লঞ্চের স্টাফ কেবিন থেকে নারীর লাশ

প্রকাশিত: ৭:১৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ২০, ২০১৯

লঞ্চের স্টাফ কেবিন থেকে নারীর লাশ

Sharing is caring!

বরিশাল ঢাকা নৌরুটে যাত্রী পরিবহনকারী এমভি সুরভী-৮ লঞ্চ থেকে আঁখি আক্তার (২৯) নামে এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে বরিশাল নদীবন্দরে নোঙর করে রাখা অবস্থায় লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত নারী বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার পাদ্রিশিবপুরের বড়পুইয়াউটা এলাকার বজলু বেপারির মেয়ে। তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ আদমজী নগরের আদমজী ইপিজেডের অনন্ত অ্যাপেয়ারেল্স লিমিটেডের অপারেটর ছিলেন।

পুলিশ জানায়- ঢাকা থেকে বরিশাল নদীবন্দরে পৌঁছার পর শনিবার সকাল ৮টার দিকে কেবিন পরিদর্শন করতে গিয়ে বিষয়টি এক স্টাফ নারীর লাশ দেখতে পেয়ে কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে মরদেহের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

লঞ্চের সুপারভাইজার মেসবাহ উদ্দিন জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে নারী ও পুরুষ দুই যাত্রী ৬শ টাকা ভাড়ায় সুরভী-৮ লঞ্চের নিচ তলার পেছনের দিকের স্টাফ কেবিনে ওঠেন। ভোরে কেবিন চেক করতে এসে ওই কেবিনের দরজা বাইরে থেকে সিটকিনি দেওয়া দেখতে পায় এক স্টাফ। পরে দরজা খুলে স্টাফরা ওই নারী যাত্রীকে শুয়ে থাকতে দেখে তাকে ডাকাডাকি করেন। এতে তিনি সাড়া না দেওয়ায় লঞ্চ কর্তৃপক্ষ ও থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম জানান, গার্মেন্টসকর্মী আঁখি আক্তারকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। প্রাথমিক সুরতাহলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। তাছাড়া তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে কী না সেটি ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

লঞ্চে আঁখির সঙ্গে থাকা যুবকের বিষয়ে খোঁজ-খবর নেওয়ার পাশাপাশি লঞ্চের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সরবরাহ করা হয়েছে। খুব শিগগিরই ওই যুবককে আইনের আওতায় আনার সাথে সাথে এই খুনের রহস্য উন্মোচন হবে বলে আশা প্রকাশ করেন ওসি।

নিহত নারীর বাবা বজলু বেপারি জানান, আঁখির সঙ্গে আদমজী শহরের এক ছেলের সঙ্গে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ২ বছরের এক মেয়েও আছে। তাদের দাম্পত্য সম্পর্কের টানাপড়েনে সেই সন্তান নানাবাড়ি বাকেরগঞ্জেই থাকে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares