প্রচ্ছদ

সিলেটে পাগলির প্রতি টিএসআই নজরুলের মানবিকতা

০৬ জুলাই ২০১৯, ২০:১১

স্টাফ রিপোর্টার ::

Sharing is caring!

পুলিশের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম, অন্যায় ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু, এসবের ভিড়ে ভালো ও উদার মনের পুলিশ সদস্যও আছে। যাদের সারাদিন নিজের ডিউটির পর সাধারণ মানুষকে যেকোন বিপদে সাহায্য করার আশা মন থেকে কখনও সরে যায় না। এমনই এক পুলিশ সদস্য মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪জুলাই ) মধ্য রাতে তার এ মহানুভবতার পরিচয় সাধারণ মানুষের কাছে প্রকাশ পায়। মহানুভবতা পরিচয়দানকারী সিলেট মেট্রপলিটন পুলিশের সদস্য নগরীর এয়ারপোর্ট থানাদীন আম্বর খানা ফাঁড়িতে দায়িত্বরত টি এস আই নজরুল ইসলাম। নগরীর আম্বরখানা থেকে এয়ারপোর্ট রোডে বনশ্রী নামক পাড়ার গলির মুখে দীর্ঘদিন যাবত এক মানুষিক ভারসাম্যহীন মধ্য বয়েসি মহিলা মেঘ বৃষ্টি রোদ অপেক্ষা করে রাস্তার পাশে শুয়ে থাকেন।যে রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের যাতায়াত দীর্ঘদিন এই মহিলার অমানবেতর জীবন যাপন চুখে পড়লেও সাহায্য করতে কেউ এগিয়ে আসেননা মানুষিক ভারসাম্য হীন মানুষটিকে।

তবে প্রবাদে আছে রাখে আল্লাহ মারে কে গত রমজান মাসে পুলিশ সদস্য টি এস আই নজরুলে চুখে পড়ে, হাত বাড়িয়ে দেন তিনি সহযোগীতার, রমজান মাসে জুড়ে ফাঁড়ির ডিউটির ফাঁকে ইফতারি ও সেহরি দিতেন এই অনাহারী পাগল মহিলাকে।

রাস্তার উপর কাতরানো মহিলার পায়ে পচন ধরলে টিএসআই নজরুল নিজের পকেটের টাকায় ওষুধ কিনে চিকিৎসা সেবা দিতে পিচপা হননি তিনি। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই)গভীর রাতে দেখাযায় বৃষ্টি অপেক্ষা করে ওই মানুষিক ভারসাম্যহীন মহিলাকে নিজ খরচে বৃষ্টি থেকে বাঁচার জন্য মাতার উপর চাউনি দিচ্ছেন। অনেক পথচারী ছবি তুলার চেষ্টা করছেন ,প্রচার বিমুখ টিএসআই নজরুল তার নিজের কাজে কোন বিগ্নতা না করার জন্য অনুরোধ করেন।

পুলিশ টি এসআই নজরুলের এই বিষয় এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল। আলোচনার ঝড় তুলে সকল পেশার মানুষ। সকলে মনে করেন, এমন যদি সকল পুলিশ সদস্য হতো তাহলে পুলিশের প্রতি মানুষের খারাপ মনোভাব আর থাকতো না। এ বিষয়টি জানতে চাইলে টিএসআই নজরুল ইসলাম বলেন, আমি গত রমজান মাসে সকালে ডিউটিতে ছিলাম। হঠাৎ করেই দেখি রাস্তার পাশে একজন মহিলা চিৎকার দিচ্ছে। দৌড়ে গিয়ে দেখি মধ্যে বয়সী মানুষিক ভারসাম্যহীন এই মহিলাকে, পোরা পা পঁচে গেছে, রমজান মাসে এই সময় কোন ডাক্তার না পেয়ে স্থানীয় এক ফার্মেসি থেকে কিছু ঔষধ এনে দেই। তারপর যতটুকু পারি এই পর্যন্ত সহযোগিতার চেষ্টা করে যাচ্ছি। স্থানীয় অনেক মানুষের সাথে কথা বলে জানাযায় পুলিশ অফিসার নজরুল সবসময় অমায়িক তার ব্যবহার চাল চলন সব সময় সাধারণ মানুষের ন্যায়।

  •  
  •  
  •  

আর্কাইভ

shares