প্রচ্ছদ

ইউরোপজুড়ে ভয়াবহ তাপমাত্রা, ব্রিটেনে মৃত ৫

৩০ জুন ২০১৯, ২০:১২

ক্রাইম সিলেট ডেস্ক :

Sharing is caring!

ইউরোপজুড়ে তীব্র গরমে নাভিশ্বাস উঠছে মানুষের। ভয়াবহ তাপমাত্রায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে। গরমে নাকাল ইউরোপবাসীর জন্য আরো ভয়াবহ তাপমাত্রা অপেক্ষা করছে। এর মাঝেই যুক্তরাজ্যের ইসলিতে রোববার দাবদাহে একজনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে দেশটিতে তীব্র গরমের কারণে মোট পাঁচজনের প্রাণ গেল।

ব্রিটিশ দৈনিক সানডে এক্সপ্রেস বলছে, চলতি বছরের সবচেয়ে উষ্ণতম দিন হিসেবে তাপমাত্রার রেকর্ড গড়েছে ব্রিটেন। পূর্ব লন্ডনের নর্টহল্টে শনিবার সর্বোচ্চ ৯২ দশমিক ৪ ফারেনহাইট (৩৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস) তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

ক্রমবর্ধমান এই তাপমাত্রার কারণে রোববার ব্রিটেনের ইসলিতে একজনের প্রাণহানি ঘটেছে। ৬৩ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ সাগর তীরে গরম নিবারণের জন্য পানিতে ভেজার সময় মারা গেছেন। এ নিয়ে দেশটিতে তীব্র গরমে পাঁচজন নিহত হলো। ইসলির ইভারল্যান্ড উপকূলীয় এলাকা থেকে উদ্ধার করে তাকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এর আগে বৃহস্পতিবার ইরওয়েল নদীর ধারে থেকে শুকরি ইয়াহিয়া আবদি নামের এক সোমালিয়ান কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তীব্র গরম থেকে বাঁচতে নদীর পানিতে ভিজে শরীর ঠান্ডা করার সময় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন ১২ বছরের এই কিশোরী।

এদিকে, তীব্র গরম থেকে বাঁচতে নদীতে, হ্রদে কিংবা জলাশয়ে নামার ঝুঁকির ব্যাপারে দেশটির মানুষকে সতর্ক করে দিয়েছে পুলিশ। এর আগে ডেভনের টরবে এলাকার কাছে সাগরে নেমেছিল একদল যুবক। এদের মধ্যে ২৫ ও ২৬ বছর দুই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটের দিকে কর্নওয়ালের প্রুসিয়া কোভ এলাকায় এক পর্যটক গরমের কারণে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে বাঁচাতে পুলিশ দীর্ঘ চেষ্টা চালালেও শেষ পর্যন্ত মারা যান তিনি। এদিকে, তীব্র গরমের কারণে ফ্রান্সে হাজার হাজার স্কুল বন্ধ ও বিভিন্ন অনুষ্ঠান বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির বিভিন্ন শহরে তীব্র দাবদাহে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। সমাজের স্বেচ্ছাসেবীরা বৃদ্ধদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খোঁজ নিচ্ছেন।

আরও পড়ুন : ইতিহাস গড়ে উ. কোরিয়ার ভূখণ্ডে ঢুকলেন ট্রাম্প

গত এক সপ্তাহ ধরে প্রচণ্ড গরম বিরাজ করছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে। গরমের কারণে এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকজনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, নজিরবিহীন তাপমাত্রার কারণে অনেকের প্রাণহানি ঘটছে এবং অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।

তীব্র দাবদাহের কারণে স্পেনের প্রায় ১০ হাজার একর এলাকায় দাবানল তৈরি হয়েছে। অতীতের সব ইতিহাস ভেঙে ফ্রান্সে শুক্রবার সর্বোচ্চ ১১৪ দশমিক ৬ ফারেনহাইট (৪৫ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস) তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। প্রথমবারের মতো দেশটির জাতীয় আবহাওয়া বিভাগ তীব্র গরমের কারণে সর্বোচ্চ মাত্রার তাপমাত্রার ঝুঁকি সতর্কতা জারি করেছে। দেশটির অন্তত ৪ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

অন্যদিকে, ইতালির অন্তত ১৬টি শহরে তাপমাত্রা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। রোমে ঘুরতে যাওয়া পর্যটকদের মাঝে পানি বিতরণ করেছে সিভিল সিকিউরিটি সার্ভিস বিভাগের কর্মীরা। ইতোমধ্যে দেশটির উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে তীব্র দাবদাহে অন্তত তিনজনের প্রাণহানি ঘটেছে।

আরও পড়ুন : ২ সন্তান নিয়ে পালিয়েছেন আমিরাত শাসকের ষষ্ঠ স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া

জার্মানিতে জুনের সামগ্রিক তাপমাত্র চার ডিগ্রি সেলসিয়াস বেড়ে গেছে। এর আগের সব রেকর্ড অতিক্রম করেছে এবারের তাপমাত্রা। ২০০৩ সালে যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল তার চেয়েও দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেড়েছে।

বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা বলছে, ২০১৯ সাল বিশ্বের সবচেয়ে উষ্ণতম বছর। ২০১৫ থেকে ২০১৯ পৃথিবীর সবচেয়ে উষ্ণ বছরের তালিকায় সবার উপরে আছে। জাতিসংঘ বলছে, গ্রীন হাউজ গ্যাস নির্গমনের কারণে বিশ্ব যে দিন দিন উষ্ণ হয়ে যাচ্ছে তারই প্রমাণ এটি।

  •  
  •  
  •  

আর্কাইভ

shares