বিশ্বনাথে যুবলীগ নেতা সুইটের উপর হামলা: আটক ২

প্রকাশিত: ১২:৪০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২২

বিশ্বনাথে যুবলীগ নেতা সুইটের উপর হামলা: আটক ২
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন বিশ্বনাথ উপজেলা যুবলীগ নেতা মুহিবুর রহমান সুইট। শুক্রবার (১৬ সেপ্টম্বর) রাত ১০:১৫ মিনিটের সময় বিশ্বনাথ পৌর শহরের রামপাশা রোডস্থ আরামবাগ আবাসিক এলাকার গেইটের সামনে এই ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় মুহিবুর রহমান সুইটকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এঘটনায় বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক কদর উদ্দিন ও তার পুত্র ছাত্রদল নেতা ইমনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।
বিশ্বনাথ পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক রফিক আলী জানান, রাত ১০টার দিকে যুবলীগ নেতা মুহিবুর রহমান সুইট বিশ্বনাথ নতুন বাজাস্থ তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান (আপন ফাসের্মী) বন্ধ করে ছোটভাই মাহফুজুর রহমান সুয়েব-কে সাথে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে বাসায় ফিরছিলেন। তারা পৌর শহরের রামপাশা রোডস্থ আরামবাগ আবাসিক এলাকার গেইটের সামনে পৌছামাত্র পিছন দিক থেকে একটি হলুদ কালারে মোটরসাইকেলে ২জন অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসী তাদেরকে ওভারটেক করে।
তখন ওই  মোটরসাইকেলে আরোহী ১জনের মাথায় হেলমেট ও অপরজনের মুখে মাস্ক পড়া ছিলো। মোটরসাইকেলটি ওভারটেক করার সাথে সাথে মাস্ক পড়া লোকটি ধারালো অস্ত্র দিয়ে মুহিবুর রহমান সুইটের মাথা লক্ষ্য করে কোপটি তার মুখের বাম পাশে পড়ে গুরুতর জখম হয়। এতে প্রাণে বেঁচে যান মুহিব।
পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক রফিক আলী জানান, বিশ্বনাথ উপজেলায় হলুদ কালারের মোটরসাইকেল নেই বললেই চলে। আর এই কালারের একটি মোটরসাইকেল রয়েছে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক কদর উদ্দিনের পুত্র ছাত্রদল নেতা ইমনের। তাই ঘটনার পর রাত ১১টার দিকে ছাত্রদল নেতা ইমনকে মুঠোফোনে কল দেন মুহিবুর রহমান সুইটের রাজনৈতিক সহকর্মী যুবলীগ নেতা রাজু আহমদ।
এসময় ইমনের কাছে রাজু জানতে চান তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি তার কাছে ছিলো কি না। প্রতিউত্তরে ইমন জানান গাড়িটি তার বাবা কদর উদ্দিনের কাছে রয়েছে। রাজু তখন ইমনকে বলেন ‘ভাগনা তুমি তুমার বাবার কাছে জিজ্ঞেস করো আজকে তুমার গাড়িটি অন্য কোন লোক নিয়েছে কি না’। রাজু-ইমনের ফোনালাপের কিছুক্ষণ পর ইমনের ফোন থেকে রাজুকে কল করে কদর উদ্দিন।
তখন রাজুকে অকথ্য ভাষায় গালি দিয়ে কদর একাধিকবার বলেন, ‘মুহিবকে আমি মেরেছি। কারো ক্ষমতা আছে আমাকে কিছু করার। যদি ক্ষমতা থাকে তাহলে আসো আমি রিফাতের সামনের আছি’। কিছুক্ষণ পরই রাজুসহ ছাত্রলীগ-যুবলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী রিফাতের সামনে পৌছলে তখন তাদরেকে দেখে মোটরসাইকেলে করে বিএনপি নেতা কদর উদ্দিন ও তার পুত্র ছাত্রদল নেতা ইমন সেখান থেকে চলে যেতে চাইলে তাদেরকে ধাওয়া করেন ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতাকর্মীরা।
একর্যায়ে বিশ্বনাথ পৌর শহরের পুরান বাজারস্থ জগন্নাথপুর রোডে কদর ও ইমনকে ঝাপটে ধরে মারধরেন উত্তেজিত ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতাকর্মীরা। তাৎক্ষণিকভাবে কদর ও ইমনকে পুলিশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।
বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, কদর ও ইমনকে আটক করা হয়েছে। হামলার ঘটনাটি অধিক গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

September 2022
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930

সর্বশেষ খবর

………………………..