কোম্পানীগঞ্জ ধলাই নদীতে চাঁদাবাজি: শ্রমিকদের হাতে আটক তিন

প্রকাশিত: ৫:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০১৯

কোম্পানীগঞ্জ ধলাই নদীতে চাঁদাবাজি: শ্রমিকদের হাতে আটক তিন

Sharing is caring!

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে ধলাই নদীতে অবৈধভাবে চাঁদা আদায়কালে শ্রমিকদের হাতে তিন চাঁদাবাজ আটক হয়েছে। চাঁদাবাজদের উত্তেজিত শ্রমিকরা গণধোলাই দিয়ে পরে পুলিশে সোপর্দ করেন ।

আটককৃতরা হলেন- কোম্পানীগঞ্জের পূর্ব ইসলামপুরের যুবলীগের সভাপতি আলিম উদ্দিনের চাচাতো ভাই আব্দুল গফুরের ছেলে সজিবুল ইসলাম, সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সাহাব উদ্দিনের চাচাতো ভাই ও ডাকাত বেলালের চাচাতো ভাই।

জানা গেছে- কোম্পানীগঞ্জে ধলাই নদীতে এই চক্রটি দীর্ঘদিন থেকে অবৈধভাবে চাঁদাবাজি করে যাচ্ছে। কেউ তাদের ভয়ে প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি। যার ফলে তারা দিন দিন বেপরোয় হয়ে উঠেছে। আর সকল চাঁদাবাজদের মদদদাতা হচ্ছেন কোম্পানীগঞ্জের এক প্রভাবশালী নেতা কালা মিয়া যাকে সবাই এক নামেই চিনেন।

কালা মিয়া তার এই চাঁদাবাজ বাহিনী দিয়ে দীর্ঘ দিন থেকে অসহায় শ্রমিকদের কাছ থেকে জনপ্রতি ৫শ টাকা করে চাঁদা আদায় করে যাচ্ছে। কিন্তু তাদের এত নির্যাতন সইতে না পেরে প্রতিবাদ করতে শিখেছে এই অসহায় শ্রমিকরা।

চাঁদাবাজদের আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী শামীম আহমদ শ্রমিকদের অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন- এরকম শ্রমিকরা চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালে ধলাই নদীতে আর কোন চাঁদাবজি হবে না বলে মনে করেন তিনি। তাই সকল শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে সন্ত্রাসী চাঁদাবাজি দূর করতে প্রশাসনকে সহযোগিতা করবেন। তাহলে ধলাই নদী তথা কোম্পানীগঞ্জকে চাঁদাবাজ মূক্ত করা সম্ভব হবে।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares