দেশে করোনায় মৃত্যু এক হাজার ৫৮২ জন, শনাক্ত এক লাখ ২২ হাজার ৬৬০

প্রকাশিত: ৭:০৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২০

দেশে করোনায় মৃত্যু এক হাজার ৫৮২ জন, শনাক্ত এক লাখ ২২ হাজার ৬৬০

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণে আরো ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন শনাক্ত হয়েছেন তিন হাজার ৪৬২ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৫৮২ জনের। আর সব মিলিয়ে শনাক্ত হয়েছেন এক লাখ ২২ হাজার ৬৬০ জন।

আজ বুধবার (২৪ জুন) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে সরকারি বুলেটিনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। বুলেটিন প্রকাশে অংশ নেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

ডা. নাসিমা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে দেশে আরো ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এঁরা ২৮ জন পুরুষ এবং ৯ জন নারী। এঁদের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে একজন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৯ জন এবং ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে আটজন। এ নিয়ে দেশে করোনায় এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৫৮২ জনের।

জানানো হয়, নতুন যে ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে তাঁরা ঢাকা বিভাগের ১০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৯ জন, রাজশাহী বিভাগের ছয়জন, খুলনা বিভাগে সাতজন, বরিশাল বিভাগের একজন, ময়মনসিংহ বিভাগের তিনজন এবং রংপুর বিভাগের একজন। হাসপাতালে মারা গেছেন ৩৪ জন এবং বাসায় তিনজন।

এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৩১ জন। এ নিয়ে দেশের করোনা সংক্রমণ থেকে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৯ হাজার ৬৬৬ জন।

ডা. নাসিমা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৭ হাজার ২৪৫টি। একই সময় পূর্বের নমুনাসহ পরীক্ষা হয়েছে ১৬ হাজার ৪৩৩টি। এর মধ্যে করোনা রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে তিন হাজার ৪৬২ জনকে। এ নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন এক লাখ ২২ হাজার ৬৬০ জন। আর এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ছয় লাখ ৬০ হাজার ৪৪৪টি।

ব্রিফিংয়ের শুরুতেই জানানো হয়, করোনা সন্দেহে নমুনা পরীক্ষায় আরো একটি ল্যাব সংযোজিত হয়েছে। এটি হলো ঢাকার বাইরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবস্থিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। এ নিয়ে বর্তমানে ঢাকাসহ সারা দেশে মোট ল্যাবের সংখ্যা দাঁড়াল ৬৬টিতে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের এই ৬৬টি ল্যাবে পরীক্ষা হয়েছে।

আইসোলেশন প্রসঙ্গে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে আরো ৭৪৯ জনকে। একইসময় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫১৮ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে গেছেন ২১ হাজার ৮৬১ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন আট হাজার ৭০৩ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৩ হাজার ১৫৮ জন।

কোয়ারেন্টিন প্রসঙ্গেও তথ্য দেওয়া হয় বুলেটিনে। বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় হোম এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে এসেছেন দুই হাজার ৬৩১ জন। একইসময় কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড় পেয়েছেন দুই হাজার ৮১৭ জন। আর এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে গেছেন মোট তিন লাখ ৪৭ হাজার ২৯১ জন। আর এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড় পেয়েছেন দুই লাখ ৮৩ হাজার ৩৩১ জন। ছাড়ের পর বর্তমানে হোম এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন ৬৩ হাজার ৯৬০ জন।

সারা দেশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য প্রস্তুত ৬২৯টি প্রতিষ্ঠান। এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে ৩১ হাজার ৯৯১ জনকে সেবা প্রদান যায় বলে জানানো হয় বুলেটিনে।

বুলেটিনে আরো জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের স্বাস্থ্য বাতায়ন এবং আইইডিসিআর’র হটলাইনে কল এসেছে এক লাখ ৭২ হাজার ৪৪৫টি। এ নিয়ে এ পর্যন্ত হটলাইনে এক কোটি ২৯ লাখ ৪২ হাজার ৪৫৬ জনকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এসব কলে সবাইকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎসকের সংখ্যা বেড়েছে আরো পাঁচজন। এ নিয়ে এখন মোট প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎসকের সংখ্যা দাঁড়াল ১৬ হাজার ৩৯৫ জনে। এ ছাড়া বর্তমানে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে হটলাইনে চার হাজার ২১৭ জন চিকিৎসক স্বাস্থ্য পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন বলে জানানো হয় বুলেটিনে।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares