সিসিকের বৈঠকে মানা হয়নি স্বাস্থ্যবিধি: মেয়র করোনা আক্রান্ত, অনেকেই ঝুঁকিতে

প্রকাশিত: ৪:৫৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০২০

সিসিকের বৈঠকে মানা হয়নি স্বাস্থ্যবিধি: মেয়র করোনা আক্রান্ত, অনেকেই ঝুঁকিতে

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : ‘করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সবাই সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন- জনস্বার্থে মাননীয় মেয়র, সিলেট সিটি করপোরেশন।’- করোনা সংক্রমণ শুরুর পর নগরজুড়ে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর পক্ষ থেকে মাইকযোগে এমন প্রচারণা চালানো হয়।

তবে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানালেও নিজেই তা লঙ্ঘন করেছেন মেয়র আরিফ। করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষার জন্য নমুনা জমা দেওয়ার পর থেকে হোম কোয়ারেন্টিন থাকার জন্য স্বাস্থ্যবিভাগ থেকে নির্দেশনা দেওয়া হলেও তা মানেননি সিসিক মেয়র।

বৃহস্পতিবার সকালে করোনা শনাক্তের নমুনা জমা দেওয়ার পর দুপুরে তিনি একটি বেসরকারি আবাসন প্রতিষ্ঠানের আহ্বানে নগরের একটি হোটেলে মধাহ্নভোজে অংশ নেন। এরপর বিকেলে নগরভবনে উন্নয়ন সংক্রান্ত একটি সভায়ও অংশ নেন। যেখানে নগরভবনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ শতাধিক ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন। এসব অনুষ্ঠানেও স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হয়নি। বৃহস্পতিবার রাতে মেয়র ও সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমানের করোনা শনাক্তের খবর জানার পর থেকে এসব অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া ব্যক্তিরা আতঙ্কে ভুগছেন।

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী বলেন, মেয়র ও প্রধান প্রকৌশলীর করোনা শনাক্তের খবর জানার পর থেকে আমি নিজেই ভয়ে আছি। সিসিকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মধ্যে কেবল আমার বোধ হয় এখন পর্যন্ত করোনা হয়নি। কিন্তু এ অবস্থায় অফিসে যাওয়া বন্ধ করে দেওয়াও আমার পক্ষে সম্ভব হবে না। এতে নগর ভবনের কার্যক্রম ব্যাহত হবে। ফলে কি করবো বুঝতে পারছি না।

নমুনা জমা দেওয়ার পরও কোয়ারেন্টিনে না গিয়ে মেয়র ও প্রধান প্রকৌশলী বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ প্রসঙ্গে বলা আমার জন্য বিব্রতকর। সকলেই দায়িত্বশীল লোক।

এ প্রসঙ্গে সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মণ্ডল বলেন, নমুনা জমা দেওয়ার পর থেকে তো বটেই, এমনকি কারো কোনো উপসর্গ দেখা দিলেও আমরা কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা বলে আসছি। সকলেরই তা মেনে চলা উচিত। কিন্তু অনেকেই তা মানছে না। একারণে করোনার সংক্রমণও কমছে না।

জানা যায়, দুদিন আগে জ্বর ও সর্দি হওয়ার বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে নমুনা জমা দেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। একইসাথে সিসিকের প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমানও নমুনা জমা দেন। ওই রাতে আসা রিপোর্টে তাদের দুজনেরই করোনা পজিটিভ আসে।

সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা যায়, করোনা নমুনা জমা দিয়ে সিটি নগর ভবনে আসেন মেয়র ও প্রধান প্রকৌশলী। তারা নগরভবনের দৈনন্দিন কাজে অংশ নেন। এরপর দুপুরে আবাসন প্রতিষ্ঠান আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের আহ্বানে নগরের দরগাহ গেইট এলাকার একটি হোটেলে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন। এতে সিসিক ও আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাড়াও সিলেটে কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।

এরপর বিকেলে নগর ভবনে আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের ‘সিলেট নগরীর উন্নয়ন প্রকল্প’ উপস্থাপন অনুষ্ঠানে অংশ নেন মেয়র আরিফ ও প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজ।

এ অনুষ্ঠানে সিসিক কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, সচিব ফাহিমা ইয়াসমিন, নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আনম মনছুফ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. হানিফুর রহমান, আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. রমজানুল হক নিহাদ, প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ও চীফ মার্কেটিং অফিসার তানভীরুল ইসলামসহ দুই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা অংশ নেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আরিফুল হক চৌধুরীর সাথে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ। শুক্রবার তিনি বলেন, আমি জানতাম না তিনি (মেয়র) করোনা পরীক্ষার নমুনা জমা দিয়ে এসেছেন। নমুনা দিয়ে এলে তার অবশ্যই এসব অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া উচিত হয়নি। এখন আমাদের সবাইকে তিনি ঝুঁকিতে ফেলে দিলেন। দায়িত্বশীল মানুষরা যদি সচেতন না হই তাহলে সাধারণ জনগণ কিভাবে সচেতন হবে।

এ ব্যাপারে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমানের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তারা ফোন রিসিভ করেননি।

তবে আরিফুল হকের ঘনিষ্ঠ একাধিক ব্যক্তি বলেন, নমুনা জমা দেওয়ার সময় মেয়রের কোনো লক্ষণ ছিলো না। দুদিন আগে সামান্য জ্বর হয়েছিলো। পরে তা কমে যায়। ফলে রিপোর্ট নেগেটিভ আসবে বলে ধারণা করেছিলেন মেয়র। একারণে কোয়ারেন্টিনে না গিয়ে পূর্ব নির্ধারিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

তারা জানান, বর্তমানে মেয়র আরিফুল হক বাসায় আইসোলেশনে আছেন এবং সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

September 2020
S S M T W T F
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares