প্রচ্ছদ

পুলিশের দ্বারা অপরাধ নির্মুল সম্ভব, যদি পুলিশের সাহায্যে স্থানীয়রা এগিয়ে আসেন: এসপি ফরিদ উদ্দিন

১৩ জুলাই ২০১৯, ২০:৫১

স্টাফ রিপোর্টার ::

Sharing is caring!

সিলেট রেঞ্জে নতুন যোগদানকারি পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন বলেছেন, পুলিশের দ্বারা অপরাধ নির্মুল সম্ভব যদি পুলিশের সাহায্যে স্থানীয়রা এগিয়ে আসেন। জনগনকে সাথে নিয়েই পুলিশ বাহিনী বিয়ানীবাজারকে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীমুক্ত করা হবে।

তিনি আরো বলেন, বিয়ানীবাজার থানায় মামলাতে গড়িমসি, জিডি করতে এসে ভোগান্তি পোহাতে হবেনা আপনাদের, এ নিশ্চয়তা আমি দিয়ে গেলাম। আর বিয়ানীবাজার থানায় কেউ যদি গড়িমসি করে আমাকে জানাবেন তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নিবো।

তিনি মা দককে নির্মুল করতে হলে সবাইকে পারিবারিকভাবে সচেতন হতে হবে জানিয়ে আরো বলেন, মা দক সেবন কারা করে? আমাদের পরিবারেরই সন্তান, তাদের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে যাতে তারা মা দকাসক্ত না হয়।

তিনি শনিবার স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ানীবাজার থানার উদ্দ্যোগে মা দক, সন্ত্রাস ও জ ঙ্গীবিরোধী মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি (তদন্ত) জাহিদুল হকের পরিচালনায় অফিসার ইনচার্জ অবনী শংকর করের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাহবুবুল আলম, বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব, জকিগঞ্জ সার্কেল মোঃ রাশেদুল হক চৌধুরী, বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা কাজী আরিফুর রহমান, বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র আব্দুশ শুকুর, বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল হাসিব মনিয়া, বিয়ানীবাজার উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান জামাল হোসেন, বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন, বিয়ানীবাজার জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আহমেদ ফয়সাল, প্রেসক্লাব সাধারন সম্পাদক মিলাদ মোঃ জয়নুল ইসলাম, বিয়ানীবাজার পুজা উদযাপন পরিষদের সহসভাপতি প্রিয়তোষ চক্রবর্তী প্রমুখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যের আগে বিয়ানীবাজারের বিভিন্ন স্তরের নের্তৃবৃন্দের কাছ থেকে বিয়ানীবাজার থানার কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে চাইলে উপস্থিত বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা মানুষ তাদের সমস্যা তুলে ধরেন। এসময় বিয়ানীবাজার উপজেলার ১১নং লাউতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গৌছ উদ্দিন বিয়ানীবাজার থানায় কর্মরত এসআই সিরাজুল ইসলাম-২ এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের কথা তুলে ধরেন, তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার তার বক্তব্যের প্রথমেই সিরাজুল ইসলামকে বিয়ানীবাজার থানা থেকে স্ট্যান্ড রিলিজ করেন।

  •  
  •  
  •  

আর্কাইভ

shares