যৌন হয়রানির অভিযোগে কলেজ শিক্ষক ফারুক বহিষ্কার

প্রকাশিত: 6:23 PM, January 22, 2020

যৌন হয়রানির অভিযোগে কলেজ শিক্ষক ফারুক বহিষ্কার

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : লালমনিরহাট সদর উপজেলার বড়বাড়ী শহীদ আবুল কাশেম মহাবিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এবিএম ফারুক সিদ্দিকীকে কলেজ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। তার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীদের যৌন হয়রানিসহ ৯ টি গুরুতর অভিযোগ আনা হয়েছে।

মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি বিকেলে বড়বাড়ী শহীদ আবুল কাশেম মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) স্নিগ্ধা চক্রবর্তী রাতদিননিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। অভিযুক্ত কলেজ শিক্ষক এবিএম ফারুক সিদ্দিকী উপজেলার বড়বাড়ী শিবরাম গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকীর ছেলে।

অধ্যক্ষ স্নিগ্ধা চক্রবর্তী জানান, ওই শিক্ষক দ্বারা সংঘটিত নয়টি অপরাধের বিষয় উল্লেখ করে গত ১১ জানুয়ারী কারন দর্শানোর নোটিশ দেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। এরপর সাতদিনের মধ্যে লিখিতাবে কোন জবাব না দেয়ায় সোমবার ২০জানুয়ারী তাকে কলেজ থেকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়।

অভিযুক্ত কলেজ শিক্ষক এবিএম ফারুক সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে আনীত ৯টি গুরুতর অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে, কলেজের সুন্দরী মেয়েদের যৌন হয়রানি করা, ছাত্রীদেরকে ফাঁদে ফেলে যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটানো, কলেজের অন্যান্য শিক্ষকদের সাথে অসদাচরন করা এবং প্রকাশ্যে স্ত্রীকে মারধর করা।

সর্বোপরি ২০১০ সালে তিনি কলেজের এক হিন্দু ছাত্রীকে জোরপুর্বক তুলে নিয়ে গোপনে আটকে রেখে যৌন হয়রানী করেন। এ ঘটনায় প্রায় ৭মাস জেলহাজত ভোগ করেন ফারুক।

অভিযুক্ত কলেজ শিক্ষক ফারুকের স্ত্রী কাওছারা বেগম রাতদিননিউজকে বলেন, তার ফোন সব সময় বিজি থাকতো। প্রতিবাদ করলে প্রকাশ্য মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিত।বাধ্য হয়ে কিছুদিন আগে ফারুকের নামে আদালতে মামলা করেছি।

অভিযুক্ত কলেজ শিক্ষক এবিএম ফারুক সিদ্দিকীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোনে জানান, এ অভিযোগ মেকাবেলা করা হবে। বলে ফোন কেটে দেন তিনি।

মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) স্নিগ্ধা চক্রবর্তী রাতদিননিউজকে জানান, চাকুরীচ্যুতসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে সুপারিশ করা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..