্বনাথ পৌরসভা নির্বাচনে ইভিএমের মাধ্যমে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমি ওই উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। কিন্তু একটি মহল ইভিএম পদ্ধতিকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনে ইঞ্জিনিয়ারিং করতে পায়তারা করছে।
আর স্থানীয় নির্বাচনে ইঞ্জিনিয়ারিং পদ্ধতি শুরু হলে জাতীয় নির্বাচনে ইভিএমের প্রতি মানুষের আস্তা উঠে যাবে। তাই আমি সরকারসহ সর্বমহলের নেতৃবৃন্দের কাছে জোরদাবী করছি প্রথম বিশ্বনাথ পৌরসভা নির্বাচনটি যেনো অবাদ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ হয়, সেই ব্যবস্থা করার।
লন্ডন থেকে এসে  হুমরা-তুমরা মার্কা নেতা বিশ্বনাথ-ওসমানীনগরে অবৈধভাবে ক্ষমতা কাটানো নেতাকে এবার প্রতিরোদ করবেন জনগণ।
তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমি লিখিতভাবে ‘আমার বিজয় ছিনিয়ে নেওয়ার পায়তারা’র বিষয়টি সরকার বিভিন্নমহলকে অবহিত করেছি। মেয়র প্রার্থীর পাশাপাশি অনেক কাউন্সিলর প্রার্থীও নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে কালো টাকা বিলিয়ে দিতে শুরু করেছেন। এগুলো বন্ধ করতে প্রশাসনকে জোরালো ভ‚মিকা পালন করতে হবে। ভোট কেন্দ্র নির্ধারনের ক্ষেত্রেও চরম বৈষম্য করেছে উপজেলা নির্বাচন অফিস।
যা কখনও উচিত নয়। নির্বাচনে কারো নগ্ন হস্তক্ষেপ মেনে নেবেন না পৌরবাসী, এজন্য বিজয় ছিনিয়ে নেওয়ার অবৈধপন্থা থেকে সবাই সরে গেলেই ভাল। জনগণ ভোট দিয়ে যাকে ইচ্ছে তাকে নির্বাচিত করুণ, সবাইকে তা মেনে নিতে হবে।
মতবিনিময় সভায় এসময় উপস্থিত ছিলেন ‘জগ’ মার্কার সমর্থক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইন্তাজ আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ফারুক আহমদ, যুক্তরাজ্য প্রাবাসী সফজ্জুল আহমদ, বিশ্বনাথ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মেম্বার আব্দুস শহিদ, এলাকার প্রবীন মুরব্বী হাজী তোরাব আলী, রশিদ আলী, আব্দুল কাদির, হাজী নূরুল হক, আজিজুর রহমান, হাজী ইন্তাজ আলী, সংগঠক আলকাছ আলী, শেখ হেলাল উদ্দিন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..