সিলেটে সাংবাদিক নুরুলের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতার করেনি পুলিশ

প্রকাশিত: ৬:১৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০১৯

সিলেটে সাংবাদিক নুরুলের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতার করেনি পুলিশ

বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের প্রচার সম্পাদক, দৈনিক সিলেটের দিনকাল-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল ইসলামের উপর হামলার ঘটনায় এখনো কোন আসামী গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। গত ৩ জুলাই বুধবার তার উপর হামলা চালানো হয়।

হামলার পরপরই সাংবাদিক নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ৫ সন্ত্রাসীর নাম উল্লেখ করে ও ১৫/২০ জনকে অজ্ঞাত রেখে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা দায়ের করেন। যার নং- (০২. ০৩/০৭/১৯ইং)। সবচেয়ে অবলোকনের বিষয় দীর্ঘ প্রায় ৮ দিনেও হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। মামলা দাখিলের পর থেকে এখনও পর্যন্ত হামলাকারী সন্ত্রাসীরা অধরা।

তবে পুলিশ বলছে হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে সন্দেহমূলক সকল স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে। যত দ্রুত সম্ভব হামলাকারীদের গ্রেফতার করা হবে। এদিকে গত শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি) কমিশনার গোলাম কিবরিয়ার সাক্ষাত করেন। সাক্ষাতকালে সাংবাদিকবৃন্দ ফটো সাংবাদিক নুরুল ইসলামের উপর হামলাকারীর ঘটনার মামলা দায়েরের প্রায় ১১ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও কোন আসামী গ্রেফতার না হওয়ার উদ্বোগ প্রকাশ করেন।

সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ মামলার জরুরী কাগজপত্র কমিশনার কাছে প্রধান করেন। পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়া তাৎক্ষণিক ভাবে সংশ্লিষ্ট্রদের আসামীদের গ্রেফতারের নির্দেশ প্রদান করেন। সাক্ষাতকালে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আতাউর রহমান আতা, বর্তমান সভাপতি সভাপতি মামুন হাসান, সাবেক সভাপতি আব্দুল বাতিন ফয়সল, সাবেক সহ-সভাপতি নাজমুল কবীর পাভেল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আশকার আমীন লস্কর রাব্বী, কোষাধ্যক্ষ মাহমুদ হোসেন, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইউসুফ আলী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নুরুল ইসলাম (উত্তরর্পূব), নির্বাহী সদস্য শাহীন আহমদ, এসএম রফিকুল ইসলাম সুজন, ইদ্রিস আলী, ফটো সাংবাদিক আব্দুল করিম, কৃতিশ তালুকদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (৩ জুলাই) দুপুরে সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র রায়হান ইসলাম দীপুকে সন্ত্রাসীরা মারধর করতে থাকে। তখন ওই রাস্তা দিয়ে নিজ কর্মস্থল দৈনিক সিলেটের দিনকাল কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন সাংবাদিক নুরুল ইসলাম ও মো. নাঈমুল ইসলাম। দীপুকে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করতে এগিয়ে যান সাংবাদিক নুরুল ইসলাম ও মো. নাঈমুল ইসলাম। এসময় দীপুকে হামলাকারী সন্ত্রাসী মো. আরিফ, নয়ন, সম্রাট, বাঁধন, বক্কর সহ অজ্ঞাত ১৫/২০ তাদের সহযোগীদের নিয়ে ধারালো অস্ত্রসহকারে সাংবাদিক নুরুল ইসলাম ও মো. নাঈমুল ইসলাম এর উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলাকারী সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের এলোপাতাড়ী আঘাতে মাথায়, হাতে ও শরীরে রক্তাক্ত জখম হয় নুরুল ইসলাম ও মো.নাঈমুল ইসলামের। তাদেরকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের আঘাতে ওই এলাকার স্থানীয় মাহিনও আহত হন। এ সময় সন্ত্রাসীরা নুরুল ইসলামের সাথে থাকা একটি ডি-৪০ ডিজিটাল স্টিল ক্যামেরা যার মূল্য অনুমান ৬০ হাজার টাকা, নগদ ২৭ হাজার ৭৮০ টাকা ও তার হাতে থাকা একটি কেসিও ঘড়ি ছিনিয়ে নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত নুরুল ইসলাম, মো. নাঈমুল ইসলাম ও মাহিনের শোর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

আর রক্তাক্ত আহতাবস্থায় সাংবাদিক নুরুল সহ ৪ জনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। তাৎক্ষনিক খবর পেয়ে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে সাংবাদিক নুরুল ইসলামকে দেখতে যান সিলেটের সাংবাদিক নেতারা ও তার সহকর্মীবৃন্দ।

এসময় সকল সাংবাদিকবৃন্দ ন্যাক্কারজনক এ হামলার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করেন এবং হামলাকারী সন্ত্রাসীদেরকে দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি প্রদানের দাবি জানান।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..