সিলেটের সীমান্ত দিয়ে ভারতে যাচ্ছে খাবার মটর, বাংলায় আসছে মাদক সামগ্রী

প্রকাশিত: ১১:০৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৭, ২০১৯

সিলেটের সীমান্ত দিয়ে ভারতে যাচ্ছে খাবার মটর, বাংলায় আসছে মাদক সামগ্রী

Sharing is caring!

ঈদকে সমানে রেখে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার সীমান্ত জুড়ে চোরাকারবারীরা সক্রিয়, নিষ্কৃয়সীমান্তরক্ষী বাহিনী। বাংলাদেশ হতে যাচ্ছে খাদ্য দ্রব্য সামগ্রী মটর, প্লাষ্টিক সমাগ্রীবিনিময়ে আসছে জিরা, নিম্নমানের চা-পাতা, ইয়াবা, মদ ও নাছির বিড়ি।

সরেজমিনে জৈন্তাপুর সীমান্ত এলাকাঘুরে দেখা যায়, নলজুরী, আলুবাগান, মোকামপুঞ্জি,আদর্শগ্রাম, ঝিঙ্গাবাড়ী, মিনাটিলা, কেন্দ্রী হাওর, কেন্দ্রী, ডিবিরহাওর, ফুলবাড়ী, ঘিলাতৈল, টিপরাখলা, কমলাবাড়ী, গোয়াবাড়ী, হর্নি, বাইরাখেল, কালিঞ্জি, জালিয়াখলা, খালাখালচা-বাগান, আফিফা নগর চা-বাগান, তুমইর, বালীদাঁড়া, সিঙ্গারীরপাড় এলাকা দিয়ে দিনদুপরে চোরাকারবারী চক্রের সদস্যরা সীমান্তের ওপার থেকে বানের পানির মত নিয়ে আসছেইয়াবা, মদ, নাসির বিড়ি, ভারতীয় নিম্নমানের চা-পাতা, জিরা, ভারতীয় বিভিন্ন ব্যান্ডেরসিগারেট ও ভারতীয় রোগাক্রান্ত গরু, মহিষ।

বিনিময়ে বাংলাদেশ হতে যাচ্ছে হাজার হাজারবস্তা মটর ও প্লাষ্টিক সামগ্রী। মাঝে মধ্যে বিজিবি লোক দেখানো অভিযান পরিচালনা করলেরাতের অন্ধকারে যেন ভারত বাংলা একাকার হয়ে যায়। চেরাকারবারী দলের সদস্যরা হলেন আনোয়ারহোসেন, রাম কিশ্বাস, হারুন মিয়া, আলমগীর হোসেন, শ্রমিকনেতা সাইফুল ইসলাম,আমিন উদ্দিন, মানিক মিয়া, এমরান হোসেন, সোহেল আহমদ, ইউনুছ মিয়া, গুলজার মিয়া,আব্দুল করিম, আব্দুল্লাহ মিয়া, লালা মিয়া, পারভেজ মিয়া, নজরুল ইসলাম নজাই, নাজিমমিয়া, আব্দুল মন্নান, সোহেল আহমদ, বিলাল মিয়া, সেলিম আহমদ, রহিম উদ্দিন, লোদাইহাজি, আব্দুর রশিদ, রফিক আহমদ, হেলাল উদ্দিন সহ প্রায় ২শতাধিক চোরাকারবারী।

আরও পড়ুন: আসছে ঈদ, জাফলং সীমান্তে তৎপর চোরাচালানীরা: নিরব প্রশাসন

ঈদকে সামনে রেখে জৈন্তাপুর সীমান্ত যেন অরক্ষিত হয়ে পড়েছে। এদিকে উপজেলা আইনশৃঙ্খলাবৈঠকে একাধিক বার স্থানীয় সংবাদকর্মীরা বিষয়টি উত্থাপন করা হলে কোন কাজ হচ্ছে না।এদিকে সীমান্তের এসব কারবার নিয়ে ৩১ জুলাই সকাল অনুমান ১০টায় চোরাকারবারী দলেরসদস্য রাম বিশ্বাস, আলমগ্রীর ও শ্রমিকনেতা সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে ভারতের মুক্তাপুরবস্তির রাবিশ নামের এক খাসিয়াকে ধরে নিয়ে আসে। সংবাদকর্মীরা বিষয়টি জানার পর রাত৯টায় ছেড়ে দেওয়া হয়। চোরাকারবারীদের অপতৎপরতার কারনে সীমান্ত এলাকার বাসিন্ধারা এখন নিরাপদ জীবন যাপন করতে পারছে না। এসবের কারনে গত জুলাই মাসে ভারতীয় গরু পাচারের সময় সীমান্তের বাসিন্ধাদের গরু চুরি করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। স্থানীয় এলাকাবাসী জুলাইমাসে ১টি ভারতীয় গরু এবং ৩টি স্থানীয় ইউপি সদস্যার গরু সহ চোরাইগরু বহনকারী পিকআপ আটক করে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

সম্প্রতি উপজেলা বিভিন্ন সীমান্তদিয়ে হাজার হাজার বস্তা মটর সাপ্লাই হলেও সীমান্ত আইন প্রয়োগকারী বাহিনী নিরবদর্শকের ভূমিকা পালন করছে। এবিষয়ে জৈন্তাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারন সম্পাদক সচেতন দেশবাসীর দৃষ্টি আর্কষন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইস বুকে স্যার্টাস দেননি তার স্যার্টাসটি হুবুহু তুলে ধরা হল, সচেতন ও দেশ প্রেমিকদের দৃষ্টি আকর্ষন করছে দেশটা নাকি ভারতের অঙ্গরাজ্য হয়ে গেল এ দেশেকি দেশদরদী জনগনের অভাব দেখাদিয়েছে। প্রতিনিয়ত হাজার হাজার টন খাদ্য শস্য দেদারছে লালাখাল সীমান্ত দিয়ে ভারত চলেযাচ্ছে, আর বিনিময়ে সীমান্ত দিয়ে আসছে মাদক ও ভারতীয় সীগারেট। যার কালো হাতের থাবায় ধ্বংস হচ্ছে যুব সমাজ,, আমাদের খাদ্য চাহিদা কি আর নাই, আমাদের কি খাদ্যচাহিদা পুরন হয়ে গেসে।

আরও পড়ুন: জাফলংয়ে রাতের আধারে ভারতে পাচার হচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকার খাবার মটর, নিরব প্রশাসন

এ সবের সুযোগ প্রশাসনের কিছু দুর্নীতি বাজ কর্তাব্যক্তিরা বসে বসে মাল লুটসে, এসব অপকর্মকি দেখার কেউ নেই। প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে আমরা এসব অপকর্মের জবাব দেবার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। আসুন সচেতন দেশবাসী সকলেমিলে এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলি।এবিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল আহমদ বলেন- আমি দায়িত্ব গ্রহনের পর পর তিনটিআইনশৃঙ্খলা বৈঠকে সংশ্লিষ্ট আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতি কঠোর হওয়ার আহবান জানাই। কিন্তু কেন তারা বিষয়টি দেখছে না তা নিয়ে আমি শংঙ্কিত। আগামী জেলা আইনশৃঙ্খলা বৈঠকে বিষয়টি তুলো ধরব।

এবিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বনিক বলেন- আমি আজ ৬দিনহয়েছে এই থানায় যোগদান করেছি। যোগদানের দ্বিতীয় দিন ৫ বোতল অফিসার চয়েছ মদসহ একজনকে আটক করি হাজতে প্রেরন করেছি। আমার অঙ্গীকার জৈন্তাপুরে হয় মদ থাববে, নাহয় আমি থাকব।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

August 2019
S S M T W T F
« Jul   Sep »
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares