ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ: রাতে মিছিল-স্লোগানে উত্তাল ঢাবি

প্রকাশিত: ১০:২৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০২০

ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ: রাতে মিছিল-স্লোগানে উত্তাল ঢাবি

Sharing is caring!

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) থেকে ছাত্র জোটের নেতাকর্মীরা মশাল মিছিল বের করে শামসুন্নাহার হলের সামনে প্রদক্ষিণ করে ভিসি চত্বরসহ ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। মশাল মিছিলে ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক অনিক রায় ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি আল কাদেরী জয়কে নেতৃত্বে দেখা যায়।

অন্যদিকে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে প্রতিবাদী গানে কবিতায় সমাবেশের আয়োজন করেন ‘পালাবদল’ নামে ২০১৩/১৪ সেশনের ঢাবি শিক্ষার্থীরা। সেখানে একে একে বিপ্লবী ও প্রতিবাদী গান, কবিতা আবৃত্তি করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

‘কারার ঐ লৌহ-কপাট’, ‘দুর্গম গিরি কান্তার-মরু দুস্তর পারাবার’, ’এ কোন সকাল রাতের চেয়েও অন্ধকার’, ‘জনতার সংগ্রাম চলবেই’, ‘হিমালয় থেকে সুন্দরবন’, ‘বিপ্লবেরই রক্ত রাঙা ঝাণ্ডা’, ‘আমায় একটা সাদা মানুষ দাও’, ‘মুক্তির মন্দির সোপান তলে’, ‘বুক বেঁধে তুই দাঁড়া দেখি’ ও ‘আমি ভয় করব না ভয় করব না’, ‘তীর হারা এই ঢেউয়ের সাগর’ ও ‘পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে’, ‘ঐ উজ্জ্বল দিন ডাকে স্বপ্ন রঙিন’, ‘ভয় কি মরণে’ ও ‘আমাদের জপতব মন্ত্র’, ও ‘মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবিসহ অসংখ্য গান পরিবেশিত হয়।

অন্যদিকে সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বে মোমবাতি জ্বালিয়ে নিপীড়নবিরোধী পদযাত্রা ও আলোক প্রজ্বলন মিছিল ডাকসু চত্বর থেকে বেরিয়ে শহীদ মিনারে অবস্থান নিতে দেখা যায়।

ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, এজিএস সাদ্দাম হোসাইনের নেতৃত্বে ডাকসুর নেতাসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্বলন করেন।

গোলাম রাব্বানী বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। সেরকম বাংলাদেশেও আইন সংস্কার করে বিধান প্রণয়ন দরকার।

সাদ্দাম হোসাইন বলেন, ‘এ ঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত ডাকসুর নিপীড়নবিরোধী মঞ্চ পিছু হাঁটবে না। বিচারের দাবিতে আমরা আজ রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে স্মারকলিপি পেশ করব। আগামীকাল সকাল ১০টায় ছাত্রলীগ রাজু ভাস্কর্য থেকে প্রতিবাদী আল্পনা আঁকবে। বিকেল ৩টায় ছাত্র শিক্ষক প্রতিবাদী সমাবেশ হবে। সন্ধ্যা ৬টায় নিপীড়নবিরোধী মঞ্চ প্রতিবাদ জানাবে। পরবর্তীতে আরও কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

উল্লেখ্য, রোববার (৫ জানুয়ারি) কুর্মিটোলা এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয় বাস থেকে নামার পর ধর্ষণের শিকার হন ঢাবি শিক্ষার্থী। তিনি বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক্ষণিকা’ নামের দোতলা বাসে (ঢাবি-টঙ্গী রুট) বাড়ি ফিরছিলেন। সন্ধ্যায় কুর্মিটোলায় বাস থেকে নেমে যাওয়ার পর তাকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা ক্যান্টনমেন্ট থানায় বাদী হয়ে মামলা করেছেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহান হক বলেন, ‘মামলার এজাহারে মেয়েটিকে একজন ধরে নিয়ে ধর্ষণ করে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares