সিলেটে ছাত্রলীগ কর্মী খুনের নেপথ্যে ‘সরস্বতী পূজা

প্রকাশিত: 8:23 PM, February 7, 2020

সিলেটে ছাত্রলীগ কর্মী খুনের নেপথ্যে ‘সরস্বতী পূজা

Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্টার :: সদ্য শেষ হওয়া সরস্বতী পূজায় কথা কাটিকাটির জের ধরে বিবাদে জড়িয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় সিলেট নগরীর টিলাগড়ে অভিষেক দে দ্বীপ নামের ছাত্রলীগ কর্মী খুন হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সৈকত রায় সমুদ্র (২২) নামের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাইয়ুম এ তথ্য জানিয়ে বলেন, আটককৃত ছাত্রলীগ কর্মীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে সরস্বতী পূজায় কথা কাটিকাটির বিষয়টি আমাদের জানান।

এর আগে সিলেট নগরীর টিলাগড় এলাকায় বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিবাদে জড়িয়ে ছাত্রলীগ কর্মী সৈকত রায় সমুদ্রের নেতৃত্বে একদল যুবকের হামলায় অভিষেক দে দ্বীপ নামের ছাত্রলীগ কর্মী নিহত হন। নিহত দ্বীপ গ্রীনহিল স্টেট কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। এদিকে হামলায় নেতৃত্বদানকারী সৈকত রায় সমুদ্র সিলেট সরকারি কলেজের ছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মী। এছাড়া নিহত দ্বীপ ও অভিযুক্ত সমুদ্র দুজনই আওয়ামী লীগ নেতা রণজিৎ সরকার গ্রুপের অনুসারী বলেও জানা গেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দ্বীপকে ছুরিকাঘাত করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে যায় হামলাকারীরা। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দ্বীপকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে শুক্রবার ওসি আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ‘আটককৃত ছাত্রলীগ কর্মীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায় সরস্বতী পূজায় তাদের মধ্যে কথা কাটিকাটি হয়। এমন বিরোধের জের ধরেই বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে টিলাগড়ে দ্বীপকে ছুরিকাঘাত করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে যায় তারা। পরে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দ্বীপকে মৃত ঘোষণা করেন।’ ‘বর্তমানে দ্বীপের মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে’ বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

এছাড়া এ ঘটনায় মামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। সম্ভবত মরদেহের সৎকারের পরেই তারা মামলাটি করবেন।’ এদিকে এ ঘটনায় আরও কেউ জড়িত রয়েছেন কিনা এ বিষয়টি পুলিশ খতিয়ে দেখছে বলেও তিনি জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

February 2020
S S M T W T F
« Jan    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
29  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares