ফেসবুকের স্ট্যাটাসে তাহিরপুরে তীর কেটে বালু উত্তোলনে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত: ৮:৫১ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২০

ফেসবুকের স্ট্যাটাসে তাহিরপুরে তীর কেটে বালু উত্তোলনে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা

Sharing is caring!

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে উপজেলা আ,লীগ নেতার স্ট্যাটাসে অবৈধ ভাবে তীর কেটে বালু উত্তোলন কাজে নিষেধাজ্ঞা জারী করেছে উপজেলা প্রশাসন। নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় প্রশাসনকে সাধুবাদ জানিয়েছেন পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি কাশমির রেজাসহ এলাকার সচেতন মহল।

কিছু দিন ধরে যাদুকাটা নদীর ঘাগটিয়া জালরটেক এলাকায় রাতের আধারে তীর কেটে বালু উত্তোলন করায় হুমকির মুখে পড়েছিল যাদুকাটা নদীতে নির্মাণাধীন হযরত শাহ্ আরেফীন (রঃ) ও অদ্বৈত মৈত্রী সেতুটি।

সেতুটির পাশে তীর কেটে বালু উত্তোলনের মহোৎসব চলছে এমন ছবি সহ ষ্ঠেটাস উপজেলা আ,লীগের সদস্য ও বাদাঘাট বাজার বনিক সমিতির সভাপতি সেলিম হায়দারের ফেইসবুকের নিজস্ব আইডিতে ষ্ঠেটাসে ফেইসবুকে তুলপার সৃষ্টি হয়।

এপ্রেক্ষিতেই মঙ্গলবার(৩১,মার্চ)দুপুরে তাহিরপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জী সরেজমিনে গিয়ে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।
এসময় তিনি উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের গড়কাটি ও বিন্নাকুলী এলাকায় এলজিইডি কর্তৃক নির্মণাধীন ৭৫০মিটার দৈর্ঘ্যের দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সেতু হযরত শাহ্ আরেফীন (রঃ) ও অদ্বৈত মৈত্রী সেতু এলাকার আশপাশের ১কিলোমিটারের মধ্যে সব ধরণের বালি-পাথর উত্তোলনে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। এই আদেশ লঙ্গনকারীদের কঠোর ভাবে দমন করা হবে বলে হুশিয়ারী করেন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,তাহিরপুর থানার বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই মাহমুদুল হাসান, এএসআই বিল্লাল হোসেন, হযরত শাহ্ আরেফীন(রঃ)ও অদ্বৈত মৈত্রী সেতুর প্রজেক্ট ম্যানেজার মিয়া এম ডি নাসিরসহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজন।

পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি কাশমির রেজা বলেন,আমরা বার প্রশাসনের কাছে জোরালো দাবী জানিয়ে আসছি পরিবেশ নষ্টকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ভাবে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য। কারন নদীর পার কাটার সাথে জরিত আছে কিছু বড় বড় রাগব বোয়াল। তাই এখনই কঠোর ভাবে পদক্ষেপ না নিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ প্রকল্পের মাধ্যমে নিমার্নাধিন তাহিরপুর উপজেলা বাসীর স্বপ্নের সেতুটি ও এই এলাকার পরিবেশে বিপন্ন হবে।

আজ প্রশাসন নিষেধাজ্ঞা জারী করার পর নজরদারী রাখতে হবে। তাহিরপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জী বলেন,নির্মাণাধীন সেতু এলাকায় কোন ধরণের বালি-পাথর উত্তোলন ও গর্ত করা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কেউ যদি রাতের আঁধারে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বালি-পাথর উত্তোলন করে তাহলে এবিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares