হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নানা জটিলতায় বাড়ছে দূর্ভোগ

প্রকাশিত: ২:০৫ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৪, ২০২০

হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নানা জটিলতায় বাড়ছে দূর্ভোগ

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ময়নাতদন্তের দীর্ঘ সূত্রিতায় জনদুর্ভোগ বেড়েই চলেছে। মরদেহের আত্মীয় স্বজনদের পাশাপাশি পুলিশরাও ভোগান্তিতে পড়ছেন। একদিন আগে লাশ উদ্ধার হলেও নির্দিষ্ট সময়ে চিকিৎসক না থাকায় কোনো কোনো সময় দুই ২/৩ দিন সময় অতিবাহিত হচ্ছে ময়নাতদন্ত করতে। ফলে মরদেহগুলো পঁচে যাচ্ছে।

এ নিয়ে ক্ষোভের যেনো শেষ নেই। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে শায়েস্তাগঞ্জ থানা পুলিশ এক নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ওইদিনই হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ খবর পাওয়া মাত্র হাসপাতালের বেসরকারি ডোম জিতু মিয়া ছুটে এসে সংরক্ষণ করলেও চিকিৎসক না আসায় ময়নাতদন্ত হয়নি। ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক প্রাইভেট প্র্যাকটিসে ব্যস্ত থাকায় সময় মতো ময়নাতদন্ত হয় না বলে অভিযোগ উঠেছে। পরে গতকাল শুক্রবার বিকেলে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়।

৯ উপজেলার লোকজনকে ময়নাতদন্তের জন্য একমাত্র সদর হাসপাতালে প্রতিনিয়ত ছুটে আসতে হয়। সাধারণত কোন মৃত্যুকে অস্বাভাবিক মনে করা হলে বা অভিযোগ থাকলেই পুলিশ প্রথমে সহকারী সাব-ইন্সপেক্টর হতে ক্রম মর্যাদাসম্পন্ন এমন একজনকে ঘটনাস্থলে প্রেরণ করেন। যিনি লাশ সম্পর্কে খবর সংগ্রহ করে লাশ মর্গে পাঠিয়ে দেয়। এ ছাড়া হাসপাতালে পুলিশ মামলাভুক্ত যেমন সড়ক দুর্ঘটনা, খুন, আত্মহত্যা এ জাতীয় মৃত্যুর ঘটনায় লাশের ময়নাতদন্ত করতে হয়।

দূর-দূরান্ত থেকে নিহতের আত্মীয়স্বজনকে এসময়ে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ধরনা দিয়ে বসে থাকতে হয়। দূরত্ব যতই হোক অফিস সময়ে বিকাল ৫টার মধ্যে লাশ হাসপাতালের মর্গে পৌঁছতে না পারলে পরদিন অফিস সময়ের জন্য আবার অপেক্ষা করতে হয়। অনেক সময় গ্রাম থেকে থানা, থানা থেকে জেলা সদরে হাসপাতাল মর্গে এবং অফিস সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে করতে দু’দিনও লেগে যায়। আর এ কারণে পুলিশসহ মরদেহের সাথে আসা স্বজনরা পড়েন বিপাকে ও দূর্ভোগে।

এ বিষয়ে হবিগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মানবিক কারণে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ময়নাতদন্ত করে লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা প্রয়োজন। হবিগঞ্জে দুইজন আরএমও এবং দুইজন ডাক্তার ময়ানতদন্তের জন্য সংরক্ষিত রয়েছেন। তাদের মধ্যে হচ্ছেন ডাক্তার শামীম আরা, ডাক্তার এমএ মুমিনসহ আরও দুইজন। অনেক সময় চিকিৎসার কাজে ব্যস্ত থাকায় তারা সময়মতো এ কাজটি করতে পারেন না। লাশ আসার পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ময়নাতদন্ত করে দেয়া হয় সে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

October 2020
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares