সিলেট নগরী থেকে গ্রামের বাড়িতে যেতে নিষেধাজ্ঞা : বাড়তি নজরদারি

প্রকাশিত: ৩:২৫ অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০২০

সিলেট নগরী থেকে গ্রামের বাড়িতে যেতে নিষেধাজ্ঞা : বাড়তি নজরদারি

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক :: শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে রোববার অথবা সোমবার অনুষ্ঠিত হবে মুসলিম উম্মাহের সবচেয়ে বড় দুই ধর্মীয় উৎসবের একটি- পবিত্র ঈদুল ফিতর। তবে করোনা পরিস্থিতিতে খুশির আমেজ নেই সিলেটসহ সারা দেশের মানুষের মাঝে।পাশাপাশি শহরের মানুষের এই নিরানন্দকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে ঈদে গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার নিষেধাজ্ঞা। আসন্ন ঈদুল ফিতরে গ্রামের বাড়ি যেতে পারবেন না সিলেটসহ অন্যান্য শহরের বাসিন্দারা। ঢাকা-সিলেট রোডের দক্ষিণ সুরমার ওতিরবাড়ি, জকিগঞ্জ-সিলেট রোডের শ্রীরামপুর, জাফংল রোডের বটেশ্বর, সুনামগঞ্জ রোডের তেমুখী এবং এয়ারপোর্ট ও ফেঞ্চুগঞ্জ রোডে চেকপোস্ট বসিয়ে এ বিষয়ে বিশেষ নজরদারি করা হচ্ছে।

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে জনগণকে গ্রামের বাড়িতে না যাওয়ার নির্দেশনা প্রদান করেছে সরকার। গত ৪ মে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন সমন্বয় অধিশাখা থেকে এ নির্দেশনা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. ছাইফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘আসন্ন ঈদের ছুটিতে জনগণকে নিজ নিজ স্থানে থাকতে হবে এবং আন্ত:জেলা/উপজেলা/বাড়িতে যাওয়ার ভ্রমণ থেকে নিবৃত্ত করতে হবে’।

সেই নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৭ মে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ‘ঈদ উপলক্ষে ও সরকার ঘোষিত বর্ধিত ছুটি উদযাপনের জন্য অনেকেই গ্রামের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হচ্ছেন। এটি কোনোভাবেই হতে দেয়া যাবে না।’ ১৭ মে সিলেটসহ সকল জেলার ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এ কথা বলেন।

সংশ্লিষ্ট সব পুলিশ কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়ে আইজিপি বলেন বলেন, ‘সরকারের পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত যেন কোনোভাবেই ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকায় এবং ঢাকা থেকে ঢাকার বাইরে কেউ যেতে না পারেন। একইভাবে প্রতিটি জেলা ও মহানগরীও জনস্বার্থে কঠোরভাবে এ বিষয়টি বাস্তবায়ন করবে।’

এ বিষয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. জেদান আল মুসা বলেন, নির্দেশনাটা আমাদের কাছেও এসে পৌঁছেছে। সিলেট শহর থেকে লোকজন যাতে অন্য জেলায় কিংবা শহর থেকে দূরের উপজেলায় গ্রামের বাড়ি না যেতে পারেন সে ক্ষেত্রে বিশেষ নজরদারির জন্য ট্রাফিক বিভাগের সহায়তায় পুলিশের উদ্যোগে ৬টি চেকপোস্ট বসানো হয়েছে।
তিনি জানান, ঢাকা-সিলেট রোডের দক্ষিণ সুরমার ওতিরবাড়ি, জকিগঞ্জ-সিলেট রোডের শ্রীরামপুর, জাফংল রোডের বটেশ্বর, সুনামগঞ্জ রোডের তেমুখী এবং এয়ারপোর্ট ও ফেঞ্চুগঞ্জ রোডে চেকপোস্ট বসিয়ে এ বিষয়ে বিশেষ নজরদারি করা হচেছ।

সৌজন্যে: দৈনিক শুভ প্রতিদিন

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

May 2020
S S M T W T F
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

………………………..

shares