কারিগরি বোর্ডের অধীনে নার্সিং শিক্ষা বন্ধের দাবি বেআইনী

প্রকাশিত: ৭:২৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ৫, ২০১৯

কারিগরি বোর্ডের অধীনে নার্সিং শিক্ষা বন্ধের দাবি বেআইনী

সিলেট :: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে নার্সিং কোর্স বন্ধের দাবি বেআইনী, সংবিধান পরিপন্থী এবং অযৌক্তিক বলে জানিয়েছেন কারিগরি শিক্ষা বোর্ড স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন, সিলেটের নেতৃবৃন্দ।

মঙ্গলবার (০৫ মার্চ) দুপুরে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ জানান, কারিগরি বোর্ডের অধীনে নার্সিং কোর্স পরিচালনাকে যারা অবৈধ, বেআইনী বলছেন, তারা অজ্ঞতাবশত এবং পরশ্রীকাতর হয়ে আদালত অবমাননা করছেন। সেই সাথে জনমনে কারিগরি শিক্ষাবোর্ড এবং এর অধীনে যারা নার্সিং শিক্ষা নিচ্ছেন তাদেরকে হেয় করছেন। এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মানহানীকর এ বক্তব্য থেকে সংশ্লিষ্টদের বিরত থাকার আহবানও জানান নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পরিষদ কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ইমান উদ্দিন ডালিম লিখিত বক্তব্যে বলেন, বিগত ২৮ ফেব্রয়ারি সিলেট নগরীতে স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার ওরগেনাইজেশন নামের একটি সংগঠন মানববন্ধন করে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে নার্সিং শিক্ষা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। যা বেআইনী, সংবিধান পরিপন্থী এবং অযৌক্তিক। কারণ বিগত ২৪ অক্টোবর ২০১৮ সালে Technical Education Act 1967 ( Act no 1 of 1967) আইনটি রহিত ক্রমে যুগোপযোগী করে আনিত বিল (বা.জা.স. বিল নং ৫৫/২০১৮) মহান জাতীয় সংসদে পাশের পর বাংলাদেশ সরকার গেজেট প্রকাশ করেছেন। ২৪ অক্টোবর ২০১৮ সালে প্রকাশিত গেজেটের (নং ৫৫/২০১৮) ১৩২৯৩ পৃষ্ঠায় কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ডিপ্লোমা নার্সিং কোর্সসহ স্বাস্থ্যসেবার সকল ডিপ্লোমা কোর্স এবং ১৩২৯৪ পৃষ্টায় স্বাস্থ্য সেবার নার্সিংসহ সকল সার্টিফিকেট কোর্স পরিচালনার জন্য কারিগরি শিক্ষা বোর্ডকে ক্ষমতায়িত করা হয়েছে। তাছাড়া কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে ডিপ্লোমা নার্সিং পাশকৃত শিক্ষার্থীদের বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিল থেকে নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) দিতে মহামান্য হাই কোর্টের একটি রিট (পিটিশন নং ১৮৮৫৬/২০১৭) এর চুড়ান্ত শুনানী করে মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট বিগত ১/৪/২০১৮ তারিখে বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিলসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দেন।

সেই নির্দেশের পরও যারা কারিগরি বোর্ডের অধীনে নার্সিং কোর্স পরিচালনাকে অবৈধ, বেআইনী বলেন তারা অজ্ঞতাবশত এবং পরশ্রীকাতর হয়ে আদালত অবমাননাই শুধু করছেন না, বরং জনমনে কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এবং বোর্ডের অধীনে যারা নার্সিং শিক্ষা নিচ্ছেন তাদেরকে হেয় করছেন। এই মানহানীকর বক্তব্য আদালত অবমাননা ও ফৌজদারী অপরাধ বলে আমরা মনে করি।

তিনি আরো জানান, আদালতের নির্দেশ অমান্য করে কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে পাশ করা নার্সিং শিক্ষার্থীদেরকে নার্সিং কাউন্সিলের রেজি: সনদ পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ না দিয়ে বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিল বিগত ২/৮/১৮ইং তাং মেমো নং বিএনএমসি/প্রশা ৪৮(৮)/২০১৮-৪৮৩ এক নোটিশ জারি করলে সুপ্রিম কোর্টে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের নার্সিং শিক্ষার্থীরা আদালত অবমাননার মামলা করলে মহামান্য আদালত ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আইন অমান্য করার কারণ দর্শাতে নার্সিং কাউন্সিলসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দেন। পরবর্তীতে ঐ (রেজি: পরীক্ষা) নোটিশের কার্যকারিতা বাতিল করে পূর্বের আদেশ বহাল রেখে কারিগরি শিক্ষাবোর্ড থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীদেরকে রেজি: সনদ পরীক্ষা বা অন্য কোন ধরনের সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত না করার সিদ্ধান্ত দেন।

আমরা যারা কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে নার্সিংসহ অন্যান্য স্বাস্থ্য কোর্সে লেখাপড়া করছি তা আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহনযোগ্য সিলেবাস, কারিকুলাম এবং সকল মান নিয়ন্ত্রণ করে পাঠদান করা হচ্ছে বলে মনে করি। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড বাংলাদেশ সরকারের একটি বৈধ প্রতিষ্ঠান। কিন্তু কারিগরি বোর্ডের অধীনে লেখাপড়া মান সম্পন্ন নয় বলে যারা কথা বলছেন, তারা পরোক্ষভাবে বাংলাদেশ সরকারের একটি আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা বোর্ড এবং ২০১৮ সালে মহান জাতীয় সংসদে পাশ হওয়া নার্সিং শিক্ষাদান আইন এবং এ সংক্রান্ত মহামান্য হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টের দেয়া নির্দেশনাকে অবজ্ঞা করছেন বলে আমরা মনে করি। কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এবং কারিগরি বোর্ডের অধীনে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা ১৯৩৪ সালের ব্রিটিশ উপনিবেশ আমলের আইনের ধারা চালিত বেঙ্গল নার্সিং কাউন্সিল যা বর্তমানে বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিল নামে পরিচালিত হচ্ছে, তার বদলে মহান জাতীয় সংসদে ২০১৮ সালে যুগোপযোগী ও নতুন করে সংসদে গৃহিত Technical Education Act 1967 (Act no 1 of 1967) যে আইনটি পাশ করেছেন তা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োপযোগী চিন্তা চেতনার ফসল। এর বিরোধিতা করার কোন সুযোগ নেই।

তাই ২৪ অক্টোবর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডকে ক্ষমতা দেয়া নার্সিংসহ স্বাস্থ্য শিক্ষার ডিপ্লোমা কোর্স পরিচালনার আইনটি মেনে নিয়ে বানোয়াট ও বিভ্রান্তিকর তথ্য না রটিয়ে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান নেতৃবৃন্দ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, কারিগরি শিক্ষা বোর্ড স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন, সিলেটের সভাপতি জিয়াউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ওয়ারিছ উদ্দিন খাঁন, জবা মালাকার, নাজমীন ফাতেহা মুন্নী, সানজিদা সুলতানা, পপি আখতার, সুমা বেগম, আব্দুল জলিল, বৃষ্টি বেগম প্রমুখ।

Sharing is caring!

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

সর্বশেষ খবর

………………………..