গোয়াইনঘাটে শাশুড়ি ও ভাসুরের নির্মম নির্যাতনের শিকার অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ

প্রকাশিত: ১১:৫৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০২০

গোয়াইনঘাটে শাশুড়ি ও ভাসুরের নির্মম নির্যাতনের শিকার অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ

Sharing is caring!

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি :: সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার ফতেপুর উইনিয়নে শাশুড়ি ও ভাসুরের হাতে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ। বুধবার সকালে ফতেপুর উইনিয়নের ৩য় খন্ড নারাইপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তর্বমানে আহত অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ চিকিৎসাধীন অবস্তায় আছেন।

জানা গেছে, ফতেপুরের রামনগর গ্রামের হামিদ আলীর মেয়ে তামান্না আক্তার (২১) এর বিয়ে হয় ৩য় খন্ড নারাইপুর এলাকার সিরাজ আলীর ছেলে জালাল আহমদ আলাল এর সাথে। স্বামী ও তার পরিবারের নির্যাতন সহ্য করে আলালের সংসারে বিয়ের দুই বছর পার করছেন তামান্না। বর্তমানে অন্তঃসত্ত্বা এই গৃহবধূ। স্বামী আলালের অভাবের সংসারে প্রতিনিয়ত পিত্রালয় থেকে টাকা নিয়ে দেন তামান্না।

সেই সুবাদে মঙ্গলবার রাতে স্বামী আলাল টাকা নিয়ে আসার জন্য বলেন। এই টাকার জন্য তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ শুরু হয়। এর এক পর্যয়ে আলাল কিপ্ত হয়ে তামান্নাকে মারধর করেন। বুধবার সকালে তামান্না তার মাকে টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য বলেন। পরে মা কিছু টাকা নিয়ে যান। এরপর মেয়ের কাছ থেকে মারধরের কথা শুনেন এবং বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেন।

এক পর্যায়ে তামান্নার মা তার ভাসুর দুলাল ও তার শাশুড়ি মেহেরুন বেগমের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। পরে তামান্নার ভাসুর দুলাল ও তার শাশুড়ি মেহেরুন বেগম কিপ্ত হয়ে তারা মা-মেয়েকে মারধর শুরু করেন। মা-মেয়েকে মেরে রক্তাত্ব করেন ভাসুর দুলাল। তামান্নার চিৎকারে প্রতিবেশী লোকজন এসে মা-মেয়েকে রক্তাত্ব অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য পাঠান।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নির্মম নির্যাতনের শিকার অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর পরিবারের পক্ষে থানায় মামলা দায়েরর প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares