সিলেটে কেয়ার টেকারের স্ত্রী ধর্ষণ : লম্পট ইংল্যান্ড প্রবাসী শ্রীঘরে

প্রকাশিত: 9:00 PM, May 25, 2022

সিলেটে কেয়ার টেকারের স্ত্রী ধর্ষণ : লম্পট ইংল্যান্ড প্রবাসী শ্রীঘরে

Sharing is caring!

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটে কেয়ারটেকারের স্ত্রী ধর্ষনের দায়ে এক ইংল্যান্ড প্রবাসী শ্রীঘরে রয়েছেন। গ্রেফতারের পর তিনি তিনদিনের পুলিশ রিমান্ডেও ছিলেন। এ ঘটনায় ওই প্রবাসীর স্ত্রী আরেক প্রবাসী মহিলাও পলাতক রয়েছেন। গত ২২ মে নগরীর মিরবক্সটুলা আজাদী-১ থেকে ওই প্রবাসীকে গ্রেফতার করা হয়।
সিলেটে কোতোয়ালি মডেল থানায় দায়ের করা মামলা {নং-৪৯(৫)২২} সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের জকিগঞ্জ উজেলার পইল গ্রামের জালাল উদ্দিনের পুত্র ইংল্যান্ড প্রবাসী আব্দুল মুনিম। সস্ত্রীক সিলেট নগরের মিরবক্সটুলা আজাদী-১ নিজ বাসায় থকতেন। আজ থেকে প্রায় ১০ বছর আগে জনৈক আব্দুল মালেককে তার বাসার কেয়ারটেকার নিযুক্ত করেন। কেয়ারটেকার আব্দুল মালেক স্ত্রীসহ ওই বাসায় থাকতেন। বাসায় অবস্থানকালে কেয়ারটেকার দম্পতির এক মেয়ে সন্তানও জন্মগ্রহণ করে।
এদিকে ইংল্যান্ড প্রবাসীর স্ত্রী মুসলেহা খানম ডায়াবেটিক রোগী হওয়ায় স্বামীর সঙ্গসুখ দিতে সম্পূর্ণ অপারগ। তাই কেয়ারটেকারের স্ত্রীকে দিয়ে তার স্বামীর ইংল্যান্ড প্রবাসী আব্দুল মুনিমের শরীর ম্যাসেজ করাতেন। গোপনে ম্যাসেজের ফটো তুলে ইন্টারনেটে ছাড়িয়ে নেওয়ার ভয় দেখাতেন। ভয় দেখিয়ে কেয়াটেকারে স্ত্রীকে তার স্বামী প্রবাসী আব্দুল মুমিনকে সঙ্গসুখ দিতে বাধ্য করতেন। প্রবাসী আব্দুল মুনিমও এই সুযোগে কেয়ারটেকারের স্ত্রীকে অবলীলায় ধর্ষণ ও ভোগ করতে থাকেন।

এক পর্যায়ে কেয়ারটেকার আব্দুল মালেক বিষয়টি টের পেয়ে তার স্ত্রীকে তালাক দিয়ে চলে যায়। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কেয়ারটেকারের তালাকপ্রাপ্তা ওই নারীকে অবলীলায় ভোগ করতে থাকেন প্রবাসী আব্দুল মুনিম। দেশ থেকে ইংল্যান্ড গিয়েও তার সাথে ভিজুয়্যাল অশ্লীল চ্যাটিংও করতেন তার সাথে।

সম্প্রতি আব্দুল মুমিন সস্ত্রীক দেশে ফিরলে তালাকপ্রাপ্তা ওই মহিলা তার বাসায় গিয়ে বিয়ের জন্য চাপ দিলে আব্দুল মুনিম ও তার স্ত্রী তাকে ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেন।

এ ঘটনায় তালাকপ্রাপ্তা ওই মহিলা গত ২২ মে সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় গিয়ে প্রবাসী আব্দুল মুনিম ও তার স্ত্রী মুসলেহা খানমকে আসামী করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলায় পুলিশ ইংল্যান্ড প্রবাসী আব্দুল মুনিমকে গ্রেফতার করে। পরে তিনদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার তাকে ফের জেল হাজতে প্ররেন করে। মামলার অপর আসামী ইংল্যান্ড প্রবাসী মুসলেহা খানম এখনো পলাতক রয়েছেন।
সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আলী মাহমুদ মামলা ও রিমান্ডের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

May 2022
S S M T W T F
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  

সর্বশেষ খবর

………………………..