কোম্পানীগঞ্জে চাঁদাবাজ চক্র বেপরোয়া, ধ্বংশ হচ্ছে ধলাই সেতু

প্রকাশিত: ৫:০১ অপরাহ্ণ, মে ২৮, ২০১৯

কোম্পানীগঞ্জে চাঁদাবাজ চক্র বেপরোয়া, ধ্বংশ হচ্ছে ধলাই সেতু

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের অবৈধভাবে বালু, পাথর উত্তোলন বন্ধ হয়নি। উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগের নাকের ডগায় ধ্বংশলীলা অব্যাহত আছে। উচ্চ আদালতের নিষিদ্ধ বোমা মেশিন দিয়ে নির্বিচারে পাথর উত্তোলন কোন ক্রমেই বন্ধ হচ্ছেনা। প্রশানের ব্যর্থতার আর থানার ওসির মদদে বিপন্ন হতে চলা ধলাই নদীর আশপাশ যেন ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে।

নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ধলাই সেতু, এরই নৈপথ্যে রয়েছেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলী আমজদ ও তাহার ভাতিজা রহমান আলীর ছেলে বিলাল মিয়া, আবাছ আলীর ছেলে মমিন মিয়া, আতাই মিয়ার ছেলে ইয়ামিন সহ একদল চাদাঁবাজ চক্র।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সচেতন নাগরিকবৃন্দের স্বপ্নের ধলাই সেতুটি চাঁদাবাজদের কবলে। এই চক্রটিকে প্রতিদিন রাতের আধারে শতাধিক নৌকা লাগিয়ে ব্রীজের পিলারের গুড়ি থেকে নৌকা বুজাই করে বালু নিয়ে যাচ্ছে।

তারা নিজের ফায়দা হাসিল করার জন্য সরকারের সম্পদ লুটপাট করেই যাচ্ছে। গত বছরে থানার ওসি আব্দুল হাই এর আমালে আওয়ামীলীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলি আমজদের নেতৃত্বে এই চক্রটি সক্রিয় হয়ে উঠে।

পাথর খেকোদের মানবসৃষ্ট ভাঙ্গন আর তান্ডবলীলায় আশপাশের পরিবেশ ধ্বংশের সাথে সাথে ভুমি ধ্বসের ঘটনা ঘটছে। বর্তমানে এসব পাথরখেকোদের টার্গেট কোম্পানিগঞ্জের বৃহত একটি জনগোর্ষ্টি যাতায়াত ব্যবস্থার অন্যতম বাহন ধলাই সেতু। পাথরখেকোদের দ্বারা ধলাই সেতু এলাকার পাথর উত্তোলন, বালু লুটপাটের কারণে হুমকির মুখে রয়েছে ধলাই।

সরজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে ধলাই সেতুসহ আশপাশের ভুমি থেকে পাথর লুটের চিত্র ফুটে ওঠে। ভুক্তভোগীদের সাথে আলাপকালে জানা যায় যে, বেপরোয়া পাথরখেকোরা ধলাই সেতুর পিলার ঘেষে ছোট ছোট লিষ্টার বোমা মেশিন লাগিয়ে পাথর লুট করছে। স্থানীয়রা জানান, ধলাই সেতু এলাকায় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রতিদিনই অব্যাহত ভাবে যে ছোট বোমা মেশিন, দিয়ে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছে স্থানীয় ভাষায় তাকে লিস্টার মেশিন, ও ৩২ মেশিন বলে।

নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক এলাকাবাসি জানান, নির্বিচারে এ পাথর উত্তোলন প্রক্রিয়ার কারণে ধ্বংসের মুখে পড়েছে সিলেটের অন্যতম ও কোম্পানীগঞ্জের যোগাযোগ রক্ষায় জনগুরুত্বপুর্ন দীর্ঘতম এ সেতুটি। পাথরখেকোদের তান্ডবলীলা আর নির্বিচারে পাথরলুট বন্ধ না হলে সেতু ধ্বসে পড়ে অচিরেই কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সদর ও সিলেটের সাথে কোম্পানীগঞ্জের পূর্ব ও পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়নের জনসাধারণের সড়ক পথে সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে।

সরজমিনে দেখা যায় ধলাই সেতুর পিলার সমুহের নিচ খুড়ে নির্বিচারে পাথর বালি তুলার কারণে পাথর উত্তোলনের ফলে সেতুটির পিলারের গুড়া সমুহে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, এভাবে পাথর উত্তোলন চলতে থাকলে যে কোন সময় সেতুটি ভেঙ্গে গিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পাশাপাশি, সেতু ধ্বসে পড়ে মানুষজন হতাহতের আশঙ্কা রয়েছে।

প্রভাবশালি একটি পাথরখেকো চাদাঁবাজ চক্র দীর্ঘদিন থেকে পেশি শক্তির দাপট খাটিয়ে ধলাই সেতুর আশপাশের এলাকা থেকে প্রতিদিনই অবৈধভাবে পাথর ও বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছে। যে কারণে হুমকির মুখে রয়েছে ধলাই সেতুটির অস্থিত্ব।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

………………………..