সিলেটে বিয়ের প্রলোভনে তরুণী ধর্ষণ, ধর্ষক কারাগারে

প্রকাশিত: ৮:২৫ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০১৯

সিলেটে বিয়ের প্রলোভনে তরুণী ধর্ষণ, ধর্ষক কারাগারে

Sharing is caring!

সিলেটে বিয়ের প্রলোভনে তরুণী ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১০ জুন) ধর্ষণ মামলায় সিলেটের অতিরিক্ত চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাইন বিল্লার আদালত আসামী সমর দাসকে (১৯) জেল হাজতে প্রেরণ করে। সে সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ থানার বিঞ্চপুর গ্রামের মৃত করুনা সিন্দুর ছেলে। পুলিশ ও মামলা সূ্ত্রে জানা যায়, এসএমপি এয়ারপোর্ট থানার ছালিয়া পূর্বপাড়ার মখন মিয়ার ভাড়া বাসায় শংকর দাস পরিবার নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বসবাস করে আসছেন। ৪ জুন সুনামগঞ্জ থেকে তার ফুপাতো বোনের মেয়ে রূপালী রাণী দাস (১৯) তাদের বাসায় বেড়াতে আসেন। সে আসার দু’দিন পূর্বে শংকর দাসের স্ত্রী সন্তান নিয়ে তার বাপের বাড়ি বেড়াতে যান। এদিকে রূপালীর পূর্বপরিচিত সমর দাসের সাথে মাঝেমধ্যে মুঠোফোনে কথা হতো। চতুর সমর কথার মাধ্যমে রূপালীর অবস্থান ও ওই বাসার কে কখন কোথায় যায় তা জেনে নেয়। ৮ জুন ফাঁকা বাসায় বিকেলে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে রূপালীকে ধর্ষণ করে সমর দাস। প্রতিদিনের মতো শংকর ও তার ছোটভাই দীপক তাদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান থেকে বাসা রাত ১০টায় ফিরে বিষয়টি জেনে সমরকে আটককে রাখেন। পরে খবর দিলে এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ ধর্ষককে আটক করে। শংকর দাস বাদী হয়ে সমর দাসকে একমাত্র আসামী করে পরদিন ৯ জুন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/২০০৩) এর (৯) ১ দ্বারায় মামলা করেন। মামলা নং ৭। সে মামলায় আটক দেখিয়ে ধর্ষক সমর দাসকে ১০ জুন সিলেটের অতিরিক্ত চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে মোস্তাইন বিল্লার আদালত আসামীকে কারাগারে আর রূপালীকে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে প্রেরণ করে বলে জানান এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ এসএম শাহাদাত হোসেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..

shares