বন্যার পানিতে বেড়াতে গিয়ে নৌকাডুবি, পাঁচ ছাত্রীর মৃত্যু

প্রকাশিত: ৮:৩৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০১৯

বন্যার পানিতে বেড়াতে গিয়ে নৌকাডুবি, পাঁচ ছাত্রীর মৃত্যু

Sharing is caring!

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় নৌকা ডুবে দুই সহোদরাসহ পাঁচজন ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। ওই নৌকার আরো ছয় যাত্রীকে স্থানীয়রা জীবিত উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় তারা অসুস্থ হয়ে পড়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার আওনা ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামে মৌলভীর বাজার সংলগ্ন নিকাই বিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তারা সবাই বিলের পানিতে নৌকা নিয়ে বেড়াতে গিয়েছিল।

নিহতরা হলো, আওনা ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের খবিরুল ইসলামের মেয়ে ও স্থানীয় অ্যাডভোকেট মতিয়র রহমান তালুকদার কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সুবর্না আক্তার (১৮) ও তার সহদোরা স্থানীয় পঞ্চাশী কেএলপি প্রি-ক্যাডেট স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ঝুমা আক্তার (৮), একই গ্রামের গোলাম মোস্তফার মেয়ে স্থানীয় পঞ্চাশী রেজাউল করিম দাখিল মাদরাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী অন্তরা আক্তার (১২), পঞ্চাশী গ্রামের রিপন শিকদারের মেয়ে ধনবাড়ীর শাপলা কিন্ডার গার্টেনের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী রুদশী আক্তার (৭) এবং টাঙ্গাইল জেলার ধনবাড়ী উপজেলার পাইসকা গ্রামের জবানুর রহমানের মেয়ে পঞ্চাশী কেএলপি প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী জান্নাতুল জয়া (১০)। তাদের মধ্যে জান্নাতুল ও রুদশী সম্পর্কে খালাত বোন।

নিহত ছাত্রী জান্নাতুলের মামা মাসুদ রানা জানান, তার বোনের দুই মেয়েসহ আওনা ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের ১০ থেকে ১২ জন ছাত্র-ছাত্রী বৃহস্পতিবার সকালে একটি নৌকা নিয়ে স্থানীয় মৌলভীর বাজার সংলগ্ন নিকাই বিলে বন্যার পানিতে বেড়াতে যায়। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তাদের নৌকার তলার ছিদ্র দিয়ে পানি উঠতে থাকে। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা ভয় পেয়ে যায় এবং তাদের নড়াচড়াতে নৌকাটি উল্টে ডুবে যায়। এতে ওই নৌকার সবাই পানিতে ডুবে যায়। এ দৃশ্য দেখে স্থানীয়রা সেখান থেকে ছয়জনকে উদ্ধার করতে পারলেও পাঁচজন ছাত্রী ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

আওনা ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘নিকাই বিলের মাঝামাঝি নৌকাটি ডুবে যায়। সেখানে পানির গভীরতা অনেক। পাঁচজন মেয়ে ঘটনাস্থলেই মারা গেছে। আর ছয়জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তারা অসুস্থ হয়ে পড়েছে। যারা মারা গেছে তাদের কেউই সাঁতার জানতো না। মর্মান্তিক এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের স্বজনদের মাঝে শোকের মাতম চলছে।’

এদিকে খবর পেয়ে সরিষাবাড়ী উপজেলার তারাকান্দি তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ মোহাব্বত কবীর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মৃত পাঁচজনের পরিচয় নিশ্চিত হয়ে তাদের সুরতহাল লিপিবদ্ধ করেছেন। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হবে। লাশের স্বজনদের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিনাময়নাতদন্তে পাঁচজনের লাশ পরিবারের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares