সিলেটে এখনো বিদ্যুতহীন ৫০ হাজার গ্রাহক

প্রকাশিত: ৫:৫৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০২০

সিলেটে এখনো বিদ্যুতহীন ৫০ হাজার গ্রাহক

Sharing is caring!

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটের প্রায় ৫০ হাজার গ্রাহক এখনো বিদ্যুতহীন অবস্থায় রয়েছেন। বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ড (বিউবো) সিলেট-এর একটি সূত্র জানায়, সিলেটে বিউবো’র ৫টি ডিভিশনের মধ্যে ৩টি ডিভিশনে বিদ্যুত সংযোগ চালু করা গেছে। দুটি ডিভিশনে বিদ্যুত সংযোগ চালুর চেষ্টা চলছে। ডিভিশন দুটি হচ্ছে- ৩ নম্বর ডিভিশন ও ৪ নম্বর ডিভিশন।

বিউবো’র ওই সূত্র জানায়, ৩ নম্বর ডিভিশনের আওতাধীন দক্ষিণ সুরমার বরইকান্দি থেকে মোগলাবাজার এবং সিলেট নগরীর সুবিদবাজার থেকে সদর উপজেলার লামাকাজি পর্যন্ত এলাকা।

বিউবো সূত্রের দাবি, এসব ডিভিশনের আওতাধীন শেখঘাট ও কুমারগাঁও ফিডারে এখনো বিদ্যুত সংযোগ চালু করা যায়নি। তবে, বিদ্যুত কর্মীরা সংযোগ প্রদানের প্রাণান্তকর চেষ্টা চালাচ্ছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নগরীর জল্লারপাড়, মির্জাজাঙ্গাল, দাড়িয়াপাড়া, লামাবাজার, রিকাবিবাজার, দক্ষিণ সুরমা বিভিন্ন এলাকায় এখনও বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়নি। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে নগরের উপকণ্ঠের এলাকাগুলো ও বিভিন্ন উপজেলা।

তবে নগরের বেশিরভাগ এলাকায় এরমধ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তারা। তারা বলেন, যেহেতু মেরামত কাজ এখনও শেষ হয়নি। একসাথে সব জায়গায় বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল রাখা যাচ্ছে না। আপাতত রেশনিং পদ্ধতিতে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে বিদ্যুৎ প্রদান করা হচ্ছে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন ও বিতরণ বিভাগ সিলেটের প্রধান প্রকৌশলী খন্দকার মোকাম্মেল হোসেন বলেন, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত যন্ত্রপাতি মেরামত ও পুনঃস্থাপন শেষে বুধবার সন্ধ্যা থেকে আমরা সীমিত আকারে বিদ্যুৎ সবরাহ শুরু করেছি। সিলেট ৭০ ভাগ এলাকায় বিদ্যুত সংযোগ প্রদান করা সম্ভব হয়েছে। এখনও আমাদের কর্মীরা গ্রিড লাইনে মেরামত কাজ করছেন। দুর্ঘটনার পর থেকে টানা কাজ করে যাচ্ছেন সবাই। আশা করছি আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা নাগাদ বাকি ৩০ ভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা পুরো সচল করা সম্ভব হবে।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে সিলেটের কুমারগাওয়ে বাংলাদেশ পাওয়ার গ্রিড (পিজিসিবি)-এর নিয়ন্ত্রণাধীন জাতীয় গ্রিড লাইনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনে দু’টি উচ্চ ক্ষমতার ট্রান্সফরমার, সার্কিট ব্রেকার, কন্ট্রোল প্যানেল পুড়ে যায়। এতে বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে সিলেট ও সুনামগঞ্জের প্রায় সাড়ে ৪ লাখ গ্রাহক।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

November 2020
S S M T W T F
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares