সিলেটে বেপরোয়া টোকন নূরুলের সমাবেশের ডাক: পুলিশ ও মিডিয়ার লোকজন তার হাতের মুঠোয়

প্রকাশিত: ২:৫৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯

সিলেটে বেপরোয়া টোকন নূরুলের সমাবেশের ডাক: পুলিশ ও মিডিয়ার লোকজন তার হাতের মুঠোয়

Sharing is caring!

সারকারি নির্দেশনা মোতাবেক সিলেট টু তামাবিল মহা সড়ক হতে অবৈধ সিএনজি অটোরিক্সা ও অনুমোদন বিহীন টমটম চলাচলের উপর নিষদাজ্ঞা জারী করে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়৷ আইন কার্যকর ও বাস্তবায়ন করেত আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়৷ সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে সিলেটের পুলিশ সুপারের নির্দেশে ও সার্বিক দিক নির্দেশনায় জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশ উপজেলা সর্বশ্রেনী পেশার প্রতিনিধিদের নিয়ে আলোচনা করেন এবং সভায় সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে সিলেট তামাবিল মহাসড়কে যাহতে কোন প্রকার অবৈধ নাম্বার বিহীন সিএনজি, গ্যাস চালিত বোমা বহনকারী সিএনজি টমটম এবং ব্যাটারী টমটম চলাচলের উপর নিষেদাজ্ঞা কঠোর ভাবে জারী করা হয়৷ ইতোমধ্যে ব্যাটারী চালিত টমটম সন্তোষ জনক বন্ধ হলেও টোকন নুরুলের নিয়ন্ত্রনাধিন নাম্বার বিহীন সিএনজি অটোরিক্সা ও মহাসড়কে চলাচলের অনুপযোগী সিএনজি টমটম চলাচল করছে৷

ইতোমধ্যে জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশ ১টি সিএনজি টমটম ও ৬টি নাম্বার বিহীন সিএনজি অটোরিক্সা আটক করে৷ ফলে টোকন নূরুল বোপরোয়া হয়ে উঠে এবং সমাবেশের ডাক দেয়৷ নুরুল দেওয়া এসব টোকন ব্যবহার করে উপজেলায় অবৈধ ভাবে চলাচলকারী সিএনজি অটোরিক্সা দিয়ে চোরাকারবারীরা ভারত হতে আমদানি নিসিদ্ধ নাসির বিড়ি, মদ, ফেন্সিড্রিল, ইয়াবা, মাদকজাত পন্য বহন করছে৷

এছাড়া সিএনজি অটোরিক্সা ব্যবহার করে নারী অপহরন, নারীদের তুলো নিয়ে ইজ্জত লুন্ঠন করছে অপরাধীরা৷ উপজেলায় কয়েকটি নারী ধর্ষন মামলায় নাম্বার বিহীন সিএনজি অটোরিক্সা দিয়ে অপহরনের দায়ে এখন পর্যন্ত এসকল অটোরিক্সা আটক করা সম্ভব হচ্ছে না৷ নাম্বার বিহীন সিএনজি আটোরিক্সা আটক শুরু হলে বিপাকে পড়ছে টোকন নুরুল৷ তার অবৈধ অর্থ বানিজ্যে পুলিশের থাবা পড়ায় সে বিভিন্ন শাখায় জৈন্তাপুর থানা পুলিশের বিরুদ্ধে সোচ্ছাে হয়ে উঠার জন্য প্রচার প্রচারনা চালিয়ে আগামী শনিবার হরিপুর বাজারে সমাবেশের ডাক দেয় এবং সমাবেশ শেষে সিলেট তামাবিল মহাসড়ক অবরোধ করার পরিকল্পনা করছে৷ সে বিভিন্ন স্থানে সভা করে বলেছে সিলেটের আইজি, ডিআইজি, পুলিশ সুপার ও মিডিয়ার লোকজন তার হাতের মুঠোয় রয়েছেন৷ তাই আন্দোলন করে রাস্তা বন্দ না করলে তারা কিছু করতে পারছেন না৷ সেজন্য সবাইকে ঐক্য বদ্ধ হয়ে আন্দোলন করতে হবে৷ তাহলে থানা পর্যায়ে থাকা এ.এস.পি কিংবা ওসি বাধ্য হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন রাখতে উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষে এসব পরিবহন চলাচলের সুযোগ করে দিবেন বলে প্রচারনায় নামে সমাবেশ সফলের আহবান জানাচ্ছে৷এসচেতন মহলের দাবী অপরাধ সংঘটিত করতে টোকন নূরুলের এরকম সমাবেশের অনুমতি দিলে অপরাধীরা মাথা ছাড়া দিয়ে উঠবে৷ উপজেলা আইন শৃঙ্খলা অবনতি হবে৷ মাদক ও চোরাকারবারি চক্র নিয়ন্ত্রন হীন হয়ে উঠবে৷

সম্প্রতি জৈন্তাপুর মডেল থানার ওসি শ্যামল বনিক ও সিনিয়র এএসপি কানাইঘাট সার্কেল মো: আব্দুল করিমের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় অপরাধ নিয়ন্ত্রন করতে তৎপর ভূমিকা পালন করছেন৷ প্রায় দুই মাসে যাবৎ জৈন্তাপুর উপজেলা অপরাধীরা কোনাঠাসা হয়ে পড়ে৷ বর্তমানে অপরাধীরা একত্রিত হয়ে অপরাধ কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষে অপরাধ সিন্ডিকেটের সদস্যরা টোকন নূরুলের সাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সমাবেশের ডাক দিচ্ছে৷ সচেতন মহল আরও জানান ভাল কাজের সঙ্গে আমরা পুলিশের সাথে আছি৷ কোন অবস্থায় অপরাধীদের সমাবেশের সুযোগ না দেওয়ার আহবান জানান৷

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

September 2019
S S M T W T F
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares